Sunday, May 22, 2022

শৈলকুপায় নির্বাচনী সহিংসতা ভাঙচুর লুটপাটে মেতেছে দু’প্রার্থীর কর্মী-সমর্থকরা

ঝিনাইদহ প্রতিনিধি
সামাজিক ও রাজনৈতিক প্রভাব খাটিয়ে শেষ পর্যন্ত সহিংসতার পথ বেছে নিয়েছে শৈলকুপার সারুটিয়া ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের দুই নেতা। ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক মাহমুদুল হাসান মামুন দলীয় মনোনয়ন পেয়েছেন। মনোনয়ন চেয়ে না পেয়ে বিদ্রোহী প্রার্থী হয়েছেন ছাত্রীলগের সাবেক সাধারণ সম্পাদক জুলফিকার কায়সার টিপু। এখন তাদের কেউই ছাড় দিতে নারাজ।

উভয় প্রার্থীর কর্মী-সমর্থকরা হামলা, পাল্টা হামলার পাশাপাশি বাড়িঘর ভাঙচুর, লুটপাট ও অগ্নিসংযোগের ঘটনা ঘটাচ্ছে। এরফলে ইউনিয়নবাসী এখন চরম আতংকে দিন কাটাচ্ছেন। ক্ষমতাসীন দলের প্রভাবশালী এই দুই প্রার্থীর কর্মী-সমর্থকদের সংঘর্ষ ঠেকাতে রীতিমত হিমশিম খাচ্ছে পুলিশসহ আইন-শৃঙ্খলা বাহিনী। ইতিমধ্যে ইউনিয়নের বিভিন্ন গ্রাম থেকে ৫০ জনকে আটক করেছে পুলিশ।

শুক্রবার রাতে উপজেলার সারুটিয়া ইউনিয়নের কাতলাগাড়ী বাজারে দ্বিতীয় দফায় সংঘর্ষের জড়িয়ে পড়ে আওয়ামী লীগের দুই প্রার্থীর অনুসারীরা। টিপুর সমর্থকরা শাহবাড়িয়া গ্রাম থেকে মৃত ব্যক্তির জানাজা শেষে মোটরসাইকেল যোগে কাতলাগাড়ী বাজারে পৌঁছালে তাদের ওপর হামলা করে প্রতিপক্ষ প্রার্থীর কর্মী-সমর্থকরা।

এ সময় ৭টি মোটরসাইকেলে অগ্নিসংযোগ ও ২০টি বাড়িতে ভাঙচুর এবং লুটপাটের ঘটনা ঘটে। হামলায় আহত হন অন্তত ১৫ জন। এ ঘটনায় জড়িত সন্দেহে ও পরিস্থিতি স্বাভাবিক করতে পুলিশ শনিবার সকালে সারুটিয়া ইউনিয়নের বিভিন্ন গ্রামে অভিযান চালিয়ে ৫০ জনকে আটক করে পুলিশ। সংঘর্ষের পর আটক এড়াতে ইউনিয়নের অনেক গ্রাম পুরুষশূন্য হয়ে পড়েছে।

বিদ্রোহী চেয়ারম্যান প্রার্থী টিপুর অভিযোগ, আওয়ামী লীগ মনোনীত চেয়ারম্যান প্রার্থী মাহমুদুল হাসান মামুনের কর্মী সমর্থকরা তাদের ওপর হামলা চালিয়েছে। তার ৭ সমর্থকের মোটরসাইকেল পুড়িয়ে দেয়ার পাশাপাশি ১৫ জনকে মারপিট করে আহত করেছে।

আওয়ামী লীগ প্রার্থীর অনুসারীদের অভিযোগ একই রাতে ইউনিয়নের কৃষ্ণনগর গ্রামে হামলা, ভাঙচুর ও লুটপাটের করে বিদ্রোহী প্রার্থী টিপুর সমর্থকরা। এ সময় কৃষ্ণনগর গ্রামের গিয়াস উদ্দিন, ফরিদ শেখ, রবিউল ইসলাম, লিটন শেখ, মিন্টু শেখ, খোকন শেখ, নজির শেখ, মিন্টু শেখ, আলমগীর হোসেন, শান্ত শেখ, বিধবা রাবেয়াসহ ২০টি বাড়িতে ভাঙচুর ও লুটপাট চালানো হয়।

ক্ষতিগ্রস্ত রাবেয়া খাতুন অভিযোগ করেন, তারা মা-মেয়ে দুজনই বিধবা। একমাত্র অবলম্বন ছিল একটি সেলাই মেশিন। সেটিও নিয়ে গেছে।

আওয়ামী লীগের চেয়ারম্যান প্রার্থী মাহমুদুল হাসান অভিযোগ করেন, বিদ্রোহী চেয়ারম্যান প্রার্থী টিপুর সমর্থকরা পরিকল্পিত ভাবে নিজেরা নিজেদের মোটরসাইকেলে হামলা ও অগ্নিসংযোগ করে আমার সমর্থকদের দোষ দিচ্ছে। সংঘর্ষের ঘটনাকে কেন্দ্র করে কিত্তিনগর, কৃষ্ণনগর, ভুলন্দিয়া ও বড় মৌকুড়ি গ্রামে বাড়িতে হামলা, ভাংচুর ও লুটপাট করা হয়েছে।

শৈলকুপা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা রফিকুল ইসলাম বলেন, সারুটিয়া ইউনিয়নে দুই চেয়ারম্যান প্রার্থীর সমর্থকদের মধ্যে সংঘর্ষের ঘটনায় এলাকা থেকে ৫০ ব্যক্তিকে আটক করা হয়েছে। বর্তমানে এলাকাটি পুলিশের নিয়ন্ত্রণে রয়েছে।

একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে

সর্বশেষ

যশোরে সন্ত্রাসীদের বর্বর নির্যাতনে যুবকের মৃত্যু

নিজস্ব প্রতিবেদক: যশোরে সন্ত্রাসীদের বর্বর নির্যাতনে এক যুবকের মৃত্যুর অভিযোগ উঠেছে। আজ রোববার (২২...

যশোরে অর্ধগলিত ঝুলন্ত লাশ উদ্ধার

নিজস্ব প্রতিবেদক: রাসেল হোসেন (২৪) নামে এক যুবকের অর্ধগলিত ঝুলন্ত লাশ উদ্ধার করেছে পুলিশ। আজ...

কোন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানই এভাবে চলতে পারে না

যশোরের মণিরামপুর উপজেলার জোকা কোমলপুর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক নবিরুজ্জামান বিদ্যালয়ে যান না...

ভোরের ঝড়ে লণ্ডভণ্ড যশোরাঞ্চল

উপড়ে পড়েছে গাছপালা ভেঙে গেছে বাড়িঘর-বিদ্যুতের খুঁটি অশনির আঘাত না কাটতেই কৃষকের ঘরে কালো থাবা শাহারুল...

যশোর প্রিমিয়ার ডিভিশন ক্রিকেট আরএন রোডের জয় ছিনিয়ে নিল হাসানুর

নিজস্ব প্রতিবেদক: শনিবার সকালে যশোর অঞ্চলের উপর দিয়ে বয়ে যাওয়া কালবৈশাখী দমকা হাওয়া শামস্-উল-হুদা...

সুজলপুরে দুই বন্ধুকে মারপিটের অভিযোগ

নিজস্ব প্রতিবেদক: পূর্বশত্রুতার জের ধরে যশোর শহরতলীর সুজলপুরে সাকিব (২৫) ও নাহিদ (২৩) নামে...