বুধবার, নভেম্বর ৩০, ২০২২

ফায়ার সার্ভিস কর্মকর্তার প্রভিডেন্ট ফান্ডের ৮ লাখ টাকা উধাও!

নিজস্ব প্রতিবেদক :

চাকরিজীবন শেষে ২০২০ সালের ১ আগস্ট অবসরে যান নড়াইল ফায়ার সার্ভিস ও সিভিল ডিফেন্স অফিসের সাবেক স্টেশন অফিসার এস এম তবিবর রহমান। তবে তিন বছরেও পাননি প্রভিডেন্ট ফান্ডে জমা করা আট লাখ টাকা।

টাকাগুলো নড়াইলের তৎকালীন উপ-সহকারী পরিচালক মো. শামিমুল ইসলামসহ সংশ্লিষ্টরা গায়েব করে দিয়েছেন বলে অভিযোগ ভুক্তভোগীর। চাকরিজীবনের সঞ্চিত ওই টাকা পেতে ফায়ার সার্ভিস ও সিভিল ডিফেন্সের মহাপরিচালকের কাছে লিখিত অভিযোগ করেছেন তবিবর রহমান। মঙ্গলবার তিনি এ অভিযোগ করেন। তবিবর রহমান নড়াইলের কালিয়া উপজেলার সালামাবাদ ইউনিয়নের বাকা গ্রামের মৃত মো. ইমান উদ্দিন শিকদারের ছেলে।

অভিযোগ সূত্রে জানা যায়, চাকরির মেয়াদ শেষে ২০২০ সালের ১ আগস্ট অবসর নেন তবিবর রহমান। পরে প্রভিডেন্ট ফান্ডে জমা সাত লাখ ৯৫ হাজার টাকা পেতে কর্তৃপক্ষের কাছে আবেদন করেন। নড়াইল জেলা হিসাবরক্ষণ কর্মকর্তা তার প্রভিডেন্ট ফান্ডের টাকার হিসাব চূড়ান্ত করেন। পরে ২০২০ সালের ৯ মার্চ ওই টাকা তুলতে প্রত্যয়নপত্র দেন। প্রত্যয়নপত্র গ্রহণ করেন উপ-সহকারী পরিচালক শামিমুল ইসলাম। পরে ওই বছরের ১১ মার্চ শামিমুল ইসলাম সোনালী ব্যাংক নড়াইল শাখায় তার নিজের হিসাব নম্বরে ওই টাকা জমা করেন।

পরে শামিমুল ইসলাম ঝিনাইদহ জেলায় বদলি হয়ে যান। তবিবর রহমানের অভিযোগ, ওই টাকা গায়েব করে দিয়েছেন শামিমুল ইসলাম। ওই টাকা পেতে তিন বছর ধরে নড়াইল ফায়ার স্টেশনে ধরনা দিতে দিতে নিজেই এখন অসুস্থ হয়ে পড়েছেন।

তবিবর রহমান বলেন, ‘প্রভিডেন্ট ফান্ডের টাকা পেতে তৎকালীন উপ-সহকারী পরিচালক শামিমুল ইসলামসহ সংশ্লিষ্টরা দিনের পরদিন আমাকে ঘুরাতে থাকেন। এরপর শামিমুল ইসলাম ঝিনাইদহে বদলি হয়ে যান। তারপর আমি নড়াইল অফিস থেকে গত তিন বছরেও কোনো সুরাহা পাইনি। বর্তমানে আমি শ্বাসকষ্টসহ নানা জটিল রোগে আক্রান্ত হয়ে পড়েছি কিন্তু জীবনের সঞ্চিত টাকা পাচ্ছি না।’

নড়াইল ফায়ার সার্ভিসের তৎকালীন উপ-সহকারী পরিচালক শামিমুল ইসলাম বলেন, ‘তবিবর রহমানের প্রভিডেন্ট ফান্ডের টাকার বিষয়ে আমি কিছু জানি না। তবে অতিসম্প্রতি ঘটনাটি জানতে পেরে খোঁজখবর নিয়ে জেনেছি ওই টাকা নড়াইল অফিসের অফিস সহায়ক নাহিদ হোসেন তার সই জালিয়াতি করে তুলে নিয়েছেন। তবে এ ঘটনায় নাহিদের বিরুদ্ধে কোনো ব্যবস্থা নেওয়া হয়নি।’

অফিস সহায়ক নাহিদ হোসেন বলেন, ‘তবিবর রহমানের পাওনা টাকার বিষয়ে একাধিকবার অফিসে বসা হয়েছে। তবে আমি কোনো জালিয়াতি করিনি।’

নড়াইল ফায়ার সার্ভিস ও সিভিল ডিফেন্সের উপ-সহকারী পরিচালক মো. মাহাবুবুর রহমান বলেন, ‘তবিবর রহমানের প্রভিডেন্ট ফান্ডের টাকা না পাওয়ার বিষয়ে মহাপরিচালকের কাছে অভিযোগ করার বিষয়টি জেনেছি। মহাপরিচালকের নির্দেশনা অনুযায়ী ব্যবস্থা নেওয়া হবে।’

একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে

সর্বশেষ

অভয়নগরে দুই মাদক বিক্রেতা আটক

অভয়নগর প্রতিনিধি: অভয়নগরে এপিবিএন পুলিশের অভিযানে ৫শ’ গ্রাম গাঁজা ও এক বোতল ফেনসিডিল ও...

জীবননগরের ২৫ দিনেও সন্ধান মেলেনি মানসিক প্রতিবন্ধী জসিমের

জীবননগর প্রতিনিধি: চুয়াডাঙ্গার জীবননগর উপজেলার প্রতাপপুর গ্রামের মাননিক প্রতিবন্ধি জসিম উদ্দিন (৩৭) দীর্ঘ ২৬...

দ্রুত এগোচ্ছে যশোর-ঢাকা রেলপথ নির্মাণ

নিজস্ব প্রতিবেদক: কোটি কোটি বাঙালির স্বপ্ন বাস্তবে ধরা দিয়ে গত ২৫ জুন ঘটা করে...

রাতভর অভিযানে ডাকাত চক্রের ১০ সদস্য গ্রেফতার

নিজস্ব প্রতিবেদক :  রাতভর অভিযান চালিয়ে যশোরের পুলিশ ডাকাত চক্রের ১০ সদস্যকে গ্রেফতার করেছে। এসময়...

তাঁর প্রতিদিনের আয় বাংলাদেশি মুদ্রায় প্রায় ৩৭ লাখ টাকা

বিনোদন ডেস্ক: এই সময়ের আলোচিত সুপারমডেল কারা ডেলেভিন। মডেলিংয়ের সঙ্গে অভিনয়টাও ভালো পারেন। আলোচিত...

বিশ্বকাপের স্বপ্ন রক্ষায় আজ মাঠে নামছে আর্জেন্টিনা, হারলে বাদ

ক্রীড়া ডেস্ক : কাতার বিশ্ববিদ্যালয়ের ট্রেনিং গ্রাউন্ড থ্রি-তে সোমবার সন্ধ্যায় অনুশীলন শুরু হওয়ার ঠিক আগে...