Wednesday, July 6, 2022

দুর্যোগ মোকাবেলায় পদ্মা সেতুর ভূমিকা…

ছোলজার রহমান: পদ্মা সেতু রাজধানী ঢাকার সাথে দক্ষিণ-পশ্চিমাঞ্চলের ২০ টি জেলার সড়ক পথে যোগাযোগ ব্যবস্থা সার্বক্ষণিকভাবে স্থাপন করবে। ইতোপূর্বেকার নৌপথ ও ফেরি নির্ভরতার ভোগান্তি কাটিয়ে দ্রুত যাতায়াত ও পরিবহণ সম্ভব হবে। নৌপথে যতটা অনিশ্চয়তা ও কালক্ষেপন ঘটে থাকে, সড়কপথে তা থাকবে না। প্রাকৃতিক দুর্যোগের কারণে নৌপথে যোগাযোগ ও পরিবহণ হর হামেশাই বন্ধ থাকে। তাই প্রাকৃতিক দুর্যোগের সময় দুর্যোগ কবলিত এলাকার মানুষকে অন্যত্র সরিয়ে নেয়া, উদ্ধার, ত্রাণ বিতরণ, তৈরি খাবার বিতরণ, অন্যান্য সামগ্রী বিতরণ ইত্যাদি কার্য পরিচালনা করার জন্য নৌপথ ও নৌযান খুব একটা সুবিধা ও নিশ্চয়তা প্রদান করে না। দক্ষিণ-পশ্চিমাঞ্চলে উপকূলীয় এলাকায় প্রায়শই সামুদ্রিক ঘূর্ণীঝড় ও জ্বলোচ্ছ্বাস সংঘটিত হয়। আক্রমণ ও ক্ষতিগ্রস্ত উভয়ই বেশি হয়ে থাকে ভোলা, পটুয়াখালি, বরিশাল, ঝালকাঠি, শরিয়তপুর, বরগুনা, পিরোজপুর, বাগেরহাট, খুলনা ও সাতক্ষীরা জেলায়। পূর্বাংশে সেন্টমার্টিন্স দ্বীপ, টেকনাফ, কক্সবাজার, মহেশখালি, চট্টগ্রাম, সন্দ্বীপ, নোয়াখালি, চাঁদপুর প্রাকৃতিক দুর্যোগের আঘাত হানা ও ক্ষতিগ্রস্ত হওয়ার ক্ষেত্র হিসেবে পরিচিত। টর্ণেডো ও খরা প্রবণ এলাকার মধ্যে দক্ষিণ-পশ্চিমাঞ্চলে রয়েছে- যশোর, মাগুরা,ঝিনাইদহ, চুয়াডাঙ্গা, মেহেরপুর ও কুষ্টিয়া জেলা। সামুদ্রিক ও স্থলজ উভয় ধরণের দুর্যোগের প্রাক্কালে পর্যাপ্ত সময় পাওয়া না গেলে সীমিত সময়ের মধ্যে কেবলমাত্র নৌপথে নারী-শিশু-বৃদ্ধ এবং গবাদি পশু স্থানান্তর ও সরিয়ে নেয়া কিংবা সাহায্য সহায়তার দ্রব্যাদি ও উদ্ধারকারী পৌঁছানো সম্ভব হয়ে উঠে না। আশ্রয়কেন্দ্রে যাবার সময় অনেক পরিবার কিছু পরিমাণ শুকনা খাদ্যসামগ্রী, সম্পদ সাথে নিয়ে থাকেন। তাই এক একটি নৌকা, ট্রলার ও স্পিডবোটে ১ থেকে ৫ টি পরিবার পরিবাহিত হতে পারে। আশ্রয়কেন্দ্রসমূহে এবং উপদ্রুত এলাকায় ত্রাণসামগ্রী ও উদ্ধারকারী-স্বেচ্ছাসেবক দল প্রেরণ ও বহণ চূড়ান্ত আঘাত হানার অনেক আগে থেকে পরিচালনা করতে হয়। এর জন্য প্রয়োজনীয় যানবাহন, খাদ্যসামগ্রী ও ত্রাণসামগ্রী প্রেরণ কোন কোন পরিস্থিতিতে নৌপথজনিত কারণে বেশ বিলম্বিত হয়। লোডিং-আনলোডিং এবং ব্যক্তির হাতে দেয়া পর্যন্ত বহণ কাজে বেশ জনবল দরকার পড়ে। উপকূলীয় অঞ্চলে হেলিকপ্টার, নৌকা, ট্রলার এবং বাস-ট্রাক-ভ্যান দিয়ে দুর্যোগ মোকাবিলার কার্যক্রম পরিচালনা করা হলেও বায়ুর গতি এবং ঢেউয়ের উচ্চতার জন্য হেলিকপ্টার, নৌকা, ট্রলার এর জন্যও দুর্যোগের ঝুঁকি থাকে। সড়কপথে পরিবহণ ব্যবস্থা সামুদ্রিক দুর্যোগকালেও উপকূলের সুবিধাজনক যায়গা ও নৌযানের খুব কাছাকাছি পর্যন্ত প্রেরণ ও বহণ কাজে ব্যবহার করা সম্ভব। ছোট থেকে বড় এবং হালকা থেকে ভারী ক্রমে বিন্যাস করে অধিক সংখ্যায় যানবাহন নিয়োজিত করা ও নৌযানের কাছাকাছি পর্যন্ত পরিবহণ সংযোগ হিসেবে সড়ক পরিবহণ যানের অন্তর্ভুক্তি কাজের সমন্বয়, গতি ও সক্ষমতা বাড়িয়ে তোলে। পদ্মা সেতু উপকূলীয় এলাকা সমূহের সাথে রাজধানীর দূরত্ব অনেকটা কমিয়ে সোজাপথে সংযোগ সৃষ্টি করবে। ফেরি ঘাটে ফেরির জন্য অপেক্ষা এবং পল্টুন খালি না পাওয়া ইত্যাদি এবং ঝড়ো-দুর্যোগময় আবহাওয়ায় ফেরি চলাচল বন্ধ থাকে- এরুপ অনিশ্চয়তা দূর করে সার্বক্ষণিক চলাচল ও পরিবহণ ব্যবস্থা স্থাপনের মাধ্যমে কেন্দ্রের সিদ্ধান্ত অনুযায়ী ব্যবস্থা গ্রহণ এবং মাঠ পর্যায়ে সরঞ্জামাদি প্রেরণের আর একটি পথের কাজ করবে, যোগাযোগ সহজতর করবে এবং দুর্গত ও ক্ষতিগ্রস্তদের পাশে দাঁড়ানোকে দ্রুততর করবে।

লেখক: সহযোগী অধ্যাপক, ভূগোল ও পরিবেশ, সরকারি মাইকেল মধুসূদন কলেজ

একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে

সর্বশেষ

পিঠে ছুরিবিদ্ধ খোকন নিজেই গাড়ি ভাড়া করে আসেন যশোর হাসপাতালে

নিজস্ব প্রতিবেদক : পিঠে বিদ্ধ হওয়া ছুরি নিয়ে নিজেই যশোর জেনারেল হাসপাতালে চিকিৎসা নিতে এসেছেন...

নায়কদের নামে কোরবানির গরু, আপত্তি জানালেন ওমর সানি

কল্যাণ ডেস্ক : আগামী ১০ জুলাই পবিত্র ঈদুল আজহা। মুসলিম সম্প্রদায় এই ঈদে পশু কোরবানির...

এশিয়ার বাইরের উইকেটের যে কারণে অসহায় মোস্তাফিজ

ক্রীড়া ডেস্ক : মোস্তাফিজুর রহমানের বোলিং দেখে ক্যারিয়ারের শুরুতে অনেকে তাকে বলতেন, 'জোর বল করা...

নতুন ২৭১৬ শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান এমপিওভুক্ত

কল্যাণ ডেস্ক : শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের উভয় বিভাগের আওতায় আরও ২ হাজার ৭১৬টি শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান এমপিওভুক্ত করার...

নওয়াপাড়া বন্দরে অবৈধ তালিকায় ৬০ ঘাট

অবৈধভাবে গড়ে উঠা ঘাটের কারণে কমছে নদীর নাব্যতা ৫ বছরে অর্ধশত জাহাজ ডুবিতে ক্ষতিগ্রস্ত...

মণিরামপুরে জমজমাট কোরবানির পশু হাট

আব্দুল্লাহ সোহান, মণিরামপুর : দক্ষিণবঙ্গের অন্যতম হাট মণিরামপুরের গরু-ছাগলের হাট। প্রতি শনি ও মঙ্গলবার এখানে...