গোয়ায় বিজেপিকে হারাতে কীসের ইঙ্গিত দিলেন মহুয়া?

world

আন্তর্জাতিক ডেস্ক
ভারতের পশ্চিমবঙ্গে ভূমিধস জয় পাওয়ার পর এবার গোয়ার নির্বাচন নিয়ে নতুন স্বপ্নে বিভোর তৃণমূল কংগ্রেস। আসন্ন ফেব্রুয়ারি মাসে বিধানসভা নির্বাচন ওই রাজ্যে। এখানে সংগঠনের দায়িত্বে রয়েছেন লোকসভার সংসদ সদস্য মহুয়া মৈত্র।

শনিবার তার দেওয়া এক টুইটবার্তা নিয়ে নতুন জল্পনা শুরু হয়েছে।

হিন্দুস্তান টাইমস জানায়, শনিবার সকালে টুইট করে ঝড় তুলেছেন। যেখানে বিজেপিকে হারাতে যা করা সম্ভব তাই করবে তৃণমূল কংগ্রেস বলে সাড়া ফেলে দিয়েছেন।

তাৎপর্যপূর্ণভাবে এই টুইটের সঙ্গে তিনি সেখানকার রাজনৈতিক দলগুলিকে জুড়ে দিয়েছেন। যেখানে আছেন— গোয়া ফরোয়ার্ড পার্টি, মহারাষ্ট্রবাদী গোমন্তক পার্টি এবং কংগ্রেসও। তাতে আরও বিষয়টি মাইলেজ পেয়ে গিয়েছে। ঠিক কী লিখেছেন মহুয়া?

ওইদিন মহুয়া টুইটে লেখেন, ‘গোয়ায় বিজেপিকে হারানোর জন্য যা যা করা সম্ভব, তা করবে তৃণমূল কংগ্রেস। মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় যা কথা দেন তা রাখেন। আর গোয়াতেও অতিরিক্ত মাইল হাঁটতে লজ্জা পাবে না তৃণমূল কংগ্রেস।’

মহুয়া আরেক টুইটবার্তায় বলেন, সেখানে আমরা ক্ষমতায় এলে গৃহবধূদের জন্য গৃহলক্ষ্মী কার্ড এবং যুবসমাজের জন্যও বিশেষ কার্ডের ব্যবস্থা করা হবে। গোয়ায় নতুন সকালের উদয় হবে।

ইতিমধ্যেম কংগ্রেস থেকে অনেক নেতা তৃণমূল কংগ্রেসে যোগও দিয়েছেন। তাই বিজেপিকে হারাতে তৃণমূল কংগ্রেস জোরদার লড়াই করবে এই টুইট থেকে স্পষ্ট বলে মনে করছেন রাজনৈতিক পর্যবেক্ষকরা।

হিন্দুস্তান টাইমসের বিশ্লেষণে বলা হয়, শনিবার মহুয়ার টুইটে কংগ্রেসকে জুড়তে দেখা গিয়েছে। যা ব্যাপক আলোচনার কারণ হয়ে দাঁড়িয়েছে। কারণ এটা কংগ্রেসকে বার্তা দেওয়া হল বলেই মনে করা হচ্ছে। এই টুইটটির মাধ্যমে তৃণমূল কংগ্রেস বোঝাতে চেয়েছে, বিজেপির বিরুদ্ধে লড়াইয়ে কংগ্রেসকেও ছুঁয়ে রাখা হল। কোনও বিজেপি বিরোধী দলই তৃণমূল কংগ্রেসের কাছে অচ্ছুৎ নয় তাই এই বার্তা। এখানের সমীকরণ হল, গোয়ায় ৪০টি আসনের মধ্যে জোটসঙ্গী গোমন্তক পার্টিকে ৯টি আসন দিতে হবে তৃণমূল কংগ্রেসকে। বাকি ৩১টি আসনের মধ্যে দুটি দিতে হবে গোয়া ফরোয়ার্ড পার্টিকে। বাকি রয়েছে ২৯টি আসন। সেগুলির জন্য কংগ্রেস এবং অন্যান্য দল থেকে আসা অনেকগুলি নামের তালিকা রয়েছে তৃণমূল কংগ্রেসের কাছে।

ইতিমধ্যে গোয়ায় সংগঠন সাজিয়ে তুলেছে তৃণমূল কংগ্রেস। দফায় দফায় পশ্চিমবঙ্গ থেকে এমপি–বিধায়করা ঘুরে এসেছেন। সদ্য সেখানে ঘুরে গিয়েছেন দলের সর্বভারতীয় সাধারণ সম্পাদক অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়। এমনকি মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় নিজেও এই আরবসাগরের তীরবর্তী রাজ্যে পা রেখেছেন।

একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে