Wednesday, May 18, 2022

চৌগাছায় কোটি টাকা হাতিয়ে নিয়ে দুটি এনজিও উধাও

চৌগাছা (যশোর) প্রতিনিধি:
যশোরের চৌগাছায় ১০ বছরে দ্বিগুণ টাকার লোভ দেখিয়ে বেশ কয়েকটি গ্রাম থেকে কোটি টাকা হাতিয়ে নিয়ে উধাও হয়েছে পিডো ও আড়পাড়া সমাজ কল্যাণ সংস্থা ।

উপজেলার মাড়ুয়া, আড়পাড়া, কান্দি, সৈয়দপুর, কোটালিপুরসহ বেশ কয়েকটি গ্রামের সহজ সরল মানুষকে ‘সঞ্চয় ও ডিপিএস’-এ দ্বিগুণ লাভের প্রলোভন দেখিয়ে এনজিও দুটি টাকা সংগ্রহ করে লাপাত্তা হয়েছে। রোববার তাদের লাপাত্তা হওয়ার খবর ছড়িয়ে পড়ে। এরপরই জগদিশপুর ইউনিয়নের তিনটি গ্রামের শতাধিক মানুষ চৌগাছা প্রেসক্লাবে সমবেত হয়ে সাংবাদিকদের অবহিত করেন। ক্ষতিগ্রস্তরা সংস্থা দুটির ডিপিএস ও সঞ্চয় জমাদানের বই হাতে নিয়ে বিক্ষোভ করেন।

খোঁজ নিয়ে জানা গেছে. পিডো ও আড়পাড়া সমাজ কল্যাণ সংস্থার সরকারি অনুমোদন নেই । অনুমোদন ছাড়াই তারা দ্বিগুণ লাভের প্রলোভন দেখিয়ে অর্থ সংগ্রহ করে সটকে পড়েছে। ক্ষতিগ্রস্তরা জানিয়েছেন, এনজিও সংশ্লিষ্টরা বলেছিল যশোর সদরের রূপদিয়ায় সমবায় মার্কেটে তাদের প্রধান কার্যালয় রয়েছে। কিন্তু সেখানে সংস্থা দুটির কোনো অফিস খুঁজে পাওয়া যায়নি। পারভিনা নামে পিডো’র এক মাঠ কর্মী বললেন. পিডো’র সরকারি অনুমোদন ছিল। আমি রূপদিয়াতে ওই সংস্থার ৫দিনের ট্রেনিং নিয়েছি। তবে পরে অফিসটি ভেঙে গেছে।

২০১৯ সালে পল্লী অর্থনৈতিক উন্নয়ন সংস্থা পিডো উপজেলার দুটি ইউনিয়নের বিভিন্ন গ্রামে তাদের কার্যক্রম শুরু করে। সে সময় সলুয়া বাজারেও তাদের অফিস ছিল। পরে তারা আড়পাড়া বাজারে কার্যক্রম পরিচালনা শুরু করে। তাদের অর্থ সংগ্রহের রশিদ ও টাকা জমা নেয়ার বইতে পিডো’র ঠিকানা যশোর, রূপদিয়া, সদর যশোর এবং স্থাপিত ১৯৯৮ ইং লেখা আছে। আর আড়পাড়া সমাজ কল্যান সংস্থার সাইনবোর্ডে অফিসের ঠিকানা যশোর সমবায় মার্কেট এবং নির্বাহী পরিচালক হিসেবে নাসিমা খাতুন তিথি’র নাম লেখা আছে। সংস্থা দুটি প্রায় ৩বছর সঞ্চয় ও ডিপিএস কার্যক্রম চালিয়ে গ্রামের সহজ সরল মানুষের কাছ থেকে প্রায় ১ কোটি টাকা সংগ্রহ করেছে।

আড়পাড়া সংস্থার অফিসের ঘর মালিক বাবলুর রহমান বলেন, শুধু গ্রাহকদের টাকা না, আমারও ৭ মাসের ঘর ভাড়া না দিয়ে পালিয়েছে তারা।

