Sunday, May 29, 2022

দৃশ্যমান উন্নয়নের মাধ্যমে ইউনিয়নকে মডেল হিসেবে গড়ে তুলবো

একান্ত সাক্ষাৎকারে লেবুতলা ইউপি চেয়ারম্যান আলিমুজ্জামান মিলন

লেবুতলা ইউনিয়ন পরিষদের চেয়াম্যান আলিমুজ্জামান মিলন বলেছেন, এবারের ইউপি নির্বাচনে আমার প্রতি আস্থা রেখে কেউ প্রতিদ্বন্দ্বী হননি। তাদের আশা আকাক্সক্ষা পুরণে নির্বাচনী দেয়া প্রতিশ্রুতি বাস্তবায়নে যথাসাধ্য চেষ্টা করে যাবো। আমি বিগত দিনের ন্যায় স্বচ্ছতা নিয়ে কাজ করতে চাই এবং দৃশ্যমান উন্নয়নের মাধ্যমে ইউনিয়ন পরিষদকে মডেল হিসেবে গড়ে তুলতে চাই। দৈনিক কল্যাণকে দেয়া এক সাক্ষাতকারে এই প্রত্যয় ব্যক্ত করেন তিনি। সাক্ষাৎকারটি গ্রহণ করেন পত্রিকার নিজস্ব প্রতিবেদক জেমস্ রহিম রানা ও মনিরুজ্জামান মনির।
দীর্ঘ ৫ বছর নির্বাচিত চেয়ারম্যান হিসেবে জনগণের পাশে থেকে সততা ও নিষ্ঠার সাথে কাজ করেছেন তিনি। এবার তিনি বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় নির্বাচিত হয়েছেন।

তিনি বলেন, ইউনিয়নের উন্নয়ন অব্যাহত রাখতেই আমার প্রতি আস্থা রেখে কেউ আমার প্রতিদ্বন্দ্বী হননি। তাদের আশা আকাক্সক্ষা পুরণে নির্বাচনী দেয়া প্রতিশ্রুতি বাস্তবায়নে যথাসাধ্য চেষ্টা করে যাবো।

প্রশ্ন : ইউনিয়নবাসীর জন্য আপনার প্রতিশ্রুতি কি ?
উত্তর : আমি বিগত দিনের ন্যায় স্বচ্ছতা নিয়ে কাজ করতে চাই এবং দৃশ্যমান উন্নয়নের মাধ্যমে ইউনিয়ন পরিষদকে মডেল হিসেবে গড়ে তুলতে চাই।

প্রশ্ন : ইউনিয়ন পরিচালনায় আপনার পরিকল্পনা কি ?
উত্তর : ইউনিয়ন পরিষদ পরিচালনায় আমার নানাবিধ পরিকল্পনা রয়েছে। তারমধ্যে অন্যতম হচ্ছে পরিষদের সদস্যদের সাথে সমন্বয় করে ইউনিয়নের জনগণের চাহিদা মোতাবেক পরিকল্পনা বাস্তবায়ন করা হবে।

প্রশ্ন : আপনার ইউনিয়নের প্রধান সমস্যা কি ?
উত্তর : লেবুতলা একটি উন্নয়ন বঞ্চিত ইউনিয়ন। এখানকার বেশিরভাগ মানুষ কৃষি নির্ভর। বর্তমানে ইউনিয়নের প্রধান সমস্যা যোগাযোগ ব্যবস্থা। যে কারণে কৃষক তার উৎপাদিত ফসলের ন্যয্য মূল থেকে বঞ্চিত হচ্ছে। আমি বিগত দিনে যোগাযোগ ব্যবস্থার যে সমস্যা রয়েছে তা সমাধান করার চেষ্টা করেছি এবং নতুন পরিকল্পনায় পরিপূর্ণ সমাধান হবে বলে আশা করি।

প্রশ্ন : বাল্যবিয়ে রোধে আপনার কোন পরিকল্পনা রয়েছে কি ?
উত্তর : আমাদের সমাজে বাল্য বিয়ে একটি সামাজিক সমস্যা। যা রোধ করা খুবই দুষ্কর। তারপরও আমি আমার ইউনিয়নকে ১০০ ভাগ বাল্য বিয়ে মুক্ত করার চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছি এবং আগামী দিনেও তা অব্যাহত থাকবে।

