Wednesday, July 6, 2022

ছবি আঁকার নান্দনিক কারুকাজে পৌর উদ্যানে ডুবে ছিল শিশুরা

মুক্তিযুদ্ধ পাঠাগারের ‘মুক্তিযুদ্ধ ও বঙ্গবন্ধু’ শীর্ষক চিত্রাঙ্কন প্রতিযোগিতা

চারু আদিত্য:
পাতার ফাঁক গলে নামছে নরম রোদের আভা। সূর্য কণায় ঝিকমিক করছে ক্যানভাসের রঙরেখা। পেন্সিল ও রঙমাখানো তুলির আঁচড়ে আর্ট পেপার হয়ে উঠছে একাত্তরের রণাঙ্গন।

কালার প্লেটে বারবার ডুব দিচ্ছে পেইন্ট ব্রাশ। আর তারই মসৃন ছোঁয়ায় সাদা কাগজ জুড়ে চলছে ছবির নান্দনিক কারুকাজ। এমন দৃশ্য যশোর পৌর উদ্যানে আয়োজিত ‘মুক্তিযুদ্ধ ও বঙ্গবন্ধু’ শীর্ষক চিত্রাঙ্কন প্রতিযোগিতার। শনিবার মুক্তিযুদ্ধ পাঠাগার এই প্রতিযোগিতার আয়োজন করে।

এদিন প্রতিযোগিতার সময় নির্ধারিত ছিল বেলা এগারটা। তারও বেশ আগেই পেন্সিল বক্স, রঙতুলি, ড্রয়িং বোর্ডসহ ছবি আঁকার অন্যান্য সরঞ্জাম নিয়ে হাজির হয় শিশুরা। তাদের সঙ্গে আসেন অভিভাবকরাও। উদ্যানের সবুজ চত্বরে আগে থেকেই পাটি ও কার্পেট পেতে রাখা হয়। সেখানে বসে কচিকাঁচারা গভীর মনোযোগে ছবি আঁকায় ডুব দেয়।

আয়োজক কর্তৃপক্ষ মুক্তিযুদ্ধ পাঠাগার আর্ট পেপার সরবরাহ করে। সঙ্গে আনা ছবি আঁকার উপকরণ নিয়ে শিশুরা প্রতিযোগিতায় অংশ নেয়। দেখা যায়, কাঠ পেন্সিল দিয়ে কেউ কেউ প্রথমে ছবির অবয়ব এঁকে নিচ্ছে। এরপর তাতে বিচিত্র সব রঙের মিশেল দিচ্ছে। জল ও মোম রঙের ছোঁয়া পেয়ে ছবিগুলো অনবদ্য রূপ নেয়।
তর্জনী উঁচিয়ে সাত মার্চের ভাষণরত বঙ্গবন্ধুর ছবি আঁকে কেউ কেউ। আবার কারোর ছবিতে ছিল মহান স্বাধীনতার স্বারক স্থাপনা স্মৃতিসৌধ। রাইফেল-বেয়নেট কাঁধে ঝোলানো মুক্তিযোদ্ধারাও কারোর ছবির বিষয়বস্তু ছিলো। আবার কেউ আঁকছিলো পাকবাহিনীর অগ্নিসংযোগ, নারীদের সম্ভ্রম হানি ও হত্যযজ্ঞের বিভীষিকার দৃশ্যচিত্র।

যশোর ক্যান্টনমেন্ট সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষার্থী মাহিমা জামান বঙ্গবন্ধুর ৭ মার্চের ভাষণের ছবি আঁকছিলো। জলরঙের ছোঁয়ায় সেই ছবি জীবন্ত হয়ে ওঠে যেন। সূর্য রশ্মির ছটায় ছবিটি হয়ে দীপ্তিময়। আলাপচাতিায় এই প্রতিযোগীর মা রহিমা খানম জানান, বিভিন্ন দিবস কেন্দ্র করে এই শিশুদের এই ধরণের প্রতিযোগিতার আয়োজন দরকার। এতে শিশুরা সৃজনশীলতার চর্চায় আকৃষ্ট হয়। এছাড়া উদ্যানের নিবিঢ় এই পরিবেশে তারা প্রকৃতির সাথে একাকার হওয়ার সুযোগ পেয়েছে।

আরেক প্রতিযোগী জাওয়াদ আফনানের বাবা আলমগীর হোসেন জানান, শিশুদের সৃজনশীলতার বিকাশের জন্য এরকম আয়োজন দরকার। এই ধরণের প্রতিযোগিতা তাদের মধ্যে দেশপ্রেম ও মুক্তিযুদ্ধের চেতনা জাগ্রত করবে।

এদিনের এই চিত্রাঙ্কন প্রতিযোগিতায় যশোর শহরের বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের অর্ধশতাধিক শিশু অংশ নেয়। এতে বিচারিক দায়িত্ব পালন করেন চারুতীর্থের সাধারণ সম্পাদক সজল ব্যানার্জী ও চিত্রশিল্পী ওবায়েদ জাকির রাশু। এর আগে ‘মুক্তিযুদ্ধ ও বঙ্গবন্ধু’ শীর্ষক প্রবন্ধ প্রতিযোগিতার লেখা জমা নিয়েছে মুক্তিযুদ্ধ পাঠাগার।

একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে

সর্বশেষ

আলেম নামধারী এসব শিক্ষকদের কঠোর শাস্তি নিশ্চিত করা হোক

সাতক্ষীরার দেবহাটার নাজিবের ঘের স্বতন্ত্র এবতেদায়ী মাদরাসার এক শিক্ষকের বিরুদ্ধে ৫ম শ্রেণির শিক্ষার্থীকে শ্লীলতাহানির...

৩ সেপ্টেম্বর প্রেসক্লাব যশোরের বিশেষ সাধারণ সভা

প্রেসক্লাব যশোরের গঠনতন্ত্র পরিবর্ধনের উদ্যোগ নেওয়া হয়েছে। এ লক্ষ্যে মঙ্গলবার ক্লাবের কার্যনির্বাহী কমিটির দিনব্যাপী...

কেন্দ্রীয় ত্রাণ তহবিলে ২০ লাখ টাকা অনুদান দিল যশোর বিএনপি

নিজস্ব প্রতিবেদক উত্তরবঙ্গে বন্যার্তদের জন্য বিএনপির কেন্দ্রীয় ত্রাণ তহবিলে ২০ লাখ টাকা অনুদান দিল যশোর...

যশোরে কলেজছাত্রীর আত্মহত্যা

নিজস্ব প্রতিবেদক মঙ্গলবার যশোরে গলায় ফাঁস দিয়ে কামরুন্নাহার কেয়া (১৮) নামে এক শিক্ষার্থী আত্মহত্যা করেছেন।...

পর্যবেক্ষণে অসুস্থ বিএনপি নেতা নূর-উন-নবী

নিজস্ব প্রতিবেদক যশোর সদর উপজেলা বিএনপির সভাপতি নূর-উন-নবী (৬৬) ব্রেন স্ট্রোকে আক্রান্ত হয়ে ঢাকার একটি...

জাতীয় স্কুল ফুটবলের শিরোপা যশোরে নিয়ে আসতে চায় পলাশ বাহিনী

নিজস্ব প্রতিবেদক প্রথমবার অংশ নিয়েই জাতীয় স্কুল ফুটবল প্রতিযোগিতার ফাইনাল যায়গা করে নিয়েছে বেনাপোল মাধ্যমিক...