বাঘারপাড়ার জামদিয়ায় নির্বাচনী সহিংসতায় আহত ৬ : একজন গুরুতর (ভিডিও)

বাঘারপাড়ার জামদিয়ায় নির্বাচনী সহিংসতায় আহত ৬

কল্যাণ রিপোর্ট
যশোরের বাঘারপাড়ার জামদিয়া ইউনিয়নের ভাঙ্গুড়ায় নৌকা প্রতীকের নির্বাচনী প্রচারণায় হামলা হয়েছে। গতকাল শুক্রবার রাতে বিদ্রোহী প্রার্থীর সমর্থকরা নৌকা প্রতীকের চেয়ারম্যান প্রার্থীর নির্বাচনী প্রচারণায় এই হামলা চালায়। বাঘারপাড়া উপজেলা চেয়ারম্যান ভিক্টোরিয়া পারভীন সাথীসহ আরো অনেকে হামলায় আহত হন। আহতদের মধ্যে ৬ জনকে রাতেই যশোর জেনারেল হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। এদের মধ্যে একজনের অবস্থা গুরুতর হওয়ায় উন্নত চিকিৎসার জন্য ঢাকায় নিয়ে যাওয়া হয়েছে।

গতকাল রাত সাড়ে আটটার দিকে নৌকার প্রার্থী আরিফুল ইসলাম তিব্বতের নির্বাচনী প্রচার চলাকালে এই হামলা হয়। দেশিয় অস্ত্র-শস্ত্র নিয়ে বিদ্রোহী প্রার্থী আনারস প্রতীকের আসলামের সমর্থকরা অতর্কিত হামলা চালায়। লাঠি, রামদা, ক্ষুর, চাপাতি নিয়ে ২০ থেকে ২৫ জনের একটি দলের অতর্কিত হামলায় দিশেহারা হয়ে পড়েন নৌকার কর্মী-সমর্থকরা। হাসপাতালে ভর্তি থাকা আহতরা এমন অভিযোগ করেছেন।

অভিযোগ রয়েছে, হামলায় স্বতন্ত্র প্রার্থী মোরগ মার্কার কর্মীরাও অংশ নেয়। মোরগ প্রতীকের এই চেয়ারম্যান প্রার্থী সোলাইমান বিএনপির রাজনীতি ঘনিষ্ঠ। সশস্ত্র এই হামলায় স্বতন্ত্র দুই চেয়ারম্যান প্রার্থীসহ মিলন, তন্ময়, মুরাদ নেতৃত্ব দেন।

জানা গেছে, প্রচারণায় অংশ নেয়াদের অনেকে এই হামলায় আহত হয়েছেন। আহতরা হলেন, বাঘারপাড়া উপজেলার ভাঙ্গুড়া গ্রামের হাবিবুর রহমানের ছেলে মোহাম্মদ লিকু (৩০), জামদিয়া গ্রামের মিজানুর রহমানের ছেলে মোঃ রনি (২২), ভাঙ্গুড়া গ্রামের ইসমাইল হোসেনের ছেলে মোহাম্মদ দেলোয়ার (২৫), একই গ্রামের তবিবুর রহমানের ছেলে মোহাম্মদ শাহিন রেজা (৩০) ও ইসমাইল হোসেনের ছেলে মোহাম্মদ ইদ্রিস আলী (৫০)। মোহাম্মদ লিকুর শারীরিক অবস্থা গুরুতর হওয়ায় তাকে ঢাকায় রেফার্ড করা হয়েছে।

একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে