সোমবার, অক্টোবর ৩, ২০২২

ধূলজোড়া চুড়ারগাতী প্রতাপ চন্দ্র বিদ্যালয়ে চার নিয়োগে অর্ধকোটি টাকার ঘুষ বাণিজ্য!

মারুফ রায়হান, মাগুরা :

মাগুরা মহম্মদপুর উপজেলার বাবুখালী ইউনিয়নের ধূলজোড়া চুড়ারগাতী প্রতাপ চন্দ্র মাধ্যমিক বিদ্যালয়ে চার পদের নিয়োগে অর্ধকোটি টাকার ঘুষ বাণিজ্যের অভিযোগ উঠেছে। প্রধান শিক্ষক শ্রীকান্ত বিশ্বাস ও সভাপতি রসকান্ত বিশ্বাসের বিরুদ্ধে এ অভিযোগ করা হয়েছে।

চাকরিপ্রত্যাশী ও স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক শ্রীকান্ত বিশ্বাস ও সভাপতি রসকান্ত বিশ্বাস ঘুষ নিয়ে তাদের মনোনীত প্রার্থী সৌরভ, সংকর, গোলক ও সবিতাকে নিয়োগ দেয়ার জন্য গত ২৭ আগস্ট পরীক্ষার দিন ধার্য করে। সেখানে তাদের পছন্দমত লোককে ২ দিন পূর্বেই দেয়া হয় প্রবেশপত্র, বিষয়টি নিয়ে অন্য প্রার্থীদের আবেদনের পরিপ্রেক্ষিতে বন্ধ হয়ে যায় ওই দিনের নিয়োগ পরীক্ষা। এরপর আবার শুরু হয় প্রক্রিয়া।

এ বিষয়ে ওই বিদ্যালয়ের কমিটির কয়েক জন জানান, নিয়োগ বাণিজ্যের বিষয়টি আমরা নিশ্চিতভাবে জানতে পেরে ১৬ সেপ্টেম্বর এই নিয়োগ কার্যক্রম বন্ধ করার জন্য আমরা কমিটির ৬ জন সদস্য গত ১৫ সেপ্টেম্বর জেলা প্রশাসক বরাবর আবেদন করি এবং নিয়োগ বন্ধ করার জন্য প্রধান শিক্ষক ও সভাপতিকে মৌখিকভাবে বলি। জেলা প্রশাসকের কাছে আবেদনের বিষয়টিও তাদের জানানো হয় কিন্তু তারা তাতে কোন কর্ণপাত করেনি। কমিটির ১-২ জন সদস্যকে অর্থের বিনিময়ে পক্ষে নিয়ে ঘুষ নেয়া ৪ জনকে পাতানো নিয়োগ বোর্ডের মাধ্যমে মনোনীত করা হয়।

সদস্যরা আরো বলেন, আমরা কমিটির সদস্য হওয়ায় বিভিন্ন মাধ্যম ও সূত্র থেকে নিশ্চিত হয়েছি কম্পিউটার ল্যাবসহকারী পদে সৌরব বিশ্বাস, পিতা- মৃত পরিমল বিশ্বাসের (সাং-বহলবাড়িয়া) কাছে থেকে ১৮ লাখ টাকা, অফিস সহায়ক পদে সংকর বিশ্বাস, পিতা- গোপাল বিশ্বাসের (সাং-চুড়ারগাতি) কাছে থেকে ১২ লাখ টাকা, পরিচ্ছন্নতা কর্মী পদে গোলক বিশ্বাস, পিতা-গোপাল বিশ্বাসের (সাং- বৃহসনগর) কাছ থেকে ১২ লাখ টাকা, আয়া পদে সবিতা বিশ্বাস, স্বামী-ভবতোষের (কুলিপড়া) কাছ থেকে ১০ লাখ টাকা ঘুষ নিয়েছে, যেটা আমরা আগে থেকেই বলে আসছি। যা বিভিন্ন গণমাধ্যমে প্রকাশিত হয়েছে। তার পরও প্রধান শিক্ষক শ্রীকান্ত ও সভাপতি রসকান্ত যোগসাজশে এই নিয়োগ সম্পন্ন করেছেন।