প্রশ্ন : শিক্ষা সম্প্রসারণে আপনার পরিকল্পনা কি ?
উত্তর : শিক্ষা সম্প্রসারণে আমার নানাবিধ পরিকল্পনা রয়েছে। বিগত সময়েও বিভিন্ন শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে সরকারি সহায়তার পাশাপাশি ব্যক্তিগতভাবে শিশুদের জন্য খেলাধুলা সামগ্রী এবং টিফিন বাটি দেওয়া হয়েছে। দুরের শিক্ষার্থীদের জন্য বাইসাইকেল এবং গরীব মেধাবীদের বই কিনে দিয়েছি।

প্রশ্ন : সমাজের পিছিয়ে পড়া জনগোষ্ঠীর জন্য আপনার পরিকল্পনা কি ?
উত্তর : সমাজের পিছিয়ে পড়া জনগোষ্ঠীর জন্য আমার পরিকল্পনা হলো, এলাকার এনজিওদের অপতৎপরতা বন্ধ করার মাধ্যমে এবং জনগণকে বোঝানোর মাধ্যমে ঋণ নেয়া থেকে অনুৎসাহিত করা ও ঋণমুক্ত ইউনিয়ন গড়ে তোলা।

প্রশ্ন : সামাজিক অবক্ষয় রোধে আপনার পরিকল্পনা কি ?
উত্তর : সামাজিক অবক্ষয় রোধে বিভিন্ন সভা, সংস্কৃতি অনুষ্ঠান, খেলাধুলা এবং নৈতিক জ্ঞানের মাধ্যমে শিক্ষা দেয়ার চেষ্টা করব ।

প্রশ্ন : ইউনিয়নবাসীর কাছে আপনার প্রত্যাশা কি ?
উত্তর : ইউনিয়নবাসীর কাছে আমার প্রত্যাশা হলো সকল ধরনের রাজনৈতিক কলহ থেকে দুরে থাকার মাধ্যমে সরকারি নিয়ম কানুন মেনে চলাসহ সর্বস্তরের জনগনের সম্পৃক্ততা বৃদ্ধি করা।

প্রশ্ন : ইউনিয়নবাসীর চিত্তবিনোদনের জন্য কোন পরিকল্পনা আছে কি ?
উত্তর : চিত্তবিনোদনের জন্য ইতিমধ্যে ইউনিয়ন পরিষদে ছাদ কৃষি করেছি, খালের দুই পাশে ঔষধি গাছ লাগিয়েছি এবং খুব শিগগিই দুই পাশে বসার জন্য ছাওনি তৈরি করবো ।

প্রশ্ন : আইন শৃঙ্খলা রক্ষা, চোরাচালান দমন ও মাদক নিয়ন্ত্রণে আপনার ভূমিকা কি ?
উত্তর : আইন-শৃংখলার মাধ্যমে চোরাচালান দমন করা হবে এবং মাদক নিয়ন্ত্রণে ইউনিয়ন জিরো পয়েন্টে আছে এবং তা অব্যাহত থাকবে।

প্রশ্ন : সরকারি গাছ চুরির প্রবণতা রোধসহ বৃক্ষ রোপণে কি ব্যবস্থা নেবেন ?
উত্তর : এ ইউনিয়নের কোথাও কোন গাছ চুরির ঘটনা ঘটে না বরং আমি নিজেই ৪ হাজার তালের চারা রোপণ করেছি এছাড়া ৭ থেকে ৮ হাজার ঔষধী গাছের চারা রোপণ করেছি যা ধারাবাহিকভাবে আগামীতেও অব্যাহত থাকবে ।

প্রশ্ন : স্যানিটেশন ব্যবস্থা প্রসার ঘটানোর জন্য আপনার কোন চিন্তা আছে কি ?
উত্তর : স্যানিটেশন ব্যবস্থার প্রসার ঘটানোর চিন্তা অবশ্যই আমার আছে। বিগত দিনে ইউনিয়নের তিনটি বাজারে গণসৌচাগার করা হয়েছে এবং বাকি বাজার গুলোতেও এবার করে দেবো। এবার মাঠেও গণসৌচাগারসহ সুপেয় পানির ব্যবস্থা করা হবে।

প্রশ্ন : জনযোগাযোগ ব্যবস্থার উন্নয়নে অগ্রাধিকার ভিত্তিক কর্মসূচি নেবেন কি না ?
উত্তর : জনযোগাযোগ ব্যবস্থার উন্নয়নে অগ্রধিকার ভিত্তিক কর্মসূচি নেয়া হবে ইউনিয়নের নির্বাচিত সদস্যদের নিয়ে। তাদের সমন্বয়ে ইউনিয়নবাসীকে উন্নত সেবা প্রদানের মাধ্যমে মডেল ইউনিয়ন উপহার দেয়ার পরিকল্পনা রয়েছে।

প্রশ্ন : মডেল ইউনিয়ন গড়তে আপনার ভিন্ন কোন পরিকল্পনা রয়েছে কি ?
উত্তর : কৃষিতে লেবুতলা ইউনিয়ন মডেল ইউনিয়ন হিসেবে আছে এবং এটা অব্যাহত রাখার চেষ্টা করব। এই ইউনিয়ন কৃষির দিক থেকে অনেক উন্নত। তাই কৃষকদের উন্নয়নে কাজ করবো।

এক নজরে লেবুতলা ইউনিয়ন
জনসংখ্যা: ৩১ হাজার ৬৭৫
পুরুষ : ১৫ হাজার ৬১২
নারী : ১৬ হাজার ৬৩
শিক্ষা প্রতিষ্ঠান : ১৯
প্রাইমারি : ১৩
মাধ্যমিক বিদ্যালয় : ৫
মাদ্রাসা : ১
এতিমখানা : ১
শিক্ষার হার : ৮৪ ভাগ
কাঁচা রাস্তার : ১৭ কিলোমিটার
কার্পেটিং : ১২ কিলোমিটার
ইটের হেরিংবোন : ৮ কিলোমিটার
স্যানিটারি ল্যাট্রিন : ৪ হাজার ৪০০
টিউবওয়েল : ৪ হাজার ৫২৫
স্বাস্থ্য কেন্দ্র : ৩টি
কমিউনিটি ক্লিনিক : ২টি
উপস্বাস্থ্য কেন্দ্র : ১টি।

একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে

সর্বশেষ

খুলনা-কলকাতা রুটে বন্ধন এক্সপ্রেস আজ ফের চালু

নিজস্ব প্রতিবেদক: আজ রোববার থেকে ফের কলকাতা-খুলনা রুটে ‘বন্ধন এক্সপ্রেস’ রেল চলাচল শুরু হবে।...

রসুনের গায়ে আগুন!

সপ্তাহের ব্যবধানে কেজিতে বেড়েছে ৫০ টাকা ক্ষুব্ধ ক্রেতা, স্বস্তিতে নেই কিছু বিক্রেতাও জ্যেষ্ঠ প্রতিবেদক: এবার ভোক্তার...

আনারসের পাতা থেকে সুতা সৃজনশীল কাজে পৃষ্ঠপোষকতা প্রয়োজন

অপার সম্ভাবনার দেশ বাংলাদেশ। কিন্তু হলে কি হবে। সম্ভবনা থাকলেই তো আর আপনা আপনি...

দড়াটানার ভৈরব পাড়ে মাদকসেবীদের নিরাপদ আঁখড়া

নিজস্ব প্রতিবেদক: যশোর শহরের ঘোপ জেলরোড কুইন্স হাসপাতালের পূর্ব পাশে ভৈরব নদের পাড়ে মাদকসেবীদের...

আজকের মধ্যে অবৈধ ক্লিনিক-ডায়াগনস্টিক বন্ধ না হলে ব্যবস্থা

কল্যাণ ডেস্ক: দেশে অনিবন্ধিত ও নবায়নহীন অবস্থায় পরিচালিত অবৈধ বেসরকারি ক্লিনিক ও ডায়াগনস্টিক সেন্টার...

নিরপেক্ষ সরকারের কাছে ক্ষমতা হস্তান্তর করতে হবে : মির্জা ফখরুল

ঝিনাইদহ প্রতিনিধি: বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর বলেছেন, দেশে আওয়ামী লীগের অধীনে আর...