Sunday, May 29, 2022

ফের তোড়জোড় যশোর জেলা যুবলীগের পদপ্রত্যাশীদের

জুলাই মাসে সম্মেলন : সুব্রত পাল
চলছে অনৈতিক পন্থায় পদ বাগিয়ে নেয়ার অপতৎপরতাও

সুনীল ঘোষ: যশোর জেলা যুবলীগের সম্মেলন যেন দরজায় কড়া নাড়ছে। পদপ্রত্যাশীরা ফের তোগজোড় শুরু করেছেন। গত ২৩ ডিসেম্বর সম্মেলনের দিনক্ষণ নির্ধারিত ছিল। কিন্তু করোনা পরিস্থিতির কারণে বাধ্য হয়ে সেই সম্মেলন পেছানো হয়। এরপর চলে আসে পবিত্র মাহে রমজান। যেকারণে জুনের শেষ সপ্তাহে অথবা জুলাইয়ের মাঝামাঝি সময়ে যশোর জেলা যুবলীগের সম্মেলনের সম্ভাব্য দিনক্ষণ ঠিক করে রেখেছে কেন্দ্র। কেন্দ্রীয় যুবলীগের একাধিক সূত্র থেকে আভাস পাওয়া গেছে।

এদিকে পদপ্রত্যাশীদের অতীত ও বর্তমানের কর্মকাণ্ড এবং সাংগঠনিক দক্ষতা নিয়ে চুলচেরা বিশ্লেষণ করা হচ্ছে। ছাত্রলীগ ও সহযোগী সংগঠনে কার কতটুকু ভূমিকা রয়েছে তাও গুরুত্ব পেয়েছে তালিকা প্রণয়নে। আবার যশোরে চাউর হয়েছে- শেষ মুহূর্তেও শীর্ষ পদপ্রত্যাশীদের কেউ কেউ তদ্বিরে ঢাকায় অবস্থান করছেন। তারা প্রভাবশালী নেতৃবৃন্দের কাছে ধর্ণা দিচ্ছেন। অনৈতিক পন্থায় পদ বাগিয়ে নেয়ার অপতৎপরতাও কেউ কেউ চালাচ্ছেন।

কেন্দ্রের একাধিক সূত্র জানিয়েছে, টানা দেড় দশকের বেশি সময় যশোর জেলা যুবলীগের সম্মেলন হয়নি। মেয়াদোত্তীর্ণ কমিটি দিয়ে খুঁড়িয়ে খুঁড়িয়ে চলছে যুবলীগের কার্যক্রম। জেলা ছাত্রলীগের অনেকেই ছাত্রত্ব হারিয়ে যুবলীগের রাজনীতিতে সম্পৃক্ত হয়েছেন। তাদের কারণে যশোরে রাজনীতির মাঠ কিছুটা হলেও সরব রয়েছে। কেন্দ্রীয় কমিটির একাধিক বৈঠকে এসবকিছু গুরুত্ব পেয়েছে। গত ২৩ ডিসেম্বর সম্মেলনের দিনক্ষণ নির্ধারিত ছিল কিন্তু করোনা পরিস্থিতির কারণে বাধ্য হয়ে সেই সম্মেলন পেছানো হয়। এরপর চলে আসে পবিত্র মাহে রমজান। যেকারণে জুনের শেষ সপ্তাহে অথবা জুলাইয়ের মাঝামাঝি সময়ে যশোর জেলা যুবলীগের সম্মেলনের সম্ভাব্য দিনক্ষণ ঠিক করে রেখেছে কেন্দ্র। এবার রাজনীতিতে দক্ষ, বিচক্ষণ ও ক্লিন ইমেজের এক ঝাঁক নতুন মুখ যশোর জেলা যুবলীগের নেতৃত্বে আসছেন-দৈনিক কল্যাণকে এমনি ইঙ্গিত দিয়েছেন সূত্রগুলো।

