Thursday, June 30, 2022

নির্বাচনে নজিরবিহীন সহিংসতা

যশোরের শার্শা উপজেলায় ইউনিয়ন পরিষদের নির্বাচনে মারা গেছে চারজন। নির্বাচনে এত ঘোলাটে পরিস্থিতি জেলার অন্য কোন উপজেলায় হয়নি। সহিংসতায় সবচেয়ে বেশি নরসিংদী জেলায় ১১ জন নিহত হয়েছেন। দেশে রাজনৈতিক সহিংসতায় নিহত হয়েছেন অন্তত ১৩০ জন। রোববার আইন ও সালিশ কেন্দ্রের (আসক) প্রকাশ করা এক প্রতিবেদনে এ তথ্য জানানো হয়েছে। নিহতদের মধ্যে ৫৭ জন ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগের নেতা ও সমর্থক, চারজন বিএনপির নেতাকর্মী ও একজন সাংবাদিক। নিহতদের মধ্যে ৫০ জনের কোনো রাজনৈতিক পরিচয় নেই। আওয়ামী লীগ কর্মীদের ১২ জন নিজেদের দলের মধ্যে লাগা সংঘর্ষে মারা যান। তাদের আটজন আওয়ামী লীগের দুই গ্রুপের, একজন আওয়ামী লীগ-ছাত্রলীগের এবং তিনজন যুবলীগের দুই গ্রুপের সংঘর্ষে প্রাণ হারিয়েছেন। চলতি বছরের জুনে শুরু হয় ইউনিয়ন পরিষদ। এ নির্বাচনকে কেন্দ্র করে সংঘর্ষে ৪০ জন নিহত হয়েছেন বলে জানানো হয়েছে প্রতিবেদনে।

প্রকাশিত প্রতিবেদন পর্যালোচনা করলে দেখা যায় সহিংসতায় আওয়ামী লীগের নেতা-কর্মীরাই জড়িয়েছে। দলটি বর্তমানে ক্ষমতায় অধিষ্ঠিত। চলমান ইউপি নির্বাচনও হচ্ছে একমুখী। অর্থাৎ বিরোধী কোন দল এ নির্বাচনে বলতে গেলে অংশই নিচ্ছে না। এ কথা স্পষ্ট যে সহিংসতা হচ্ছে সরকারি দলের ভেতরই। নির্বাচনকে কেন্দ্র করে যে প্রাণগুলো ঝরে গেল তাদের আর ফিরে পাওয়া যাবে না। তারাই তো জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের স্বপ্নের সোনার বাংলা গড়ার সৈনিক। দেশপ্রেমে উদ্বুদ্ধ হয়ে তারা আওয়ামী লীগ করতে এসেছিলেন। কিন্তু শেষ পর্যন্ত সতীর্থদের হাতে প্রাণ দিয়ে আপনজনদের শোক সাগরে ভাসিয়ে পরপারে বিদায় নিলেন। যারা সামান্য স্বার্থের কারণে এভাবে একই দলের একই মতের পথের অনুসারীদের হত্যা করতে পারে তারা কোন মতেই জাতির পিতার দল করতে আসেনি। আসেনি জননেত্রী শেখ হাসিনার হাতকে শক্তিশালী করতে। তারা এসেছে দলকে ব্যবহার করে আখের গোছাতে।

নির্বাচনে সহিসতা নিয়ে দায়িত্বশীলদের অনেকে অনেক কথা বলছেন। কিন্তু তাতে মৃত্যু ঠেকানো যায়নি। সহিংসতা এখনো চলছে। এসব ঘটনায় এক শ্রেণির নেতারা নিজেদের মুখ রক্ষা করার জন্য দোষ চাপাচ্ছেন বিরোধী দলের ঘাড়ে। তারা বলছেন, বিরোধীরা ফায়দা লোটার জন্য আওয়ামী লীগের ভেতর ঢুকে এই নাশকতা করছে। নেতাদের কথা হয়তো মিথ্যা নয়। কিন্তু প্রশ্ন আসে বিরোধীরা কি অন্য কোন গ্রহ থেকে এসেছে? আওয়ামী লীগের যাদের মধ্যে ওই অপশক্তি ঢুকেছে তাদের বিরুদ্ধে আগে ব্যবস্থা নিতে হবে। কিন্তু সে ক্ষেত্রে কি কোন ব্যবস্থা নেয়া হয়েছে? সমস্যা সৃষ্টি হয়েছে বা হচ্ছে, এ সময় কথাবাজী না করে বিচক্ষণতা ও দূরদর্শীতা দিয়ে এগোতে হবে। নতুবা অপশক্তি কুরে কুরে শেষ করবে তাতে কোন সন্দেহ নেই।

একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে

সর্বশেষ

ষড়যন্ত্রের কারণে পদ্মা সেতু নির্মাণে দুই বছর দেরি হয়েছে : প্রধানমন্ত্রী

কল্যাণ ডেস্ক: দেশি-বিদেশি নানা ষড়যন্ত্রের কারণে পদ্মা সেতু নির্মাণে দুই বছর দেরি হয়েছে বলে...

কালীগঞ্জের ব্যবসায়ী মফিজুর খুন পঙ্গু হাসপাতালের আব্দুর রউফের বিরুদ্ধে এবার আদালতে মামলা

থানায় দায়ের করা মামলার তদন্ত প্রতিবেদনের কপি আদালতে জমা দেয়ার আদেশ লাবুয়াল হক রিপন: ঝিনাইদহের...

যশোর পৌরসভার ৭ নম্বর ওয়ার্ড : বিএনপির কমিটি গঠন নিয়ে নয়-ছয়ের অভিযোগ

নিজস্ব প্রতিবেদক: যশোর পৌসভার ৭ নম্বর ওয়ার্ড বিএনপির কমিটি গঠন নিয়ে নয়-ছয়ের অভিযোগ উঠেছে।...

নতুনরূপে ধরা দিচ্ছেন ক্যাটরিনা

বিনোদন ডেস্ক: গত বছরের ৯ ডিসেম্বর ভিকি কৌশলকে বিয়ে করে জীবনের দ্বিতীয় ইনিংস শুরু...

‘প্লিজ আমার অপরাধ ক্ষমা করে দিন’

বিনোদন ডেস্ক: অভিনয়ে নিয়মিত সাদিয়া জাহান প্রভা। নিয়মিত সাামজিক যোগাযোগ মাধ্যম ইনস্টগ্রামেও। প্রায় ইনস্টগ্রাম...

গ্রামীণফোনের সিম বিক্রি নিষিদ্ধ

কল্যাণ ডেস্ক : মানসম্মত সেবা (ভয়েস কল ও ইন্টারনেট) দিতে না পারায় দেশের শীর্ষ মোবাইল...