Saturday, May 28, 2022

মরদেহের অপেক্ষায় মরণদশা

দুইটার পরে লাশ এলে ময়নাতদন্ত হয় পরদিন

শাহারুল ইসলাম ফারদিন:
কেশবপুরের রামচন্দ্রপুর গ্রামের মেরিনা পারভিন। স্বামী রিপন হোসেনের ছুরিকাঘাতে হাসপাতালের চিকিৎসাধীন অবস্থায় বুধবার দুপুর ১টা ৪৫ মিনিটে মারা যান। তার ময়নাতদন্ত হয়েছে পরদিন সাড়ে ১২ টার দিকে। একটার দিকে তার মরদেহ নিয়ে স্বজনরা বাড়িতে রওনা হন। মারা যাওয়ার প্রায় ২৪ ঘণ্টা পর লাশ হাতে পান স্বজনরা। দীর্ঘ এই সময় লাশ যশোর ২৫০ শয্যা জেনারেল হাসপাতাল মর্গে রাখা ছিল। মরদেহের অপেক্ষায় থেকে রোদ-বৃষ্টিতে ভিজে মরণদশা হয়েছে স্বজনদের। শুধু মেরিনা পারভিনের স্বজনরা নয়; হত্যা, আত্মহত্যা কিংবা দুর্ঘটনায় নিহতদের লাশ পেতে এভাবে অপেক্ষার প্রহর গুণতে হয় অন্যদেরও। দুইটার পর হাসপাতালে মরদেহ আসলে আর ময়নাতদন্ত হয় না। নিহতের স্বজনদের অপেক্ষা করতে হয় পরের দিন পর্যন্ত। মরদেহ পেতে মরণদশা হয় স্বজনদের।

নিহত মেরিনার মামা কেশবপুরের মনিরুজ্জামান জানান, মেরিনার লাশ ময়নাতদন্তের জন্য থানা থেকে কাগজপত্র মর্গে না পৌঁছানোর কারণে তাদের প্রায় ২৪ ঘণ্টা অপেক্ষা করতে হয়েছে। লাশের জন্য স্বজনরা মর্গের সামনে অপেক্ষা করেন এই দীর্ঘ সময়। তারা একবার পুলিশ, একবার ডাক্তারের কাছে ধর্না দেন। বিপদের দিনে এটা যেন আরো বড় এক বিপদ।

গত ২৩ এপ্রিল ঝিনাইদহের কালীগঞ্জের পিরুজপুর গ্রামের ফজলুর রহমানকে (৭০) আপন ছোট ভাই কুপিয়ে হত্যা করেন। যশোর জেনারেল হাসপাতালে তার মৃত্যু হলে লাশ ময়নাতদন্তের জন্য হাসপাতালের মর্গে প্রেরণ করে দুপুর দেড়টার দিকে। এই মৃতদেহ ময়নাতদন্ত শেষে পরদিন দুপুরে স্বজনদের কাছে হস্তান্তর করা হয় বলে অভিযোগ করেন নিহতের ছেলে রুহুল আমিন।

এর আগে গত ২৩ এপ্রিল যশোর সদরের চুড়ামনকাটি ছতিয়ানতলা গ্রামের গৃহবধূ সেনিয়া আক্তার সুমা (২৫) আত্মহত্যা করেন। তার ভাই সুমন আলী বলেন, আমার বোন দুপুর একটার সময় মারা গেলেও মরদেহটি প্রায় ২৪ ঘণ্টা হাসপাতালের মর্গে ছিল। মরদেহ পেতে তাদের মর্গের সামনে দীর্ঘ সময় অপেক্ষা করতে হয়েছে।

জানা যায়, যশোর জেলার ৮ উপজেলা ও অন্য কোনো না কোনো এলাকা থেকে প্রতিদিনই ২৫০ শয্যা জেনারেল হাসপাতাল মর্গে এক অথবা একাধিক লাশ আসে ময়নাতদন্তের জন্য। গত একমাসে মর্গে এক ডজনেরও বেশি মরদেহ ২৪ ঘণ্টা পর ময়নাতদন্ত করা হয়েছে। এতে স্বজনদের মধ্যে রয়েছে ক্ষোভ।
খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, দুপুর দুইটার পর কোন লাশ এলে এখানে ময়নাতদন্ত করা হয় না। হাসপাতাল ও থানার সুরাতহাল রিপোর্ট সময় মতো না আসায় বন্ধ থাকে কাটাছেঁড়া।

জানতে চাইলে ময়নাতদন্তের সাথে যুক্ত লাশ কাটা ঘরের কর্মচারী (ডোম) শ্রী অরুন দাস বলেন, অনেক মরদেহ ২৪ ঘণ্টা মর্গে থাকে। কি কারণে তা আমি বলতে পারবো না। সংশ্লিষ্ট ফরেনসিক বিভাগের ডাক্তার ব্যাখ্যা দিতে পারবেন।

যশোর ২৫০ শয্যা বিশিষ্ট জেনারেল হাসপাতালের তত্ত্বাবধায়ক ডা. আখতারুজ্জামান বলেন, থানা ও পুলিশের কাগজপত্র যদি দুইটার মধ্যে হাসপাতালে পৌঁছায় তাহলে ময়নাতদন্ত করা সম্ভব হয়। কাগজপত্র না আসায় অনেক লাশের পরদিন পোস্টমোর্টেম করা হয়।

একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে

সর্বশেষ

প্রধানমন্ত্রীকে নিয়ে কটূক্তির প্রতিবাদে শার্শা ছাত্রলীগের বিক্ষোভ

নিজস্ব প্রতিবেদক: প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে নিয়ে কটূক্তির প্রতিবাদে বিক্ষোভ মিছিল করেছে শার্শা উপজেলা ছাত্রলীগ।...

বর্ণিল আয়োজনে ‘ভোরের সাথীর’ ১৬ বছর উদযাপন

নিজস্ব প্রতিবেদক: বর্ণাঢ্য শোভাযাত্রা, কেক কাটা, আলোচনাসভা ও সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানের মধ্য দিয়ে যশোরে পালিত...

সর্বোচ্চ আদালতের নির্দেশে ভারতে স্বীকৃতি পেল যৌন পেশা

আন্তর্জাতিক ডেস্ক: ভারতে যৌন পেশাকে আর বেআইনি বলা যাবে না। বৃহস্পতিবার (২৬ মে) এই...

বিশ্বের খর্বকায় কিশোরের স্বীকৃতি পেলেন দোর বাহাদুর

আন্তর্জাতিক ডেস্ক: নেপালের ১৭ বছর বয়সি দোর বাহাদুর ক্ষেপাঞ্জিই এখন বিশ্বের সবচেয়ে খর্বকায় কিশোর।...

‘বলিউডে কাজ পেতে হলে আমাকে আরও সময় দিতে হবে’

বিনোদন ডেস্ক: টেলিভিশনের জনপ্রিয় তারকা উরফি জাভেদ। যিনি নিজের অদ্ভুত সব ফ্যাশনের জন্য পরিচিত...

টেস্টে ২ হাজারের ঘরে ছন্দে থাকা লিটন

ক্রীড়া ডেস্ক: শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে প্রথম টেস্টে ৮৮ রান করার পর, ঢাকায় দ্বিতীয় টেস্টের প্রথম...