Wednesday, May 18, 2022

ভারতীয় বাজির মোকাম যশোরের বড় বাজার!

লাবুয়াল হক রিপন: কঠোর বিধিনিষেধের মধ্যেও যশোর শহরের বড় বাজারে চলছে রমরমা পটকাবাজি ও আতশবাজির বিকিকিনি। প্রতিবেশী দেশ ভারত থেকে অবৈধ পথে চোরাচালানিরা পাটকাবাজি এনে যশোরের বড় বাজারের হাটচান্নি ও চুড়িপট্টিতে কেনাবেচা করছে।

সূত্র মতে, আসন্ন ঈদুল ফিতর উপলক্ষে যশোর শহরের বড় বাজারে মোকাম বানানো হয়েছে পটকাবাজি ও আতশবাজির। বাজারের হাটচান্নি ও চুড়িপট্টি মার্কেটে এই বাজি পাইকারি বিক্রি করা হচ্ছে। এখান থেকে পাইকারি ক্রয়ের পরে শুধু যশোর নয় অন্যান্য জেলার বিভিন্ন স্থানে তা বিক্রি হচ্ছে। বড় বাজারের হাটচান্নি মার্কেটে আলু পুরির দোকান্দার সিহাব, আরজু, তন্ময় ইসলাম মীম এবং জয়নাল প্রকাশ্যেই পটকাবাজি বিক্রি করে আসছে। এরই মধ্যে সিহাব ও জয়নালকে সাদা পোশাকধারী আইন শৃঙ্খলা বাহিনীর সদস্যরা কয়েকদিন আগে নিয়ে গিয়েছিল। পরে রফা করে তাদের ছাড়িয়ে এনেছে পরিবার। এরপরও থেমে নেই তাদের বাজি বিক্রি।
সীমান্ত ও বড়বাজার সূত্রে জানা গেছে, বেনাপোলের ডলি, আম্বিয়া খাতুন আম্বি ও জয়নালের মা রাবেয়া খাতুন ভারত থেকে বাজি আনে। এরা প্রতিদিন বেনাপোল থেকে আতশ ও পটকাবাজি এনে যশোর বাজারের ব্যবসায়ীদের কাছে বিক্রি করে। যশোর বড় বাজারের বাবু, মহিদুল ইসলাম মহিদুল, তুর মোহাম্মদ, রাইফুল ইসলাম, শাহিন, শহিদুল ইসলাম, আশরাফুল ইসলাম আশরাফুল, পবিত্র, মান্নান, কুমিল্লা জরি হাউজ, আরজু জরি হাউজ, দত্ত স্টোর, আরমান স্টোরে এই বাজি বিক্রি করা হয় বলে অভিযোগ রয়েছে। পুলিশ প্রশাসন তাদের নজরদারিতে রেখেছে বলে সংশ্লিষ্ট এক কর্মকর্তা জানান। বিশেষ করে ঈদের দুই দিন আগে প্রকাশ্যে বাজি বিক্রি করবে বলে ব্যবসায়ীরা অপেক্ষায় রয়েছে। ওই ব্যবসায়ীদের গোডাউন বাসা এবং বাজারের বাইরে ঘর ভাড়া করে ওই বাজি রেখেছে বলে জানা গেছে। এরমধ্যে তন্ময় ইসলাম মীম প্রকাশ্যেই বাজি বিক্রি করে চলেছে।

সূত্র মতে, প্রশাসনের চাপ থাকায় এই সকল ব্যবসায়ী বর্তমানে দোকানে না রেখে বাসায় অথবা গোডাউনে রেখে বাজিগুলো বিক্রি করছে। আবার কেউ কেউ মোবাইল ফোনের মাধ্যমেও অর্ডার নিয়ে ক্রেতাদের কাছে পৌঁছে দিচ্ছে। যদিও ওই বাজি বিক্রিতে প্রশাসনিক বিধিনিষেধ রয়েছে। কিন্তু প্রশাসনের চোখ ফাঁকি দিয়ে ওই সকল অসাধু ব্যবসায়ীরা থেমে নেই তাদের অবৈধ কারবার থেকে।

চোরাকারবারীরা প্রতিদিন ভোরে ইজিবাইক, ভ্যান এবং মোটরসাইকেলে করে পটকাবাজি নিয়ে বাজারে ঢুকছে। বড় বাজারের হাটখোলা রোডের অলিগলির ছোটখাট দোকান, হাটচান্নি, বাবু বাজার, ফেন্সি মার্কেট, এইচএমএম রোড, কাপুড়িয়াপট্টি ও মুজিব সড়কের দোকানগুলোতে পৌঁছে যাচ্ছে এসব অবৈধ পণ্য।

সূত্র আরো জানায়, সারা বছরই যশোর বড় বাজারে ভারতীয় বিভিন্ন ধরণের অবৈধ পণ্য নিয়ে আসে চোরাকারবারীরা। ঈদ, পূজাসহ বিভিন্ন ধরণের ধর্মীয় ও সামাজিক অনুষ্ঠানকে সামনে রেখে চোরাই বাণিজ্য বহুগুণে বেড়ে যায়। তবে এসব মালামাল নিয়ে আসছে বেশিরভাগ মহিলারা। বেশির ভাগ মালামাল ঢুকানো হচ্ছে গোহাটা রোড ও হাটখোলা রোডের মাড়োয়ারি মন্দিরের সামনের রাস্তা দিয়ে। সাধারণত ছোটখাট দোকানগুলো অধিক লাভের আশায় ভারতীয় চোরাই পণ্য বিক্রি করে।

এই ব্যাপারে সদর ফাঁড়ি ইনচার্জ পুলিশ পরিদর্শক শফিকুল ইসলাম বলেছেন, অবৈধভাবে পটকাবাজি বিক্রি নিষেধ করা হয়েছে। এরপরও যদি কেউ বিক্রি করে তাদের বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে

সর্বশেষ

যশোরে গৃহবধূর রহস্যজনক মৃত্যু

নিজস্ব প্রতিবেদক: যশোরে সুমাইয়া খাতুন নামে এক গৃহবধূর রহস্যজনক মৃত্যু হয়েছে। তার ঝুলন্ত মরদেহ...

ঝিকরগাছায় সখিনা হত্যার দায় স্বীকার প্রেমিকের

নিজস্ব প্রতিবেদক: যশোরের ঝিকরগাছায় সখিনাকে হত্যার কথা স্বীকার করে আদালতে জবানবন্দি দিয়েছে তার প্রেমিক...

শেখ হাসিনার ৪২তম স্বদেশ প্রত্যাবর্তন দিবসে বিভিন্ন স্থানে কর্মসূচি পালিত 

কল্যাণ ডেস্ক: বঙ্গবন্ধু কন্যা আওয়ামী লীগ সভানেত্রী প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার ৪২তম স্বদেশ প্রত্যাবর্তন দিবসে...
00:03:13

যশোরে বাপ্পি খুনের আসামিরা দুই সপ্তাহেও আটক হয়নি

নিজস্ব প্রতিবেদক: যশোর সদর উপজেলার ভায়না গ্রামের বাপ্পি হাসান (১৯) নামে এক তরুণ খুনের...

পদ্মা সেতুর টোল নির্ধারণে প্রজ্ঞাপন

কল্যাণ ডেস্ক: বহুল প্রত্যাশিত পদ্মা সেতুর ওপর দিয়ে চলাচলকারী যানবাহনের টোল নির্ধারণ করে প্রজ্ঞাপন...

বঙ্গবন্ধু জাতীয় গোল্ডকাপ ফুটবল টুর্নামেন্ট পৌরসভা ও দোহাকুলা ইউনিয়ন ফাইনালে 

বাঘারপাড়া (যশোর) প্রতিনিধি: উপজেলা পর্যায়ে মঙ্গলবার বাঘারপাড়ায় বঙ্গবন্ধু জাতীয় গোল্ডকাপ ফুটবল টুর্নামেন্টের সেমিফাইনাল পর্বের...