নির্বাচনী সহিংসতায় উত্তাল শার্শা

নির্বাচনী সহিংসতায় উত্তাল শার্শা

আহত ২ জনের মৃত্যু
সড়ক অবরোধ
নির্বাচনী অফিস ভাংচুর

বাগআঁচড়া প্রতিনিধি
শার্শার বাগআঁচড়ায় নির্বাচনী সহিংসতায় আহত যুবলীগ নেতা মোস্তাফিজুর রহমান মোস্তাক ধাবক মারা গেছেন। শনিবার ভোরে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে তার মৃত্যু হয়। তার বাড়ি উপজেলার সাতমাইল গ্রামে।

এ নিয়ে ওই উপজেলায় দুজন মারা গেলেন। এঘটনায় শনিবার সকালে স্থানীয় আওয়ামী লীগ নেতাকর্মীসহ সর্বস্তরের জনসাধারণ যশোর-সাতক্ষীরা মহাসড়কের বাগআঁচড়া বাজারে অবস্থান নিয়ে অবরোধ করে বিক্ষোভ করে। এসময় ৩ ঘন্টা যানবাহন চলাচল বন্ধ হয়ে যায়। সড়কের দুই পাশে দীর্ঘ যানজটের সৃষ্টি হয়। পরে পুলিশ দোষীদের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির আশ্বাস দিলে অবরোধ তুলে নেয়া হয়।

বিদ্রোহী চেয়ারম্যান প্রার্থী আ. খালেক ধাবক জানান, গত ১৬ নভেম্বর রাতে নৌকার চেয়ারম্যান প্রার্থী ইলিয়াস কবির বকুলের সমর্থকরা তাকে ধারালো অস্ত্র দিয়ে আঘাত করে। গুরুতর আহত অবস্থায় তাকে ভর্তি করা হয় ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে।

স্থানীয়রা জানান, শার্শা বাগআচড়া ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে আওয়ামী লীগের বিদ্রোহী প্রার্থী আ. খালেক ধাবকের সমর্থকরা বাগআচড়া সাতমাইল পশুরহাট থেকে নির্বাচনী প্রচারণায় বের হন।

তারা বাগআচড়া বায়তুল মামুন জামে মসজিদের সামনে পৌঁছালে ওই ইউনিয়নের নৌকার চেয়ারম্যান প্রার্থী ইলিয়াস কবির বকুলের সমর্থকরা তাদের ওপর হামলা চালায়। হামলায় বিদ্রোহী প্রার্থী আব্দুল খালেকের সমর্থক আওয়ামী লীগ নেতা আব্দুল খালেক খতিব ধাবক (৬৫), তার বড় ছেলে যুবলীগ নেতা মোস্তাফিজুর রহমান মোস্তাক (৪২) ও ছোট ছেলে আবু সাঈদ (৩৪) গুরুতর আহত হন। তাদেরকে যশোর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। মোস্তাফিজুর রহমান মোস্তাকের অবস্থার অবনতি হলে উন্নত চিকিৎসার জন্য ঢাকায় নিয়ে যাওয়া হয়। চিকিৎসাধীন অবস্থায় শনিবার ভোরে তিনি মারা যান। তার পিতার অবস্থাও আশংকাজনক বলে চিকিৎসকরা জানিয়েছেন। আওয়ামী লীগের বিদ্রোহী আনারস প্রতীকের প্রার্থী আব্দুল খালেকের সমর্থক।

এদিকে মোস্তাক ধাবকের মৃত্যুর সংবাদ ছড়িয়ে পড়লে শনিবার সকালেই বিদ্রোহী চেয়ারম্যান প্রার্থী আ. খালেকের সমর্থকরা বাগআচড়া বাজারে জড়ো হয়। তারা সড়কে টায়ার জ্বালিয়ে অবরোধ করে যান চলাচাল বন্ধ করে দেয়। এসময় নৌকার অফিস ভাঙচুর করে বিক্ষোভ করে। খবর পেয়ে পুলিশ পরিস্থিতি শান্ত করতে টহল ব্যবস্থা জোরদার করে।

শার্শা থানার ওসি বদরুল আলম জানান, নির্বাচনী সহিংসতায় আহত মোস্তাক ধাবক ভোরে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা গেছেন ঢাকায়। এ ঘটনায় বাগআচড়া এলাকায় উত্তেজনা বিরাজ করছে। অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে সেখানে।

এর আগে গত ২৩ অক্টোবর গোগা ইউনিয়নে গোগা বাজারে নির্বাচনী সহিংসতায় আহত আলী হোসেন ১২ নভেম্বর বাড়িতে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা যান। নাভারণ সার্কেলের সহকারী পুলিশ সুপার জুয়েল ইমরান জানান, পরিস্থিতি বর্তমানে স্বাভাবিক আছে। ২৮ তারিখ জনগণ যাতে নির্বিঘ্নে ভোট কেন্দ্রে গিয়ে তাদের পছন্দের প্রার্থীকে ভোট দিতে পারে সেই ব্যবস্থা করা হবে। ইউনিয়নের বিভিন্ন এলাকায় চরম উত্তেজনা বিরাজ করছে। পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে রাখতে অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে।

একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে