মিরাজকে বোল্ড করে বোল্টের ৩০০

মিরাজকে বোল্ড করে বোল্টের ৩০০

ক্রীড়া ডেস্ক: নতুন বলে তিন উইকেট ধরা দিল দ্রুতই। এরপর বেশ কিছুটা সময় অপেক্ষা। অবশেষে কাঙ্ক্ষিত সেই মুহূর্তটির দেখা পেলেন ট্রেন্ট বোল্ট। দুর্দান্ত এক ডেলিভারিতে মেহেদী হাসান মিরাজকে বোল্ড করে তিনি পা রাখলেন ৩০০ উইকেটে।

ক্রাইস্টচার্চ টেস্টের দ্বিতীয় দিনে বাংলাদেশের ব্যাটিং গুঁড়িয়ে দেওয়ার পথে বোল্ট দেখা পেলেন দারুণ এই ব্যক্তিগত মাইলফলকের।

২৯৬ উইকেট নিয়ে ম্যাচটি শুরু করেন বোল্ট। দ্বিতীয় দিন দ্বিতীয় সেশনে প্রথম স্পেলে আউট করেন তিনি সাদমান ইসলাম ও নাজমুল হোসেন শান্তকে। এরপর শেষ সেশনের শুরুতেই লিটন দাসকে বিদায় করে এগিয়ে যান আরেক ধাপ। পরে পুরনো বলে মিরাজের বেলস উড়িয়ে ৩০০ পূর্ণ করে দর্শকদের উদ্দেশে তিনি উঁচিয়ে ধরেন বল।

নিউ জিল্যান্ডের হয়ে টেস্টে ৩০০ উইকেট আছে আর কেবল তিনজন বোলার। ৪৩১ উইকেট নিয়ে সবার ওপরে স্যার রিচার্ড হ্যাডলি। খেলোয়াড়ী জীবনেই ‘নাইটহুড’ পাওয়া এই পেস বোলিং অলরাউন্ডার একসময় ছিলেন টেস্ট ইতিহাসের সর্বোচ্চ উইকেট শিকারী।

৩৬১ উইকেট নিয়ে দুইয়ে আছেন সাবেক বাঁহাতি স্পিনার ড্যানিয়েল ভেটোরি। বোল্টের দীর্ঘদিনের বোলিং জুটির সঙ্গী টিম সাউদি এখন তিনে ৩২৮ উইকেট নিয়ে।

হ্যাডলির ৩০০ উইকেট ছুঁতে লেগেছিল স্রেফ ৬১ টেস্ট। তখন তিনি ছিলেন টেস্ট ইতিহাসের দ্বিতীয় দ্রুততম। অস্ট্রেলিয়ান কিংবদন্তি ডেনিস লিলি ৫৫ টেস্টে ৩০০ ছুঁয়ে গড়েছিলেন রেকর্ড। পরে হ্যাডলিকে তিনে ঠেলে লঙ্কান স্পিন গ্রেট মুত্তিয়া মুরালিধরন ৫৮ টেস্টে পা রাখেন মাইলফলকে। পরে অবশ্য সবাইকে ছাড়িয়ে যান রবিচন্দ্রন অশ্বিন, মাত্র ৫৪ টেস্টেই ৩০০ উইকেট নিয়ে।

বোল্টের ৩০০ উইকেটে লাগল ৭৫ টেস্ট, নিউ জিল্যান্ডের হয়ে তিনি দ্বিতীয় দ্রুততম। সাউদির লেগেছিল ৭৬ টেস্ট।

বোল্ট পরে সেখানেই না থেমে শরিফুল ইসলামকে বোল্ড করে পূর্ণ করেন ইনিংসে ৫ উইকেট। টেস্ট ক্যারিয়ারে যা তার নবম।

একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে