বুধবার, নভেম্বর ৩০, ২০২২

বাঙালির অদম্য সাহসের উদ্বোধন

আজ বাঙালির স্বপ্নের পদ্মাসেতুর উদ্বোধন। এ উদ্বোধনের মানে মহকর্মযজ্ঞে ঝাঁপিয়ে পড়ার ক্ষেত্রে জাতির এক অদম্য সাহসের উদ্বোধন। ছয় দশমিক ১৫ কিলোমিটার দীর্ঘ এই বৃহত্তম অবকাঠামোর কল্যাণে দেশের জিডিপি ১ দশমিক ২ শতাংশ বাড়িয়ে তুলতে পারে। যোগাযোগের ক্ষেত্রে সূচিত হবে এক যুগান্তকারী অধ্যায়। দক্ষিণ ও দক্ষিণ-পশ্চিমাঞ্চলের মানুষ পাবে রাজধানী ঢাকার সাথে সহজ যাতায়াতের সুযোগ। সুদীর্ঘকাল ধরে পদ্মার এ পারের মানুষ কি যে অবর্ণনীয় দুর্ভোগের শিকার হয়েছে তা সবার জানা। যোগাযোগের এ সংকট কাটার এক মাহেন্দ্রক্ষণের অপেক্ষায় ছিলেন এই এলাকার মানুষ। এই সেতুর কল্যাণে সে সংকট কেটে যাবে। বেনাপোল স্থলবন্দর, ভোমরা ও মোংলা পোর্টের সহজ যোগাযোগ ব্যবস্থা সৃষ্টি হওয়ায় পণ্য আদান প্রদানের বাধা না থাকায় ব্যবসা-বাণিজ্য সম্প্রসারিত হবে। পদ্মা সেতুর কল্যাণে এ অঞ্চলটিতে এক যুগান্তকারী উন্নয়নের সূচনা করবে এবং বিনিয়োগ ও কর্মসংস্থানও উল্লেখযোগ্যভাবে বৃদ্ধি পাবে।

স্বপ্নের পদ্মা সেতু আজ স্বপ্ন নয়, বাস্তব। সকল জল্পনা-কল্পনা, সন্দেহ-সংশয়, ষড়যন্ত্র, বাধা-বিপত্তি পিছে ফেলে মহান আল্লাহর অপার অসীম করুণাধারায় সিক্ত হয়ে আজ উদ্বোধন হচ্ছে। মাওয়া পয়েন্টে আয়োজিত সমাবেশে বক্তৃতার পর প্রধানমন্ত্রী সেতু পারাপারের মাসুল দিয়ে যাত্রা করবেন। পদ্মা পেরিয়ে তিনি জাজিরা পয়েন্টে আয়োজিত আর একটি সমাবেশে বক্তৃতা করবেন। এভাবেই শেষ হবে সেতুর উদ্বোধন, যার ওপর দিয়ে কাল ২৬ জুন থেকে নিয়মিত চলবে যানবাহন।

এই সেতুটি বাঙালির কাছে অত্যন্ত গর্বের। কারণ সেতুটির সূচনাতে বিশ্বব্যাংক নানা অজুহাত খাড়া করে। আমাদের দূরদর্শী প্রধানমন্ত্রী এই বাহানার পেছনে সেতুটি যাতে না হয় তার পেছনে একটি গভীর ষড়যন্ত্রের কালো ছায়া দেখতে পান। সেতু নির্মাণের বিষয়ে তিনি সাহসী ভূমিকা নিয়ে বিশ্ব ব্যাংকের অর্থায়ন না নিয়ে নিজস্ব অর্থায়নে সেতু নির্মাণের ঘোষণা দেন। কঠিনতম এ ঘোষণায় অবাক হয়েছিল বিশ্ব। কিন্তু বাঙালি জাতি পেয়েছিল কঠিন কর্মের প্রেরণা। সেতুটির সফল বাস্তবায়নে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে বাঙালির আগামী দিনের যে কোন কর্মের সাহসের উদ্বোধন হলো। সারা বিশ্বের অবাক করা সেই সেতু বাস্তব। অবাক বিস্ময়ে তাকিয়ে দেখবে বিশ্ব। নিন্দুকেরা নিরাশা ব্যক্ত যে অপপ্রচার চালিয়েছিল তাদেরকে শিক্ষা দেয়া হলো কাজের মাধ্যমে। এখন আর তাদের বলার কিছু থাকলো না।

পদ্মা সেতু বাংলাদেশের একটি বৃহত্তম অবকাঠামো, যা সাহসী জননন্দিত প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার উদ্যোগে করা হয়েছে। নিজস্ব অর্থায়নের মাধ্যমে ২০১৪ সালের ডিসেম্বরে এর নির্মাণ কাজ শুরু হয়। অর্থনীতিবিদরা বলেছেন, পদ্মা সেতু দেশে একটি সমন্বিত যোগাযোগ ব্যবস্থা গড়ে তুলতে সহায়তা করবে, যা বাংলাদেশের দক্ষিণ-পশ্চিমাঞ্চলের অর্থনৈতিক দৃশ্যপট পাল্টে যাবে।

একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে

সর্বশেষ

সেমি-ফাইনালে আর্জেন্টিনা-ব্রাজিল মহারণ নাকি মেসি-রোনালদো দ্বৈরথ?

ক্রীড়া ডেস্ক: প্রথম ম্যাচে সৌদি আরবের বিপক্ষে হেরে বিপাকেই পড়ে গিয়েছিল আর্জেন্টিনা। এক হারেই...

সুন্দরী প্রতিযোগিতার বিজয়ী রাহার আয়োজকদের বিরুদ্ধে থানায় অভিযোগ

বিনোদন ডেস্ক: থাইল্যান্ড পাঠানোর নাম করে তার দেওয়া ৬ লাখ টাকা আয়োজকরা আত্মসাৎ করেছেন...

মেসিকে হুমকি দেওয়া মেক্সিকান বক্সারকে পেটাবেন আর্জেন্টাইন ফাইটার

ক্রীড়া ডেস্ক: আর্জেন্টাইন ফাইটার ফ্রাঙ্কো তেনাগ্লিয়াকে তেমন খ্যাতিমান কেউ নন। লাইটওয়েট শ্রেণিতে লড়াই করেন...

আর্জেন্টিনা বিশ্বকাপ থেকে বাদ পড়লে ব্রাজিলকে সমর্থন দেবেন স্কালোনি!

ক্রীড়া ডেস্ক: আর্জেন্টিনার কোচ লিওনেল স্কালোনি বলেছেন, আর্জেন্টিনা কাতার বিশ্বকাপ থেকে বাদ পড়ে গেলে...

মাগুরায় স্কুলছাত্রীর আত্মহত্যা

মাগুরা প্রতিনিধি : মাগুরা শহরের পশু হাসপাতাল পাড়ায় মিম (১৩) নামের এক স্কুলছাত্রী গলায়...

শতভাগ পাস ঝিকরগাছায় শীর্ষে বিএম হাইস্কুল

নিজস্ব প্রতিবেদক: যশোরের ঝিকরগাছা বদরুদ্দীন মুসলিম হাইস্কুলের শতভাগ পাসের সাফল্য এবারও উপজেলার শীর্ষে রয়েছে।...