রবিবার, ডিসেম্বর ৪, ২০২২

মাদকাসক্ত পুলিশ চিহ্নিতকরণে ডোপ টেস্ট শুভ পদক্ষেপ

অপরাধীদের দিয়ে অপরাধ বন্ধ হতে পারে না। দেশে শুদ্ধি অভিযান পরিচালনা করতে হলে যাদের দিয়ে কাজটি করতে হবে আগে তাদেরকে শুদ্ধ করতে হবে। পুলিশের বিরুদ্ধে অনেক খারাপ কথা শোনা যায়। তার মধ্যে মাদকাসক্ত অন্যতম। বিষয়টি উর্দ্ধতন কর্তপক্ষ আঁচ করতে পেরে দোষী পুলিশদের বেছে বের করার এক শুভ পদক্ষেপ নেয়া হয়েছে। আর এতে বেরিয়ে আসবে অপরাধী পুলিশের অপরাধের কৃর্তি। স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী পুলিশর ডোপ টেস্টের ওপর গুরুত্বারোপ করেছেন। ডোপ টেস্টে পজিটিভ অর্থাৎ মাদকাসক্তির প্রমাণ পাওয়ায় বেশ কিছুদিন আগে কুষ্টিয়া জেলায় কর্মরত পুলিশের দু’জন উপপরিদর্শকসহ আট পুলিশকে চাকরিচ্যুত করা হয়।

অপরাধীদের দিয়ে অপরাধ দমন করা যায় না। মাদকাসক্ত পুলিশ কি করে মাদক নিয়ন্ত্রণে ভূমিকা পালন করবে। এ ক্ষেত্রে ডোপ টেস্টের মাধ্যমে অপরাধী চিহ্নিত করে শাস্তির নিয়মটি একটি প্রশংসনীয়। ওই সময় আইজিপির নির্দেশে কুষ্টিয়ার পুলিশ সুপার পুলিশের ডোপ টেস্ট করার উদ্যোগ নেন। পরীক্ষায় এসব সদস্যের নিয়মিত মাদক সেবনের রিপোর্ট আসে। এরপর পর্যায়ক্রমে ডোপ টেস্ট করা হয়। মাদকের বিষয়টি ধরা পড়ায় বিভাগীয় মামলার পাশাপাশি প্রথম দিকে অন্য জেলায় বদলি করা হয় তাদের। এর মধ্যে এক এসআইকে রাঙামাটিতে পাঠিয়ে দেয়া হয়। আর এক সার্জেন্টকে কুষ্টিয়া পুলিশ লাইনে সংযুক্ত রাখা হয়েছে। মাদক সেবনের বিষয়টি ধরা পড়ার পর অন্য সবাইকে বিভিন্ন জেলায় বদলি করা হয়। তারপরও তদন্তে প্রমাণিত হওয়ায় তাদের আটজনকে চাকরিচ্যুত করা হয়।

মাদকের সঙ্গে কোনো আপস নয়। স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী ও আইজিপিও মাদকের সঙ্গে জড়িত পুলিশ সদস্যদের বিষয়ে কঠোর ব্যবস্থা নেয়ার নির্দেশ দিয়েছেন। তাই পুলিশে শুদ্ধি অভিযান চলছে। আমরা কুষ্টিয়া থেকে মাদক নির্মূলের পাশাপাশি পুলিশ থেকেও চিরতরে মাদকাসক্তদের বাড়িতে পাঠাতে চাই। পুলিশ ডিপার্টমেন্টে কোনো মাদক সেবনকারী থাকতে পারবে না।

দৃশ্যত মাদক ব্যবসায়ীদের বিরুদ্ধে সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের কঠোর ভূমিকা কঠোর। কিন্তু তারপরও এই ব্যবসা চলছে আগের মতোই। তাহলে কি ধরে নেয়া যায় যারা কঠোর তাদের কেউ কেউ এই অপরাধে অপরাধী বলে কাজটার সুফল মিলছে না। যশোরে এক সময় পুলিশ ও মাদক সেবীরা জোট করে নেশা করেতো। এ ঘটনা গণমাধ্যমে প্রকাশ হয়, যা ওই সময়ের আলোচিত ঘটনা ছিল। মাদকাসক্ত পুলিশ শনাক্ত করে তাদের চাকরিচ্যুত করার যে পদক্ষেপ নেয়া হয়েছে তা নিঃসন্দেহে ব্যতিক্রমী দৃষ্টান্ত। প্রতিটি অপরাধ শনাক্ত করতে এমন ধরনের আরো পদক্ষেপ নেয়া হোক।

একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে

সর্বশেষ

খালেদার বাসার সামনে তল্লাশিচৌকি, রাজধানীজুড়ে ব্লক রেইড

কল্যাণ ডেস্ক : রাজধানীর গুলশানে বিএনপির চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার বাসভবন ফিরোজার সামনের সড়কের দুই পাশে...

নিজের ১০০০তম ম্যাচ রাঙিয়ে আর্জেন্টিনাকে কোয়ার্টার ফাইনালে নিলেন মেসি

ক্রীড়া ডেস্ক : ৬৫ মিনিটে মাঝ মাঠ থেকে বল নিয়ে চিতার মতো অস্ট্রেলিয়ান মিডফিল্ডের ট্রাইঙ্গেল...

কোয়ার্টার ফাইনালে নেদারল্যান্ডস

ক্রীড়া ডেস্ক  : গ্রুপ লিগের পর নকআউট পর্বের শুরুটাও দুরন্ত করলো নেদারল্যান্ডস। যুক্তরাষ্ট্রের বিরুদ্ধে রাউন্ড...

প্রযুক্তির মাধ্যমে দিনবদল করেছেন শেখ হাসিনা : প্রতিমন্ত্রী স্বপন

নিজস্ব প্রতিবেদক: ‘উদ্ভাবনী জয়োল্লাসে স্মার্ট বাংলাদেশ’ প্রতিপাদ্যে যশোরে শুরু হয়েছে দুই দিনব্যাপী ডিজিটাল উদ্ভাবনী...

কুয়েতে প্রতারণার শিকার শতাধিক বাংলাদেশি

নিজস্ব প্রতিবেদক: কুয়েতে শতাধিক বাংলাদেশি প্রতারণার শিকার হয়েছে বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে। আকামা পরিবর্তনসহ...

চাঁদাবাজির অভিযোগে হিজড়ার বিরুদ্ধে মামলা

নিজস্ব প্রতিবেদক: যশোরে ১০ লাখ টাকা চাঁদাবাজির অভিযোগ এনে এক হিজড়ার বিরুদ্ধে মামলা করেছেন...