নাম প্রকাশ না করার শর্তে একটি সূত্র জানায়, এখন পর্যন্ত শর্ট তালিকায় যশোর জেলা যুবলীগের সম্ভাব্য সভাপতি হিসেবে সাবেক পৌর মেয়র ও যুবলীগের মেয়াদোত্তীর্ণ কমিটির সাধারণ সম্পাদক জহিরুল ইসলাম চাকলাদার রেন্টু ও সাবেক সাংগঠনিক সম্পাদক মইউদ্দিন মিঠুর নাম রয়েছে। তালিকায় সাধারণ সম্পাদক পদে যশোর জেলা ছাত্রলীগের সাবেক সাধারণ সম্পাদক ও সদর উপজেলা পরিষদের ভাইস চেয়ারম্যান আনোয়ার হোসেন বিপুল ও ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্রলীগের সাবেক সাংগঠনিক সম্পাদক দেবাশীষ রায়ের নাম রাখা হয়েছে। সাংগঠনিক সম্পাদকের তালিকায় যশোর জেলা ছাত্রলীগের সাবেক সাংগঠনিক সম্পাদক শফিকুল ইসলাম জুয়েল ও ও ওয়ার্ড কাউন্সিলর রাজিব উল আলমের নাম রয়েছে।

সূত্রের দাবি-যশোর জেলা আওয়ামী লীগের রাজনীতিতে দৃশ্যমান দুটি গ্রুপ রয়েছে। গ্রুপ রাজনীতির বিষয়টি মাথায় রেখে যুবলীগের কমিটিতে দু’পক্ষের নেতাকর্মী ছোট-বড় পদে স্থান পাবেন। যুবলীগের কমিটি ঘোষণার মধ্যদিয়ে যশোর আওয়ামী লীগের দীর্ঘদিনের বিভক্তির রাজনীতির অবসান ঘটানোর বিষয়টি কেন্দ্রীয় নেতৃবৃন্দ সক্রিয় বিচেনায় রেখেছেন। সূত্রের তথ্যমতে, যুবলীগের সম্ভাব্য কমিটির অন্যান্য পদে ঠাঁই পেতে পারেন-জেলা ছাত্রলীগের সাবেক সভাপতি আরিফুল ইসলাম রিয়াদ, ওয়ার্ড কাউন্সিলর আলমগীর সুমন ওরফে হাজী সুমন ও সদর উপজেলা যুবলীগের যুগ্ম আহবায়ক মাজহারুল ইসলামসহ আরও বেশ কয়েকজন। সূত্র আরও জানায়, জহিরুল ইসলাম চাকলাদার যুবলীগের রাজনীতি ছেড়ে জেলা আওয়ামী লীগের কমিটিতে সম্পৃক্ত হন। যেকারণে তাকে জেলা যুবলীগের সভাপতি করা নিয়ে দ্বিধা-দ্বন্দ্ব ছিল। কিন্তু বিভেদের রাজনীতির অবসান ঘটাতে কিছুটা সমঝোতা করা হয়েছে।

কেন্দ্রের অপর একটি সূত্রের দেয়া তথ্যমতে, সংক্ষিপ্ত তালিকায় সভাপতি হিসেবে জহিরুল ইসলাম চাকলাদার রেন্টু ও সাধারণ সম্পাদক পদে ছাত্রলীগের সাবেক সাধারণ সম্পাদক আনোয়ার হোসেন বিপুলের নাম চূড়ান্ত হয়ে আছে। বাকি পদগুলোতে একাধিক নেতার নাম রাখা হয়েছে। সম্মেলনের আগে নাম চূড়ান্ত করা হবে। যুবলীগের চেয়ারম্যান শেখ ফজলে শামস করোনায় আক্রান্ত হওয়ার কারণে বাকি গুলোতে একক নেতার নাম চূড়ান্ত করা সম্ভব হয়নি। সূত্রটির দাবি জুনে নয়, জুলাই মাসেই যশোর জেলা যুবলীগের সম্মেলন সম্পন্ন হবে।

এদিকে মুঠোফোনে যোগাযোগ করা হলে জহিরুল ইসলাম চাকলাদার রেন্টু বলেন, আমি আশাবাদী যুবলীগে আমাকে মূল্যায়ন করা হবে। কেন্দ্রীয় নেতৃবৃন্দের ওপর পূর্ণ আস্থা ও বিশ্বাস রয়েছে। মেয়াদোত্তীর্ণ কমিটির সাংগঠনিক সম্পাদক মইনুদ্দিন বলেন, পদের লোভে রাজনীতি করি না। তবে কেন্দ্রীয় যুবলীগের নেতৃবৃন্দ দলের নিবেদিতদেরই মূল্যায়ন করবেন-এ বিশ^াস রয়েছে। তিনি বলেন, শোনা যাচ্ছে কেউ কেউ টাকা নিয়ে দৌঁড়-ঝাপ করছেন কিন্তু এবার টাকায় কাজ হবে না।

আনোয়ার হোসেন বিপুলকে ফোনে পাওয়া যায়নি। গত দু’দিন ধরে তার ফোন বন্ধ পাওয়া গেছে। শফিকুল ইসলাম জুয়েল বলেন, ছাত্রলীগের রাজনীতি করেছি। দীর্ঘদিন যুবলীগের কমিটি নেই কিন্তু রাজনৈতিক কর্মকা- থেকে সরে দাঁড়ায়নি। সামনের কাতারে থেকে দলীয় কর্মসূচি পালন করে যাচ্ছি। কেন্দ্রীয় নেতারা নিশ্চয় ত্যাগী ও নিবেদিতদেরই মূল্যায়ন করবেন। ওয়ার্ড কাউন্সিলর রাজিব উল আলম বলেন, নিঃস্বার্থভাবে রাজনীতি করি। যুবলীগের কমিটিতে মূল্যায়ন হবে আশা করি।

মুঠোফোনে যোগাযোগ করা হলে কেন্দ্রীয় যুবলীগের যুগ্ম সম্পাদক সুব্রত পাল বলেন, ‘জুলাই মাসেই যশোর জেলা যুবলীগের সম্মেলন সম্পন্ন করার প্রস্তুতি রয়েছে। মন্ত্রী মহোদয়ের সাথে আছি, পরে কথা হবে।’
যশোর জেলা যুবলীগের সর্বশেষ সম্মেলন হয় ২০০৩ সালের ১৯ জুলাই। কমিটির মেয়াদ শেষ হয় ২০০৬ সালে কিন্তু বিভিন্ন কারণে টানা দেড় দশক কমিটি হয়নি। গত বছরের ২৩ জানুয়ারি সম্মেলনের মাধ্যমে কমিটি গঠনের দিন ধার্য ছিল কিন্তু করোনা পরিস্থিতির কারণে শেষ পর্যন্ত সম্মেলন স্থগিত করে কেন্দ্র।

একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে

সর্বশেষ

ছাত্রনেতা শাহীর মুক্তির দাবিতে প্রধানমন্ত্রীর কাছে খোলা চিঠি 

নিজস্ব প্রতিবেদক: প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার কাছে সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম ফেসবুকে একটি খোলা চিঠি লিখেছেন যশোর...

খুলনা-কলকাতা রুটে বন্ধন এক্সপ্রেস আজ ফের চালু

নিজস্ব প্রতিবেদক: আজ রোববার থেকে ফের কলকাতা-খুলনা রুটে ‘বন্ধন এক্সপ্রেস’ রেল চলাচল শুরু হবে।...

রসুনের গায়ে আগুন!

সপ্তাহের ব্যবধানে কেজিতে বেড়েছে ৫০ টাকা ক্ষুব্ধ ক্রেতা, স্বস্তিতে নেই কিছু বিক্রেতাও জ্যেষ্ঠ প্রতিবেদক: এবার ভোক্তার...

আনারসের পাতা থেকে সুতা সৃজনশীল কাজে পৃষ্ঠপোষকতা প্রয়োজন

অপার সম্ভাবনার দেশ বাংলাদেশ। কিন্তু হলে কি হবে। সম্ভবনা থাকলেই তো আর আপনা আপনি...

দড়াটানার ভৈরব পাড়ে মাদকসেবীদের নিরাপদ আঁখড়া

নিজস্ব প্রতিবেদক: যশোর শহরের ঘোপ জেলরোড কুইন্স হাসপাতালের পূর্ব পাশে ভৈরব নদের পাড়ে মাদকসেবীদের...

আজকের মধ্যে অবৈধ ক্লিনিক-ডায়াগনস্টিক বন্ধ না হলে ব্যবস্থা

কল্যাণ ডেস্ক: দেশে অনিবন্ধিত ও নবায়নহীন অবস্থায় পরিচালিত অবৈধ বেসরকারি ক্লিনিক ও ডায়াগনস্টিক সেন্টার...