ভারতে টিকা না দিলে দরকার হচ্ছে অক্সিজেনের

অক্সিজেন

ডেস্ক রিপোর্ট : করোনাভাইরাস প্রতিরোধী টিকা নেওয়া থাকলে ভাইরাসের অতিসংক্রামক ওমিক্রন ভ্যারিয়েন্টের বিরুদ্ধে লড়াইটা অনেকটাই সহজ হয়ে যাচ্ছে। ভারতের পশ্চিমাঞ্চলীয় রাজ্য মহারাষ্ট্রের মুম্বাইয়েও এমন চিত্র দেখা যাচ্ছে। সেখানে যেসব করোনা রোগীকে অক্সিজেন দিতে হচ্ছে, তাদের ৯৬ শতাংশই কোনো টিকা নেননি। বৃহস্পতিবার (১৩ জানুয়ারি) এক প্রতিবেদনে এই তথ্য জানিয়েছে ভারতীয় সংবাদমাধ্যম টাইমস অব ইন্ডিয়া।

বৃহন্মুম্বই মিউনিসিপাল করপোরেশনের (বিএমসি) কমিশনার ইকবাল চাহাল জানিয়েছেন, সম্প্রতি করোনায় আক্রান্ত হওয়া রোগীদের মধ্যে যাদের অক্সিজেনের প্রয়োজন হয়েছে বা হচ্ছে, তাদের অধিকাংশই একটি টিকাও নেননি।

ভারতে ওমিক্রন আছড়ে পড়ার পর থেকেই মহারাষ্ট্র, বিশেষ করে মুম্বাইয়ে লাফিয়ে লাফিয়ে বেড়েছে করোনায় আক্রান্তের সংখ্যা। ভারতের সবগুলো শহরের মধ্যে সংক্রমণের বিচারে সবচেয়ে এগিয়ে রয়েছে মুম্বাই। গত ২৪ ঘণ্টায় ভারতে সবচেয়ে বেশি করোনা রোগী শনাক্ত হয়েছে মহারাষ্ট্রে। রাজ্যটিতে বৃহস্পতিবার ৪৬ হাজার ৭২৩ জনের শরীরে করোনা শনাক্ত করা হয়েছে।

ইকবাল চাহার জানিয়েছেন, মুম্বাইয়ে করোনায় আক্রান্ত হয়ে সম্প্রতি ১ হাজার ৯০০ জন রোগীর অক্সিজেনের প্রয়োজন হয়েছে। তাদের ৯৬ শতাংশের একটি টিকাও নেওয়া নেই। তিনি বলেছেন, ‘মুম্বাইয়ের ১৮৬টি হাসপাতালে ভর্তি হওয়া রোগীদের মধ্যে যাদের অক্সিজেনের প্রয়োজন হচ্ছে, তাদের ৯৬ শতাংশই টিকা নেননি।’

যদিও পুরো ভারতের মধ্যে মুম্বাইয়ে টিকাদানের হার সবচেয়ে বেশি বলে দাবি করেছেন ইকবাল। তার মতে, বিএমসি ইতোমধ্যেই এক কোটির বেশি মানুষকে দুই ডোজ করে টিকা দিয়েছে। একটি টিকা পেয়েছেন অন্তত ৯০ লাখ মানুষ। অবশ্য আক্রান্ত বৃদ্ধির সঙ্গে বিধিনিষেধ জারি হলেও লকডাউনের মতো কড়াকড়ি জারি করা হয়নি।

এ ব্যাপারে ইকবাল জানিয়েছেন, ওমিক্রনের দাপটে সংক্রমণ বাড়লেও হাসপাতালে ভর্তির হার অনেকটাই কম। হাসপাতালে যা অক্সিজেন মজুত রয়েছে, তার খুব সামান্য অংশই ব্যবহৃত হয়েছে।

তিনি বলেছেন, মুম্বাইয়ে সক্রিয় রোগী রয়েছে এক লাখের বেশি। এতোদিনে অক্সিজেন লেগেছে মাত্র ১০ টন। তাই এখনই বিধিনিষেধে কড়াকড়ির কথা ভাবা হয়নি। তবে হাসপাতালে ভর্তির সংখ্যা বাড়তে শুরু করলে আরও কড়া বিধিনিষেধ জারি করা হবে।

একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে