Tuesday, August 9, 2022

নওয়াপাড়া উপকরকমিশনার কার্যালয়, কর ফাঁকির পথ দেখিয়ে ‘লালে লাল’ (ভিডিওসহ)

সুনীল ঘোষ ও রায়হান সিদ্দিকী : 

যশোরের নওয়াপাড়া উপকর কমিশনার কার্যালয়ের নিরাপত্তাকর্মীর নাম মোজাম্মেল হক। অফিসের বাইরে নওয়াপাড়া শহরে তিনি নিজস্ব দুটি চেম্বারে বসে কর ফাইল দেখেন। ট্যাক্স ফাঁকির নয়-ছয় কাগজপত্র তৈরি করেন। দু’হাত ভরে করেন অর্থ উপার্জন। রাতারাতি কোটিপতি বনে গেছেন মোজাম্মেল। নামে-বেনামে গড়েছেন অঢেল সম্পদ। কর ফাঁকির পথ দেখিয়ে ব্যবসায়ীদের কাছে হয়েছেন আস্থাভাজন। এখন অনেকে তাকে বড় কর্মকর্তা বলেও জানেন। যশোর ট্যাকসেস বার অ্যাসোসিয়েশন নেতৃবৃন্দ তার বিরুদ্ধে দুর্নীতির অভিযোগ করে খুলনা অঞ্চলের কর কমিশনারকে দু’বার পত্র দিয়েছেন। কিন্তু কোন ব্যবস্থা না নেয়ায় অনেক প্রশ্নের সৃষ্টি হয়েছে।

এ বিষয়ে যশোর ট্যাকসেস বার এসোসিয়েশনের সভাপতি অ্যাডভোকেট মোয়াজ্জেম হোসেন চৌধুরী বলেন, ১৯৮৪ সালের আয়কর অধ্যাদেশ অনুযায়ী কর মামলায় প্রতিনিধিত্ব করার সুনির্দিষ্ট বিধান আছে। কিন্তু তার ব্যত্যয় ঘটিয়ে একজন নিরাপত্তা কর্মী কী ভাবে শত শত কর দাতার প্রতিনিধিত্ব করেন বোধগম্য নয়। তার বিষয়ে দু’দফা উর্ধতন কর্তৃপক্ষকে বলা হলেও রহস্যজনক কারণে দৃশ্যমান কোন পদক্ষেপ নেয়া হয়নি।

‘‘প্রায়ই মানুষ ফোন করে জানতে চান ‘মোজাম্মেল হক সাহেব’ আছেন। সে কর্মকর্তা হিসেবে পরিচিত। এতে আমি তিক্ত-বিরক্ত।
-অতিরিক্ত সহকারী কর কমিশনার রেবেকা খানম

রোববার দৈনিক কল্যাণের একদল সংবাদকর্মী নিরাপত্তাকর্মী মোজাম্মেল হকের অনিয়ম অনুসন্ধানে যান উপকর কমিশনার সার্কেল-১১ নওয়াপাড়া কার্যালয়ে। জানতে পারেন অফিসটি ঘিরে মোজাম্মেল হক গড়ে তুলেছেন দুর্নীতির শক্তিশালী সিন্ডিকেট। যখন যে কর্মকর্তা আসেন, তিনি অবৈধ রোজগারের হাতিয়ার হিসেবে বেছে নেন মোজাম্মেলকে। এর ফলে সরকার কোটি কোটি টাকা রাজস্ব বঞ্চিত হলেও কোটিপতি বনে যান ঘুষ-বাণিজ্যের চক্রটি। কর্মকর্তার বাইরেও অসাধু কিছু কর্মচারী সিন্ডিকেটকে করে তুলেছেন শক্তিশালী। কর্মকর্তা আসেন; যান। কিন্তু সিন্ডিকেট ভাঙে না। নিরাপত্তাকর্মী মোজাম্মেল দিনে বিভিন্ন ব্যবসা প্রতিষ্ঠানে যান। অডিট না করার নিশ্চয়তা ও রাজস্ব কমিয়ে দেয়ার শর্তে ব্যবসা প্রতিষ্ঠান থেকে হাতিয়ে নেন ঘুষ চুক্তির টাকা।

অফিস কার্যালয়ে কথা হয় অতিরিক্ত সহকারী কর কমিশনার রেবেকা খানম ও সুপার আল ইমরানের সাথে। রেবেকা খানম বলেন, প্রায়ই মানুষ ফোন করে জানতে চান ‘মোজাম্মেল হক সাহেব’ আছেন। সে কর্মকর্তা নামেই পরিচিতি পেয়েছে। এতে আমি তিক্ত-বিরক্ত হয়ে আছি। আমার নাম বিক্রি করে যারা খাচ্ছে আল্লাহ তাদের বিচার করবেন।

এ সময় সুপারভাইজার আল ইমরান বলেন, এ রকম মোজাম্মেল, সব কর কমিশনার কার্যালয়ে আছে। এতে অফিসের বদনাম হচ্ছে। হঠাৎ-ই অফিসে প্রবেশ করেন নিরাপত্তাকর্মী মোজাম্মেল হক। তিনি সব অভিযোগ উড়িয়ে বলেন, স্যার আপনিই (রেবেকা খানম) বলেন, আমি কী এসব করি ?

এ সময় রেবেকা বলেন, আমি তাকে দিয়ে চিঠিপত্র পাঠাই কর কমিশনারের কার্যালয়ে। এর বাইরে আর কিছু জানি না। এ সময় আরও কিছু বলতে চান তিনি। কিন্তু আল ইমরানের চোখের ইশারায় বন্ধ হয়ে যায় কর্মকর্তার মুখ।

‘‘কর মামলায় প্রতিনিধিত্ব করার সুনির্দিষ্ট বিধান উপেক্ষা করে একজন নিরাপত্তা কর্মী কী ভাবে শত শত কর দাতার প্রতিনিধিত্ব করেন বোধগম্য নয়।
-যশোর ট্যাকসেস বার এসোসিয়েশনের সভাপতি মোয়াজ্জেম হোসেন চৌধুরী

এক পর্যায়ে মোজাম্মেল হক বলেন, আমার দুটো বাড়ি আছে। পৈত্রিক সম্পত্তি বিক্রির টাকায় বানিয়েছি। আমার মায়ের ৩০ বিঘা ও বাবার ৭ বিঘা জমি আছে। এর আগে মণিরামপুর উপজেলার দুর্বাডাঙ্গা ইউনিয়নের বিপ্রকোনা গ্রামে মোজাম্মেল হকের বাড়িতে যান সাংবাদিক দল। সেখানে কথা হয় তার বৃদ্ধ মা রিজিয়া বেগমের সাথে। তিনি বলেন, আমাদের মাঠে দুই বিঘা জমি আছে। দুই ছেলে নওয়াপাড়ায় চাকরি করে। তারা আমার জন্য একতলা বাড়িটি বানিয়ে দিয়েছে। আমরা স্বামী-স্ত্রী গ্রামের বাড়িতেই থাকি। এ সময় মোজাম্মেল হকের চাচাতো ভাই ষাটোর্ধ্ব হযরত আলী বলেন, তারা নওয়াপাড়ায় থাকে। শুনেছি চাকরি করে।

বিপ্রকোনা গ্রামের বাসিন্দারা জানান, শুনেছি ইনকাম ট্যাক্স অফিসে চাকরি করেন মোজাম্মেল। তারা দুই ভাই নওয়াপাড়াতেই থাকে। গ্রামে খুব কম আসে। গত ঈদে প্রাইভেটকারে বাড়িতে এসেছিল।

এদিকে তার অফিসে সরেজমিনে গেলে ভিন্ন তথ্য দেন মোজাম্মেল হক। দাবি করেন মা-বাবা মিলে দু’জনের ৩৭ বিঘা জমি আছে। ওই জমি বিক্রির টাকায় বাড়ি বানিয়েছি। ভাই গাওসুল আজম নিজে নওয়াপাড়ায় বাড়ি বানিয়ে আলাদা থাকেন।

অফিস সহকারী নজরুল ইসলাম বলেন, আমার কিছু জানা নেই। শুনেছি নওয়াপাড়ায় বাড়ি বানিয়েছেন। অফিসের একাধিক সূত্রের দাবি, অফিসের কিছু কর্মকর্তার সাথে ঘুষের টাকার ভাগবাটোয়ারা হয়। বিভিন্ন হাত ঘুরে এই টাকার ভাগ পৌঁছে যায় ঊর্ধ্বতন কর কমিশনারসহ কর্মকর্তাদের পকেটেও।

বিভিন্ন মহলের অভিযোগের পরিপ্রেক্ষিতে সাংবাদিকরা সরেজমিন যান নওয়াপাড়ার কদমতলা এলাকায়। সেখানে দেখা যায় চার শতক জমির ওপর মোজাম্মেল হক বানিয়েছেন পাঁচতলা ফাউন্ডেশনের একতলা বাড়ি। বাড়িতে রয়েছে একটি চেম্বার। বাড়ির দুই পাশে তাক করে আছে সিসি ক্যামেরা। এ সময় কথা হয় জমি বিক্রেতা আব্দুর রহিমের সাথে। তিনি বলেন, চার বছর আগে জমি বিক্রি করেছিলাম এক লাখ ২০ হাজার টাকা শতক। এখন দাম বেড়ে গেছে।

কদমতলার মুদি দোকানী ইদ্রিস আলী জানান, তার দোকানের পাশেই আরও একটি জমি আছে মোজাম্মেল হকের। শুনেছি তার মায়ের নামে কিনেছেন। পাশেই মোজাম্মেল হকের ভাই গওসুল আযমের বাড়ি। সেখানে রয়েছে আরও একটি চেম্বার। দিন-রাত বিভিন্ন ব্যবসা প্রতিষ্ঠানের লোকজন আসা-যাওয়া করেন। ঈদের কয়েকদিন আগে থেকে একটি প্রাইভেটকার চালিয়ে বেড়াচ্ছেন মোজাম্মেল হক। তবে জানি না নিজের কি-না ।

কদমতলার বেশ কয়েকজন নাম প্রকাশ না করার শর্তে জানান, কদমতলায় নিজ বাড়ির সাথে একটি ও মেইন রাস্তার সাথে আরো একটি অফিস রয়েছে তাদের। মোজাম্মেল ও তার ভাই গওসুল আযমকে দিন-রাত সব সময় চেম্বারে কম্পিউটারে কাজ করতে দেখা যায়। বিভিন্ন এলাকা থেকে লোকজন আসা-যাওয়া করেন। দুই ভাই মিলে ট্যাক্স ফাঁকির নয়-ছয় কাগজপত্র তৈরি করেন। দু’হাত ভরে অবৈধ আয়-রোজগারের অভিযোগের কথাও শোনা যায়।

দাপুটে মোজাম্মেল হক ও তার ভাই গওসুল আযমের বিরুদ্ধে ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন আয়কর আইনজীবীরা। তারা বিরদ্ধে অভিযোগ করে ২০২১ সালের ১৭ নভেম্বর ও ২০২২ সালের ১৯ জুন দুই দফায় খুলনার কর কমিশনারের কাছে চিঠি দেন ট্যাকসেস বার অ্যাসোসিয়েশন যশোরের নেতৃবৃন্দ। অনুলিপি পাঠানো হয়েছিলো নওয়াপাড়ার কার্যালয়েও। কিন্তু আজ অবধি কোন ব্যবস্থা নেওয়া হয়নি। জানতে চাইলে নওয়াপাড়ার অতিরিক্ত সহকারী কর কমিশনার রেবেকা খানম জানান, ব্যবস্থা নেয়ার ক্ষমতা তার নেই। উর্ধ্বতন কর্মকর্তারা তার বিরুদ্ধে ব্যবস্থা না নিলে তার কি করার আছে।

একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে

সর্বশেষ

পবিত্র আশুরা আজ

নিজস্ব প্রতিবেদক : আজ মঙ্গলবার ১০ মহররম। পবিত্র আশুরা। কারবালার শোকাবহ ঘটনাবহুল এ দিনটি মুসলমানদের...

পবিত্র আশুরা

আজ পবিত্র আশুরা। বিভিন্ন দিক দিয়ে এ দিন অত্যন্ত তাৎপর্যপূর্ণ। মানবজাতির আদি পিতা হজরত...

যশোরে স্বজন সংঘের নতুন কমিটি গঠন

স্বেচ্ছাসেবী ও সমাজকল্যাণমূলক সংস্থা স্বজন সংঘের দুই বছরের জন্য নতুন কমিটি গঠন করা হয়েছে।...

বাফওয়া যশোরের উদ্যোগে বঙ্গমাতার জন্মবার্ষিকী উদযাপন

বাংলাদেশ বিমান বাহিনী মহিলা কল্যাণ সমিতি (বাফওয়া) মতিউর আঞ্চলিক শাখা যশোরের উদ্যোগে সোমবার বঙ্গমাতা...

স্বাধীনতা অর্জনে বঙ্গমাতা ছিলেন সহায়ক : প্রধানমন্ত্রী

ঢাকা অফিস : প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেছেন, ঐতিহাসিক ৬ দফা, আগরতলা ষড়যন্ত্র মামলা চলাকালীন প্যারোলে...

ডলার সঙ্কট : ছয় ব্যাংকের ট্রেজারি প্রধানকে অপসারণে চিঠি

ঢাকা অফিস : প্রয়োজনের চেয়ে বেশি ডলার সংরক্ষণ করে দর বৃদ্ধির ‘প্রমাণ পাওয়ায়’ ছয় ব্যাংকের...