Sunday, July 3, 2022

সংবাদপত্রের পাতা থেকে

বিজয়ের মাস ডিসেম্বর

সাজেদ রহমান
মুক্তিযুদ্ধে চূড়ান্ত বিজয়ের আগে যশোরের চৌগাছা ১ ডিসেম্বর শত্রুমুক্ত হয়। দেশের বিভিন্ন স্থানে স্বাধীনতার সূর্য উঁকি দিচ্ছিল। এমনটাই খবর ছিল ১৯৭১ সালের ১ ডিসেম্বর।

ওই দিন দৈনিক যুগান্তর পত্রিকায় লিড নিউজ ছিল ‘বরিশাল, ফরিদপুরে পাক সৈন্য বেশি নেই, চৌগাছা মুক্ত’।

রিপোর্টে বলা হয় মুক্তি বাহিনী যোগাযোগ ব্যবস্থা সম্পূর্ণ বিচ্ছিন্ন করে দেওয়ায় একমাত্র জেলা সদর ছাড়া সারা ফরিদপুর ও বরিশাল জেলা থেকে পাকিস্তান সৈন্য বাহিনী প্রত্যাহার করে নিতে বাধ্য হয়েছে।

যশোর জেলার গুরুত্বপূর্ণ বাণিজ্য কেন্দ্র চৌগাছা মুক্ত হওয়ার পর সেখানে স্বাভাবিক অবস্থা ফিরে এসেছে। যশোরের নাভারণে পাকিস্তানি ঘাঁটির ওপর মুক্তিবাহিনী আক্রমণ অব্যাহত রেখেছে।

যশোরের বিভিন্ন সেক্টরে মোতায়েন পাকিস্তানি সৈন্যরা যাতে ক্যান্টনমেন্টে ফিরে এসে শক্তি বৃদ্ধি করতে না পারে, সেজন্য মুক্তি বাহিনী ক্যান্টনমেন্টে যাবার প্রতিটি রাস্তার মুখে অবিরাম গোলা বর্ষণ করে যাচ্ছে।

রিপোর্টে আরও বলা হয়, গত ২৫ নভেম্বর যশোর জেলার সামরিক দিক থেকে গুরুত্বপূর্ণ বাজার চৌগাছা মুক্তিবাহিনী দখল করেছে।

বিজয়ের মাস ডিসেম্বর

ওই অঞ্চলে ধীরে ধীরে স্বাভাবিক অবস্থা ফিরে আসছে বলে মুজিবনগর থেকে আজ জানিয়েছেন আওয়ামী লীগের স্থানীয় এমএলএল ওবায়েদুর রহমান। জনাব রহমান ছাড়াও সাব সেক্টর কমান্ডার মেজর নাজমুল হুদা, ফ্লাইট লেফটন্যান্ট জামাল চৌধুরী ও ও যশোর জেলা আওয়ামী লীগের জেনারেল সেক্রেটারি জনাব রওশন আলীও এ কথা জানান।

গত ২৮ নভেম্বর চৌগাছার বেশিরভাগ বাড়ি, কুঁড়েঘর ও অন্যান্য গৃহের ওপর পাক গোলার শত শত ক্ষতচিহ্ন সৃষ্টি হয়। জনমুখরিত চৌগাছা বাজার প্রায় জনশুন্য হয়ে পড়ে।

চৌগাছা মুক্তি বাহিনীর দখলে আসার পর ধীরে ধীরে মানুষ আবার ওই অঞ্চলে ফিরে আসছে। ওই অঞ্চলে স্বাভাবিক অবস্থা ফিরিয়ে আনার জন্য চৌগাছার এমপিএ জনাব তবিবুর রহমান সরদারের ওপর ভার দেওয়া হয়েছে।

জনাব ওবায়েদুর রহমান আরও বলেন যে, যশোহর শহর থেকে ২৭ কিলোমিটার পশ্চিমে চৌগাছায় হাজার হাজার মানুষ শেষ সম্বলটুকু সঙ্গে নিয়ে যশোহর থেকে ছুটে আসছে। তাঁদের জিজ্ঞাসা করে জানা গেছে যে,
মুক্তি বাহিনী যশোহর শহর যে কোন মুহুর্তে আক্রমণ করতে পারে তাই তারা নিরাপদ আশ্রয়ে এসে পৌঁছাতে চান। কারণ শহরের মধ্যে খান সেনাদের আক্রমণ শুরু হবার সঙ্গে সঙ্গে সেখানে এক ভঙ্ককর রকমের রক্তাক্ত যুদ্ধ শুরু হয়ে যাবে।

১ ডিসেম্বর ১৯৭১

১ ডিসেম্বর দৈনিক ইত্তেফাক এবং দৈনিক পাকিস্তান পত্রিকার প্রথম পাতায় দুইটি নিউজের শিরোনাম ছিল ‘২২ জন পুলিশ অফিসারকে হাজির হওয়ার নির্দেশ’। এই ২২ জন পুলিশ অফিসারের মধ্যে বেশ কয়েকজন ছিলেন বৃহত্তর যশোরের। তারা মুক্তিযুদ্ধে যোগদান কারায় মুলত তাদের হাজির হওয়ার নির্দেশ দেয়া হয়।

ইত্তেফাকের রিপোর্টে বলা হয়, ‘সারদা পুলিশ একাডেমির প্রিন্সিপাল ও ভাইস-প্রিন্সিপালসহ ২২ জন পুলিশ
কর্মচারীকে আগামী ৭ ডিসেম্বর ঢাকার এমপিএ হোস্টেলে অবস্থিত ৬ নম্বর সেক্টরের উপ-সামরিক আইন প্রশাসকের নিকট উপস্থিত হওয়ার নির্দেশ দেওয়া হইয়াছে বলিয়া গতকাল মঙ্গলবার ঢাকার এপিপি পরিবেশিত সংবাদে বলা হইয়াছে।

তাহাদের বিরুদ্ধে ‘খ’ অঞ্চলের সামরিক আইন পরিচালকের ১২০ নং আদেশের সহিত পঠিত এম এল আর ২৫ বিধি অনুযায়ী অভিযোগ আনায়ন করা হইয়াছে।

‘খ’ অঞ্চলের সামরিক আইন প্রশাসক লে. জেনারেল এএকে নিয়াজি এমএল আর ৪০ বিধি অনুযায়ী প্রাপ্ত ক্ষমতা বলে নিন্মলিখিত ২২ জন পুলিশ অফিসারকে উপরোক্ত উপ-সামরিক আইন পরিচালকের নিকট হাজির হওয়ার নির্দেশ দিয়াছেন।

বিজয়ের মাস ডিসেম্বর

তালিকার ৩ নম্বরে ছিলেন এসআই সায়েদুজ্জামান, ওসি বেনাপোল তল্লাশী ফাঁড়ি, ৪ নন্বরে এসআই শামসুল আলম, সেকেন্ড এসআই, ঝিকরগাছা থানা, ৫ নন্বরে এসআই মফিজউদ্দীন, ওসি কোটচাঁদপুর, ৬ নম্বর এসআই কাঞ্চন কুমার ঘোষাল, সিনিয়র সিএসআই, ঝিনাইদহ কোর্ট, ৭ নম্বর এসআই আব্দুল হালিম, থার্ড এসআই ঝিনাইদহ থানা, ৮ নম্বর এসআই আব্দুল মতিন, থার্ড এসআই মহেশপুর থানা, ৯ নম্বর এসআই আব্দুল লতিফ, ওসি, কালিগঞ্জ থানা, ১০ নম্বর এসআই চৌধুরী আব্দুর রাজ্জাক, ডিআই, ঝিনাইদহ, ১১ নম্বর এসআই আব্দুল গফুর, ঝিকরগাছা থানা। বাকী পুলিশ অফিসারদের পোষ্টিং ছিল কুষ্টিয়া, সারদা, চন্দ্রঘোনা, পাবর্ত্য চট্টগ্রাম জেলায়।

রিপোর্টে আরও বলা হয়, তাঁহাদিগকে আগামী ৭ ডিসেম্বর সকাল ৮টায় তাঁহাদের বিরুদ্ধে আনীত উপরোক্ত অভিযোগের জবাব দানের জন্য এবং ৬ নম্বর সেক্টরের উপ-সামরিক আইন প্রশাসকের নিকট হাজির হওয়ার নির্দেশ দেওয়া হইয়াছে। তাঁহারা যদি নির্দিষ্ট তারিখ ও সময়ে হাজির হইতে ব্যর্থ হন তাহা হইলে তাঁহাদের অনুপস্থিতিতে ৪০ নম্বর সামরিক আইন বিধি অনুযায়ী তাঁহাদের বিচার করা হইবে।

//বিজয়ের মাস ডিসেম্বর সংবাদপত্রের পাতা থেকে

আরো পড়ুন:
যুবলীগের বর্ধিত সভায় যোগ দেওয়াকে কেন্দ্র করে ছুরিকাঘাতে ৫ জন আহত
যুক্তরাষ্ট্রে গুলিতে ৩ শিক্ষার্থী নিহত
ওমিক্রন : ‘যৌক্তিক’ ব্যবস্থা নেওয়ার আহ্বান  ডাব্লিউএইচও’র
৫ বছরে আয় বেড়েছে যশোরের ইউপি চেয়ারম্যানদের

একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে

সর্বশেষ

রাজপথে নেই যশোর জাতীয় পার্টি 

এক বছর আগে হয়েছে সম্মেলন প্রস্তুতি কমিটি দিনে দলীয় কার্যালয় থাকে বন্ধ, মাঝে মধ্যে সন্ধ্যায়...

যশোরে দৈনিক ২০ মেগাওয়াট বিদ্যুৎ ঘাটতি, লোডশেডিংয়ে অতিষ্ঠ জনগণ

নিজস্ব প্রতিবেদক :  ঋতুচক্রে এখন মধ্য আষাঢ়। কিন্তু ভ্যাপসা গরম কাটছে না। গরমে মানুষ অতিষ্ঠ...

ধর্ম-কর্মের খোঁজ নেই মসজিদ নিয়ে মারামারি

হাদিস শরিফে মসজিদকে সর্বোত্তম স্থান হিসেবে উল্লখ করা হয়েছে। এখানে মহান আল্লাহর এবাদতে যেভাবে...

সোনালি আঁশে সুদিনের স্বপ্ন দেখছেন নড়াইলের চাষিরা

নড়াইল প্রতিনিধি বোরো ধানের পর নড়াইলে পাট চাষে অর্থনৈতিক সচ্ছলতার স্বপ্ন দেখছেন কৃষাণ-কৃষাণীরা। উৎপাদন ভালো...

শিক্ষক হত্যা ও লাঞ্ছিতের প্রতিবাদে বাকবিশিস যশোরের মানববন্ধন

নিজস্ব প্রতিবেদক :  নড়াইলে কলেজ অধ্যক্ষের গলায় জুতার মালা পরানো ও সাভারে শিক্ষককে পিটিয়ে হত্যার...

বিল হরিণায় বিসিক-২ বাস্তবায়ন দাবিতে রাজপথে নেমেছেন এলাকাবাসী

নিজস্ব প্রতিবেদক : যশোর সদর উপজেলার রামনগর ইউনিয়নের বিল হরিণায় প্রস্তাবিত লাইট ইঞ্জিনিয়ারিং শিল্প পার্ক...