রবিবার, সেপ্টেম্বর ২৫, ২০২২

কিশোর গ্যাং নিয়ন্ত্রণে জেলা প্রশাসনের উপলব্ধি

যশোরসহ সারা দেশে বেপরোয়া মোটরসাইকেল চালানোর কারণে দুর্ঘটনার ঘটনা বেড়েছে। এতে অনেক মানুষের প্রাণহানি ঘটছে। কিশোর বয়সীদের বেপরোয়া মোটরসাইকেল চালানো রোধ করতে সচেতনতা বৃদ্ধি করতে হবে। পরিবার থেকে শুরু করে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের শিক্ষকদের সচেতনতা বৃদ্ধির জন্য কাজ করতে হবে। শ্রেণি কক্ষে শিক্ষার্থীদের উদ্দেশ্যে এ বিষয়ে বলতে হবে। পাশাপাশি কিশোর গ্যাংয়ের কারণে নানা ধরনের অপরাধ হচ্ছে। এদের বিরুদ্ধে সমন্বিতভাবে সামাজিক প্রতিরোধ গড়ে তোলার আহ্বান জানানো হয়। ১৪ আগস্ট জেলা আইনশৃঙ্খলা কমিটির সভা থেকে এ আহ্বান জানানো হয়েছে। জেলা প্রশাসনের উদ্যোগে কালেক্টরেট সভাকক্ষে এসভা হয়। জেলা প্রশাসক তমিজুল ইসলাম খানের সভাপতিত্বে বক্তব্যে অতিরিক্ত পুলিশ সুপার সাইফুল ইসলাম বলেন, মোটরসাইকেল এখন মানুষের জন্য আতংক। সমন্বিত প্রচেষ্টার মাধ্যমে এটা বন্ধ করতে হবে। পুলিশ মানুষের জানমাল রক্ষা ও নিরাপত্তা দেয়ার দায়িত্ব পালন করে যাচ্ছে।

দেশটা নিরীহ মানুষের নিরাপদ আবাসভূমি হবে এটা সবার কাম্য। অপরাধীদের অভয়ারণ্য হোক তা কেউ চায় না। কিন্তু দেখা যাচ্ছে- হিংস্র হায়েনার মতো দুর্বৃত্তরা দাপিয়ে বেড়াচ্ছে আর নিরীহ মানুষ তাদের ভয়ে আতংকিত জীবনযাপন করছে। এতে মানুষের স্বাভাবিক জীবনযাত্রা ব্যাহত হচ্ছে।

উদ্বেগজনক বিষয় হলো- মেয়েদের স্বাভাবিক জীবনযাত্রা নিশ্চিন্ত ও বাধামুক্ত করতে এসব শ্রেণির দুর্বৃত্ত দমনে কঠোরহস্ত হতে হবে। অপরাধের প্রতিটি ক্ষেত্রে যদি দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি দেয়া যায় তাহলে সে রকম একটি পরিবেশ আশা করা যায়। অপরাধীরা রেহাই পেলে আরো অপরাধ করার আষ্কারা পাবে তারা। একটি অপরাধের শাস্তি না হলে আর একটি অপরাধ সংঘটিত হবার পথ প্রশস্ত হয়।

আমরা মনে করি, যে যাই বলুক না কেন প্রশাসন সক্রিয় হলে বেপরোয়া কিশোররা সোজা পথে হাঁটবে। তারা যে বেপরোয়াভাবে চলছে সে ব্যাপারে সবার যেন একটা গাছাড়া ভাব। এতে জাতির ভকিষ্যৎ কোন দিকে যাচ্ছে তা কেউ ভেবে দেখছে না। ছাত্র নামধারীদের দেখা যায় তারা পড়াশুনা না করে অধিক রাত পর্যন্ত বাড়ির বাইরে আড্ডা দিয়ে বেড়ায়। এদের প্রশাসন সামান্য তৎপর হলে তারা আড্ডা ভেঙে পড়ার টেবিলে যাবে। কিন্তু এই সাধারণ কথাটা কেউ বুঝতে চাচ্ছে না। আজকের শিশুরা কালকের ভবিষ্যৎ। কিন্তু তাদেরকে যদি দিক নির্দেশনা না দেয়া হয়, গড়ে তোলা না হয়, তাহলে তারা জাতির ভবিষ্যৎ হবে কিভাবে? এ সত্য উপলব্ধি করে সবাইকে এগিয়ে আসতে হবে।

একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে

সর্বশেষ

editorial

যানজটের শহর যশোর

মায়ের সন্ধানে পথে পথে ছেলে

যানজটের শহর যশোর

যশোর ২৫০ শয্যা জেনারেল হাসপাতাল ঘেঁষে ১৬টি বেসরকারি চিকিৎসাসেবা প্রতিষ্ঠানের নেই পার্কিং ব্যবস্থা। হাসপাতালের...

রাজপথে আছি, রাজপথেই থাকবো : নার্গিস বেগম (ভিডিওসহ)

নিজস্ব প্রতিবেদক : যশোর জেলা বিএনপির আহ্বায়ক অধ্যাপক নার্গিস বেগম বলেছেন, সরকার তার মসনদ টিকিয়ে...

বাঁকড়ায় সরকারি গাছ কাটার অভিযোগ

নিজস্ব প্রতিবেদক : ঝিকরগাছার বাঁকড়ায় সরকারি খাস জমি থেকে কয়েক লক্ষাধিক টাকার রেইনট্রি গাছ কাটার...

পহেলা অক্টোবর থেকে যশোরে পরিবহন চলাচল বন্ধ !

শনিবার যশোর জেলা পরিবহন সংস্থা শ্রমিক ইউনিয়নের নিজস্ব কার্যালয়ে সংগঠনের সভাপতি আজিজুল আলম মিন্টুর...

ঝিকরগাছায় অবৈধভাবে সার বিক্রিকালে ১৫ বস্তা উদ্ধার

নিজস্ব প্রতিবেদক : যশোরের ঝিকরগাছা উপজেলা বাজারে অবৈধভাবে সার বিক্রির সময় ১৪ বস্তা ইউরিয়া ও...

কেশবপুরে ভাটা মালিক ও সার ব্যবসায়ীকে জরিমানা

গৌরীঘোনা প্রতিনিধি : যশোরের কেশবপুরে ভাটা মালিক ও সার ব্যবসায়ীকে জরিমানা করা হয়েছে। চুকনগর-সোলঘাতিয়া সড়কের...