পিডোর মাঠ কর্মী কান্দি গ্রামের পারভিনা জানিয়েছেন, দেড় বছর আগে পিডো (পল্লী অর্থনৈতিক উন্নয়ন সংস্থা) ছেড়ে চলে এসেছি। তখন পিডোর নির্বাহী পরিচালক ছিলেন যশোর রূপদিয়ার মাসুদ চৌধুরী নামে এক ব্যক্তি। পরবর্তীতে সেই মাসুদ চৌধুরী গ্রাহকদের টাকা পয়সা মেরে ভারতে পালিয়ে যান।

ভুক্তভোগীরা জানিয়েছেন পারভিনা এবং খাদিজা চলে যাওয়ার পর পারভিনার চাচাত ভাই আড়কান্দি গ্রামের সোহাগ এবং কালিগঞ্জ থানার গরীনাথপুরের স্বপ্নারানী সংস্থার টাকা সংগ্রহ করতেন।

সোহাগ জানান, যশোরের আবু সাঈদ নামে একজন ‘আড়পাড়া সমাজ কল্যান সংস্থা’র এমডি। তার স্ত্রী নাসিমা খাতুন তিথি নির্বাহী পরিচালক। তবে পরে জেনেছি তাদের সরকারি কোনো অনুমোদন নেই এবং যশোরের কোথাও তাদের কোনো অফিস নেই।

এ বিষয়ে চৌগাছা উপজেলা সমাজ কল্যাণ কর্মকর্তা মেহেদি হাসান জানিয়েছেন, আড়পাড়া সমাজ কল্যাণ সংস্থার নাম আমাদের তালিকায় নেই। জগদিশপুর ইউনিয়নের নবনির্বাচিত চেয়ারম্যান মাস্টার সিরাজুল ইসলাম বলেন, আমার কাছে ওই গ্রামের পারভিনার বাবা এসেছিল। আমি তাকে অফিস খুলে ভুক্তভোগিদের টাকা ফিরিয়ে দিতে বলেছি।

একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে

সর্বশেষ

যশোরে গৃহবধূর রহস্যজনক মৃত্যু

নিজস্ব প্রতিবেদক: যশোরে সুমাইয়া খাতুন নামে এক গৃহবধূর রহস্যজনক মৃত্যু হয়েছে। তার ঝুলন্ত মরদেহ...

ঝিকরগাছায় সখিনা হত্যার দায় স্বীকার প্রেমিকের

নিজস্ব প্রতিবেদক: যশোরের ঝিকরগাছায় সখিনাকে হত্যার কথা স্বীকার করে আদালতে জবানবন্দি দিয়েছে তার প্রেমিক...

শেখ হাসিনার ৪২তম স্বদেশ প্রত্যাবর্তন দিবসে বিভিন্ন স্থানে কর্মসূচি পালিত 

কল্যাণ ডেস্ক: বঙ্গবন্ধু কন্যা আওয়ামী লীগ সভানেত্রী প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার ৪২তম স্বদেশ প্রত্যাবর্তন দিবসে...
00:03:13

যশোরে বাপ্পি খুনের আসামিরা দুই সপ্তাহেও আটক হয়নি

নিজস্ব প্রতিবেদক: যশোর সদর উপজেলার ভায়না গ্রামের বাপ্পি হাসান (১৯) নামে এক তরুণ খুনের...

পদ্মা সেতুর টোল নির্ধারণে প্রজ্ঞাপন

কল্যাণ ডেস্ক: বহুল প্রত্যাশিত পদ্মা সেতুর ওপর দিয়ে চলাচলকারী যানবাহনের টোল নির্ধারণ করে প্রজ্ঞাপন...

বঙ্গবন্ধু জাতীয় গোল্ডকাপ ফুটবল টুর্নামেন্ট পৌরসভা ও দোহাকুলা ইউনিয়ন ফাইনালে 

বাঘারপাড়া (যশোর) প্রতিনিধি: উপজেলা পর্যায়ে মঙ্গলবার বাঘারপাড়ায় বঙ্গবন্ধু জাতীয় গোল্ডকাপ ফুটবল টুর্নামেন্টের সেমিফাইনাল পর্বের...