এ বিষয়ে বাবুখালী ইউনিয়ন ছাত্রলীগের সভাপতি নাঈম বলেন, আমার ভাই মাসুদ পরিচ্ছন্নতা কর্মী পদে চাকরির জন্য আমি সভাপতির সাথে কথা বলি তিনি আমাকে ১০ লাখ টাকা প্রধান শিক্ষক শ্রীকান্ত বিশ্বাসকে দিতে বলেন। তার কথা মত আমি শোরুম, গরু ছাগল বিক্রি করে ও জমি বন্ধক রেখে ৭ লাখ টাকা কয়েকজনের উপস্থিতিতে শ্রীকান্তকে দেয়। কিন্তু অন্য প্রার্থীর কাছে থেকে টাকা বেশি পেয়ে আমার ভাইয়ের দরখাস্ত বাতিল করে দেয়।

ঘুষ বাণিজ্যের বিষয়ে সভাপতি রসকান্তের কাছে জানতে চাইলে তিনি বিষয়টি এড়িয়ে যান। এ বিষয়ে প্রধান শিক্ষক শ্রীকান্ত বিশ্বাস নিজেকে নির্দোষ দাবি করে বলেন, জেলা শিক্ষা অফিসার আলমগীর সাহেবের পরামর্শে তার উপস্থিতিতেই দরখাস্ত বাতিল করা হয়েছে। এ বিষয়ে মাগুরা জেলা শিক্ষা অফিসার আলমগীর কবির বলেন, দরখাস্ত বাদ দেয়ার বিষয়ে আমি কিছু জানিনা। এটা প্রধান শিক্ষক ও কমিটির বিষয় তারা জানে, আর এটা নিয়োগ বাণিজ্যের বিষয় বা কোন অনিয়মের বিরুদ্ধে মামলা হলে আমরা কঠোর পদক্ষেপ নেবো।

একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে

সর্বশেষ

যশোরে দুর্গাপূজায় বাজেটে টান

সুনীল ঘোষ : সনাতন ধর্মাবলম্বীদের সবচেয়ে বড় ধর্মীয় উৎসব দুর্গাপূজা। প্রতিবছর বিগ বাজেট থাকে আয়োজক...

যশোর শহরে ফের ওএমএস’র আটা বিক্রি শুরু, অনিয়মের প্রমাণ মিললেই লাইসেন্স বাতিল

জ্যেষ্ঠ প্রতিবেদক : যশোর পৌর এলাকায় ফের ওএমএস’র আটা বিক্রি শুরু হয়েছে। রোববার আটা বিক্রি...

যশোর সিটি কর্পোরেশন কতদূর

তবিবর রহমান : ২০১২ সালের ২০ ডিসেম্বর প্রধানমন্ত্রী যশোর এসেছিলেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। সেদিন শহরের...

 কারা পাচ্ছেন নোবেল পুরস্কার, আজ থেকেই জানা যাবে

কল্যাণ ডেস্ক: বিশ্বের সবচেয়ে মর্যাদার নোবেল পুরস্কার ঘোষণা শুরু হচ্ছে আজ থেকে। আগামী ১০...

বাঙালির স্মৃতি থেকে মুছে যাবে ইলিশ

গ্রাম্য মাদ্রাসার শিক্ষক আনোয়ারুজ্জান ২০ বছর আগে ইলিশ মাছের ভবিষ্যৎ নিয়ে যা ভেবেছিলেন, আজ...

জাতীয় ক্রাশ রাশমিকার জীবনে টার্নিং পয়েন্ট ‘পুষ্পা’

বিনোদন ডেস্ক: তেলেগু ‘পুষ্পা: দ্য রাইজ’ সিনেমাতে অভিনয় করে ভারতজুড়ে খ্যাতি পেয়েছেন রাশমিকা মান্দানা।...