ঝিকরগাছা পৌর নির্বাচনে স্বতন্ত্র প্রার্থীর সমর্থকরা পুলিশী হয়রানির শিকার

যশোর

কল্যাণ রিপোর্ট: যশোরের ঝিকরগাছা পৌরসভার নির্বচনে স্বতন্ত্র প্রার্থী ইমরান হাসান সামাদ ও তার সমর্থকরা পুলিশের মিথ্যা মামলার কারণে মাঠে থাকতে পারছেন না। প্রতি রাতে পুলিশ তার সমর্থদের বাড়িতে যেয়ে আটকের জন্য হানা দিচ্ছে। ফলে সুষ্ঠু নির্বাচনের পরিবেশ নষ্ট করছে পুলিশ। সোমবার ঝিরগাছার পৌর নাগরিক সমাজের ব্যানারে অনুষ্ঠিত সংবাদ সম্মেলনে এ অভিযোগ করেন স্বতন্ত্র প্রার্থী ইমরান হাসান সামাদ।
উপস্থিত ছিলেন ইলিস উদ্দিন, নুরুন্নবী খান সবুজ, আব্দুস সালাম পলাশ, এনামুল হক, শাহীন আলম প্রমুখ।
লিখিত বক্তব্যে ইমরান হাসান সামাদ বলেন, দীর্ঘ ২০ বছর পর আগামী ১৬ জানুয়ারি ঝিকরগাছা পৌরসভার নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে। পুলিশ আমার কর্মী সমর্থকদের হয়রানি করছে। এমনকি পৌরসভার ৯ টি ওয়ার্ডের ১১ জন কাউন্সিলর প্রার্থীর নামেও মামলা করেছ। ঘটনাটি অত্যন্ত লজ্জার এবং নিন্দনীয়। গত ৩১ ডিসেম্বর রাতের আমার ৩ জন কর্মীকে বাড়ি থেকে কোন কারণ ছাড়া পুলিশ তুলে নিয়ে যায়। পরদিন ওই ৩ জনসহ ৩৪ জনের নাম উল্লেখসহ অপরিচিত আরও ৬০-৭০ জনের নামে নাশকতার পরিকল্পনা বিস্ফোরক আইনে মামলা দিয়েছে পুলিশ। এ মামলায় পৌরসভার ৯ টি ওয়ার্ডের মোট ১১ জন কাউন্সিলর প্রার্থীর নামও রয়েছে।

তিনি বলেন, নির্বাচনী পরিবেশ ঘোলাটে করতে একটি মহল আমার কর্মী সমর্থকদের বাড়িতে প্রতি রাতে পুলিশ পাঠিয়ে খোঁজা-খুজি করা, হুমকি ধামকি দেয়া ও বিভিন্ন ধরনের ভয়-ভীতি প্রদর্শন করছে। যে কারনে রাতে কর্মীরা কেউ বাড়িতে ঘুমাতে পারছেন না। তাদের পরিবার পরিজনও খুব দুশ্চিন্তায় রয়েছে। নির্বাচনী প্রচার কাজ সুষ্ঠুভাবে পরিচালনা ও সকলের ভোটাধিকার প্রয়োগের উপযুক্ত পরিবেশ তৈরির জন্য ১ জানুয়ারি রিটার্নিং অফিসার বরাবর আবেদন করেছি। এই আবেদনের অনুলিপি, জেলা প্রশাসক, পুলিশ সুপার, উপজেলা নির্বাহী অফিসার, ঝিকরগাছা থানার অফিসার ইনচার্জ ও নির্বাচন অফিসার ঝিকরগাছায় দিয়েছি। তিনি নির্বাচনের সুষ্ঠু পরিবেশ ফিরিয়ে আনতে প্রশাসনের হস্তক্ষেপ কামনা করেছে।

একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে