দলীয় কোন্দলে যশোরে ৫ ইউনিয়নে নৌকা ডুবি

ইউপি নির্বাচন

কল্যাণ রিপোর্ট: গ্রুপ রাজনীতির দ্বন্দ্বে নৌকা ডুবলো যশোর সদরের ৫ ইউনিয়নে। নৌকা ডোবাতে অর্ধশতাধিক বিদ্রোহী প্রার্থী দেয় উভয় গ্রুপ। ফলে ভোট ভাগ হয়ে পরাজিত হয়েছেন এক তৃতীয়াংশ নৌকার মাঝি। একটি গ্রুপ থেকে ৩ জন, অপর গ্রুপের দুই বিদ্রোহী প্রার্থী জয়ী হয়েছেন। ফলে এক গ্রুপের কাছে আরেক গ্রুপের হার হলেও নৌকা ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে।

সদরের ইউপি নির্বাচনের দলীয় মনোনয়ন দৌঁড়ে একটি গ্রুপের ঝুলি ভর্তি হয় ১১টি নৌকায়। আরেক গ্রুপের ঝুলি পূর্ণ হয় ৪টি নৌকা দিয়ে।

নাবিল-শাহীন দ্বন্দ্বে দলীয় ৫ প্রার্থীর পরাজয় হয়েছে বলে দোষারোপ করেছে দলটির নেতাকর্মীরা। গ্রুপ রাজনীতির প্রভাবে ইউপি নির্বাচনে দলীয় মনোয়ন দৌঁড়ে এমপি কাজী নাবিল আহমেদ গ্রুপের ১১ অনুসারী দলীয় মনোনয়ন পান। জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এমপি শাহীন চাকলাদারের গ্রুপ থেকে দলের পান ৪ জন।

হৈবতপুর ইউনিয়নে নৌকার প্রার্থী আবু সিদ্দিক, চুড়ামনকাটিতে নৌকার দাউদ হোসেন দফাদার, ইছালীতে নৌকার ফেরদৌসি ইয়াসমিন, কাশিমপুরে নৌকার শরিফুল ইসলাম, আরবপুরে নৌকার মীর আরশাদ আলী, কচুয়ায় নৌকার লুৎফর রহমান ধাবক, বসুন্দিয়ায় নৌকার রিয়াজুল ইসলাম খান রাসেল, ফতেপুরে নৌকার শেখ সোহরাব হোসেন, লেবুতলায় নৌকার আলীমুজ্জামান মিলন (বিনাপ্রতিদ্বন্দ্বিতায়), উপশহরে নৌকার এহসানুর রহমান লিটু বিজয়ী হয়েছেন।

অপরদিকে নৌকা পেয়েও বিদ্রোহীদের কাছে পরাজয় ঘটেছে ৫ নৌকার মাঝির। বিদ্রোহীদের মধ্যে জয়ী হয়েছেন নরেন্দ্রপুর ইউনিয়নের রাজু আহমেদ (আনারস), নওয়াপাড়ার হুমায়ুন কবীর তুহিন (মোটরসাইকেল), চাঁচড়ার শামীম রেজা (আনারস), দেয়াড়ার আনিসুর রহমান (আনারস) ও রামনগর ইউনিয়নে মাহমুদ হাসান লাইফ (মোটরসাইকেল)।

একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে