মেসি ঝলকে পিএসজির ঘুরে দাঁড়ানো জয়

মেসি ঝলকে পিএসজির ঘুরে দাঁড়ানো জয়

ক্রীড়া ডেস্ক : একটি গোলও পাননি লিওনেল মেসি। তারপরও সেন্ত এতিয়েনের বিপক্ষে প্যারিস সেন্ত জার্মেইয়ের জয়ের নায়ক তিনি। লিগ ওয়ান ম্যাচে ঘুরে দাঁড়িয়ে তাদের ৩-১ ব্যবধানে জয়ের পথে তিনটি গোলেই সহায়তা করেছেন আর্জেন্টাইন অধিনায়ক। মারকিনুসকে দিয়ে দুটি ও আর্জেন্টাইন সতীর্থ আনহেল দি মারিয়াকে দিয়ে একটি গোল করিয়েছেন মেসি। তবে কষ্টার্জিত এই জয়ের আনন্দ বিষাদে রূপ নিয়েছে শেষ মুহূর্তে স্ট্রেচারে করে নেইমারের মাঠ ছাড়ার দৃশ্যে।

রোববার ২০৭ দিন মাঠের বাইরে কাটিয়ে পিএসজির হয়ে অভিষেক হয়েছে সের্হিয়ো রামোসের। স্প্যানিশ ডিফেন্ডারের স্মরণীয় ম্যাচে ঘরের মাঠে ৪৫ মিনিটে ১০ জনের দলে পরিণত হয় সেন্ত এতিয়েনে। শুরুতেই এগিয়ে যাওয়ার সুবিধা তাই তারা ধরে রাখতে পারেনি। প্রথমার্ধেই মারকিনুসের গোলে সমতায় ফেরা পিএসজি দ্বিতীয়ার্ধের শেষ ১১ মিনিটে জোড়া লক্ষ্যভেদে ৩ পয়েন্ট নিয়ে ফিরেছে। তাদের তিনটি গোলেই আছে মেসির ছোঁয়া।

আক্রমণের ওপর আক্রমণ চালিয়েছে পিএসজি। পঞ্চম মিনিটে তারা গোলের আনন্দেও মেতেছিল নেইমার বল জালে জড়ালে। মেসির পাস থেকে ফাঁকায় প্লেসিং শটে লক্ষ্যভেদ করেন ব্রাজিলিয়ান ফরোয়ার্ড। কিন্তু ভিএআরে ধরা পড়ে তিনি অফসাইডে ছিলেন। এরপর মেসি-নেইমার-কিলিয়ান এমবাপ্পে-দি মারিয়াদের নিয়ে গড়া পিএসজির আক্রমণভাগ বেশ কয়েকবার কাঁপিয়ে দিয়েছে স্বাগতিকদের রক্ষণ।

অথচ ম্যাচের প্রথম গোলটি পায় সেন্ত এতিয়েনে। ২৩ মিনিটে স্বাগতিকদের এগিয়ে নেন দেনিস বুয়ানগা। তার এক সতীর্থ শট করেছিলেন গোলমুখে। কিন্তু বল প্রতিহত করেন গোলকিপার জিয়ানলুইজি দোনারুম্মা। ফিরতি বলে শট করে লক্ষ্যভেদ করেন বুয়ানগা।

গোলশোধে মরিয়া পিএসজি আক্রমণ করলেও সফল হতে পারছিল না। তবে তাদের কাজ সহজ করে দেন স্বাগতিক ডিফেন্ডার তিমোথি কোলোজিকজাক! এমবাপ্পেকে বাজেভাবে ফাউল করে তিনি সরাসরি লাল কার্ড দেখলে ১০ জনের দলে পরিণত হয় সেন্ত এতিয়েনে। সেই সুযোগে প্রথমার্ধের যোগ করা সময়ের দ্বিতীয় মিনিটে হেডে লক্ষ্যভেদ করে পিএসজিকে সমতায় ফেরান মারকিনুস। মেসির ফ্রি কিকে লাফিয়ে উঠে মাথা ছুঁয়ে জাল খুঁলে নেন এই ডিফেন্ডার।

দ্বিতীয়ার্ধে আরও চড়াও হয় পিএসজি। কিন্তু ফিনিশিংয়ের সমস্যা ও সেন্ত এতিয়েনের জমাট রক্ষণ ভাঙতে না পারায় গোল পাচ্ছিল না। অবশেষে দি মারিয়ার আড়াআড়ি শটে এগিয়ে যায় সফরকারীরা। মেসির চিপে বক্সের ভেতর বল পেয়ে সুযোগ নষ্ট করেননি এই আর্জেন্টাইন।

এরপর দ্বিতীয়ার্ধের যোগ করা সময়ে মেসির তৃতীয় অ্যাসিস্টে আবারও স্কোরশিটে নাম তোলেন মারকিনুস। কিন্তু এর আগেই বড় এক ধাক্কা খায় পিএসজি। চোট পেয়ে স্ট্রেচারে করে মাঠ ছাড়তে হয়েছে নেইমারকে।

একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে