Tuesday, August 16, 2022

প্লাস্টিক-পলিথিনের ব্যবহার থেকে বেরিয়ে আসতে হবে

প্লস্টিক-পলিথিন বিরোধী কথা আমরা মুখে যাই বলি না কেন তা আমাদের প্রাত্যহিক জীবনের অনিবার্য অংশ হয়ে উঠেছে । প্রতিনিয়ত যে পাত্রে চা পান করছি সেটিও প্লাস্টিকের তৈরি। আর তার পরিণতি ভোগ করছি আমরাই। ক্যান্সারসহ নানা রোগব্যাধি বাসা বাঁধছে শরীরে। চিকিৎসায় ব্যয় হচ্ছে কাঁড়ি কাঁড়ি টাকা। অবশেষে টেনে নিয়ে যাচ্ছে অকাল মৃত্যু। অত্যাধিক পলিথিন ব্যবহার নিয়ে চিকিৎসক ও বিশেষজ্ঞরা এমন কথাই বলছেন।

সাধারণ মানুষ এর ক্ষতিকর দিক সম্পর্কে একেবারেই অজ্ঞ। ফলে পলিথিনের ব্যবহার মাত্রা ছাড়িয়ে গেছে বহুদিন আগেই। বেড়েছে রোগ ব্যাধি, অকাল মৃত্যু। বাংলাদেশ পরিবেশ আন্দোলন (বাপা) বলছে, শুধু ঢাকায় প্রতিদিন প্রায় দুই কোটি পলিথিন ব্যাগ জমা হচ্ছে। আর বিশ্বে প্রতিবছর পাঁচ লাখ কোটি পলিথিন ব্যাগ ব্যবহার করা হচ্ছে। পলিথিনের বহুবিধ ব্যবহারের কারণে মানবদেহে বাসা বাঁধছে ক্যান্সার। বিশেষজ্ঞরা বলছেন, পলিথিন বা প্লাস্টিকের ব্যবহারের ফলের হরমন বাধাগ্রস্ত হয়। এল ফলে দেখা দিতে পারে বন্ধ্যাত্ব, নষ্ট হতে পারে গর্ভবতী মায়ের ভ্রণ, বিকল হতে পারে লিভার ও কিডনি।

গবেষকরা বলছেন, প্লাস্টিক বা পলিথিনে গরম পানি বা গরম খাবার ঢালার সঙ্গে সঙ্গে রাসায়নিক বিক্রিয়ায় বিসফেলন-এ তৈরি হয়। বিসফেলনে থাইরয়েড হরমনকে বাধা দেয়। বাধাপ্রাপ্ত হয় মস্তিষ্কের গঠনও। গর্ভবতী নারীদের রক্ত থেকে বিসফেনল-এ যায় ভ্রুণে। ফলে নষ্ট হতে পারে ভ্রুণ, দেখা দিতে পারে বন্ধ্যাত্ব। শিশুও হতে পারে বিকলাঙ্গ। তাছাড়া ক্যান্সার আক্রান্ত হওয়ার ১০ কারণের মধ্যে অন্যতম হলো প্লাস্টিকের ব্যবহার। এছাড়া পলিথিনের বহুবিধ ব্যবহারে বিকল হতে পারে লিভার ও কিডনি।

পলিথিনে শুধু গরম খাবার বা গরম পানির ব্যবহারেই ক্ষতি হয় না, স্বাভাবিক তাপমাত্রার পানি বা হিমায়িত (ফ্রিজিং) পানির ব্যবহারেও ক্ষতি হয় সমানভাবে। পলিথিনে মুড়িয়ে ফ্রিজে রেখে সেই খাবার গ্রহণ করলেও সমান ক্ষতি হয়।

কোপেনহেগেনভিত্তিক সংস্থা ‘দ্য ওয়ার্ল্ড কাউন্টস’-এর তথ্য মতে, প্রতিবছর বিশ্বে পাঁচ লাখ কোটি পলিথিন ব্যাগ ব্যবহার হচ্ছে। এর মাত্র এক শতাংশ পুনর্ব্যবহারের জন্য রিসাইক্লিং করা হয়। আর এসব পলিথিনের ১০ ভাগ ফেলা হয় সমুদ্রে। পলিথিনের এসব ব্যাগ একশ’ বছরেও পচবে না বা মাটির সঙ্গে মিশবে না। এটা মাটির গুণাগুণকে নষ্ট করে দেয়।

প্লাস্টিক-পলিথিন জাতির বিষ ফোড়ায় পরিণত হয়েছে। ক্ষতিকর জেনেও জীবনের প্রয়োজনে এটাকে পরিহার করা যাচ্ছে না। বিজ্ঞানীদের ভাষ্য অনুযায়ী প্লাস্টিকজাত পাত্রে রাখা খাদ্য দীর্ঘ মেয়াদী খেলে ক্যান্সারের মতো জীবননাশী ব্যাধি হবার প্রবল আশংকা রয়েছে। ব্যবহারের পর এর বর্জ্য আরো ভয়াবহ। পচে না বলে মাটি একে গ্রহণ করে না। তাই সে নির্বিঘ্নে পরিবেশ দূষিত করে লোকালয়কে বসবাসের অযোগ্য করে তুলছে। হুমকি হয়ে দাঁড়িয়েছে এই বর্জ্য। ১৯৫০ সাল থেকে ২০১৮ সাল পর্যন্ত সারা বিশ্বে প্রায় ৬ দশমিক ৩ বিলিয়ন টন প্লাস্টিক-পলিথিন উৎপাদন হয়েছে। যার মাত্র ৯ শতাংশ পুনঃপ্রক্রিয়াজাতকরণ সম্ভব। এর বাইরে সবটাই বর্জ্য হিসেবে পড়ে থাকে। এতে প্রায় ৭০০ প্রজাতির সামুদ্রিক প্রাণি হুমকির মুখে পড়েছে। কিন্তু তার পরও এ থেকে মুখ ফেরানো যাচ্ছ না। এখন নলকূপ স্থাপন করতে গেলে স্টিলের পাইপ মেলে না। মিললেও সবার কেনার সাধ্য নেই। সেখানে প্লাস্টিকের পাইপের একচ্ছত্র আধিপত্য। ওভারহেড ট্যাংক, সেটিও প্লাস্টিকের। এমনিভাবে জগ, ওষুধের বোতল, টিফিনবক্স, প্লেট, পিরিস সব ক্ষেত্রে প্লাস্টিকের অবাধ রাজত্ব। আর শপিং ব্যাগের করমুক্ত রাজত্বে সবাই যেন অসহায়ত্বের শিকার। আইন করা হয়েছে, কিন্তু ঠেকানো যাচ্ছে না। সম্ভাবত জীবনের সাথে অঙ্গাঙ্গিভাবে জড়িয়ে পড়ায় প্লাস্টিক-পলিথিন উচ্ছেদ করা যাচ্ছে না।

একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে

সর্বশেষ

যশোরে মোটরসাইকেল থেকে ছিটকে পড়ে প্রাণ গেলো তরুণের

নিজস্ব প্রতিবেদক : যশোরের খাজুরায় চলন্ত মোটরসাইকেল থেকে ছিটকে পড়ে আরিফ হোসেন (১৮) নামে এক...

বাসচালক ঘুমিয়ে পড়ায় নিহত ২০ যাত্রী 

কল্যাণ ডেস্ক: পাকিস্তানে একটি যাত্রীবাহী বাস ও তেলের ট্যাঙ্কারে সংঘর্ষে অন্তত ২০ জন নিহত...

ছাত্রাবাস থেকে যশোর এমএম কলেজ ছাত্রের লাশ উদ্ধার

নিজস্ব প্রতিবেদক : যশোরে শুদিপ্ত বিশ্বাস (২৬) নামে মাস্টার্স শেষ বর্ষের এক কলেজ ছাত্রের লাশ...

লঞ্চভাড়া বাড়ল ৩০ শতাংশ

কল্যাণ ডেস্ক : জ্বালানি তেলের দাম পুনর্নির্ধারণের পরিপ্রেক্ষিতে নৌযানে যাত্রী ভাড়া ৩০ শতাংশ সমন্বয়...

ফুটবলে ভারতকে নিষিদ্ধ করল ফিফা

কল্যাণ ডেস্ক : সব ধরনের ফুটবলে ভারতকে নিষিদ্ধ করেছে খেলাটির সর্বোচ্চ নিয়ন্ত্রক সংস্থা ফিফা।...

কিশোর গ্যাং নিয়ন্ত্রণে জেলা প্রশাসনের উপলব্ধি

যশোরসহ সারা দেশে বেপরোয়া মোটরসাইকেল চালানোর কারণে দুর্ঘটনার ঘটনা বেড়েছে। এতে অনেক মানুষের প্রাণহানি...