যশোরে কেন্দ্র দখল করে নৌকায় ওপেন সিল মারার নির্দেশনা

যশোরে কেন্দ্র দখল করে নৌকায় ওপেন সিল মারার নির্দেশনা

মোল্লা মশিউর: সেন্টার দখলসহ নৌকায় ওপেন সিল মারার নির্দেশ দিয়েছেন যশোর সদর উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান ও জেলা ছাত্রলীগের সাবেক সাধারণ সম্পাদক আনোয়ার হোসেন বিপুল। বৃহস্পতিবার (৩০ ডিসেম্বর) আরবপুর ইউপি নির্বাচনে ২ নম্বর ওয়ার্ডের নির্বাচনী সমাবেশ থেকে এসব নির্দেশ দেন।

ওইদিন বিকেলে বালিয়া ভেকুটিয়া স্কুল মাঠে নৌকার প্রার্থী মীর আরশাদ আলী রহমানের নির্বাচনী সমাবেশ ছিল। সেখানে এই নির্দেশ দেন। বিপুলের এই নির্দেশ সংক্রান্ত একটি ভিডিও ফেসবুকসহ সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ছড়িয়ে পড়েছে। যা এরই মধ্যে ভাইরাল হয়েছে। আর এটি নিয়ে খোদ আওয়ামী লীগের নেতা-কর্মী থেকে শুরু করে সর্বসাধারণের মধ্যে আলোচনা-সমালোচনার ঝড় উঠেছে। সেই সাথে বিদ্রোহী প্রার্থীর কর্মী-সমর্থকসহ সাধারণ ভোটারদের মধ্যে আতঙ্ক ছড়িয়ে পড়েছে।

ভিডিওতে দেখা যায়, সমাবেশে সদর উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান আনোয়ার হোসেন বিপুল বক্তব্য দিচ্ছেন। বক্তব্যে তিনি বলেন, আরবপুর ইউনিয়নের এই ওয়ার্ডে চেয়ারম্যান প্রার্থী অন্য যারা আছে, তাদের পোলিং এজেন্ট থাকবে না। উপস্থিত নেতাকর্মীদের উদ্দেশ্যে বিপুল বলেন, এই ওয়ার্ডে ভোট কত? তখন প্রতিউত্তরে নেতা-কর্মীরা বলেন-৪২শ’। উত্তর শুনে তিনি বলেন, এরমধ্যে কত ভোট নৌকায় দেবেন? সমাবেশ থেকে বলা হয়-‘চার হাজার ভোট দেব। তাহলে কি আর বক্তব্য দেয়ার প্রয়োজন আছে চাচা, প্রশ্ন করেন বিপুল ?’ এ সময় নৌকার কর্মী-সমর্থকরা করতালী দেন।

তিনি বলেন, জামায়াত-বিএনপির ভোটারদের ভোটের মাঠে আসার দরকার নেই। নৌকার যারা ভোটার, শুধুমাত্র তারাই ভোটের মাঠে আসবে। সেন্টার আপনারা দখল করবেন। নৌকার লোকজনের দখলে থাকবে ভোটের মাঠ। আর যারা মেম্বর প্রার্থী হয়েছেন, তাদের অনুরোধ করবো, মেম্বর নির্বাচিত হবেন নৌকার ভোটে, জামায়াত বিএনপির ভোটে মেম্বর নির্বাচিত হওয়ার কোনো প্রয়োজন নাই।

কারা বিএনপি করে, কারা জামায়াত করে এটা আপনারা কিন্তু প্রতিটা পাড়া মহল্লায় চেনেন। জাতীয়ভাবে তারা স্থানীয় সরকার নির্বাচন বয়কট করেছে। সুতরাং তাদের ভোটের মাঠে আসার অধিকার নাই। তারা যদি ভোটের মাঠে আসতে চায়, তাহলে বাড়ি ফেরত পাঠিয়ে দেবেন।

বক্তব্য শেষ করার আগে বিপুল আবারও বলেন, আরেকটি কথা হচ্ছে, নৌকায় সবাইকে ওপেন সিল মারতে হবে। টেবিলেই সিল মারবেন। মেম্বর ভোট বুথে যেয়ে মারবেন। যার যার পছন্দের মেম্বর বুথে যেয়ে মারুক তাতে আমাদের কোনো আপত্তি নাই। বাট নৌকার ভোট সবাইকে ওপেন মারতে হবে। সকলের সুস্বাস্থ কামনা করে তিনি বলেন, এই অঞ্চলে নৌকার বাইরে অন্য কোন প্রার্থীর পোলিং এজেন্ট থাকতে পারবে না। এগেনেস্ট প্রার্থী ভোট পাবে শূন্য।
এ ব্যাপারে আনোয়ার হোসেন বিপুলের সাথে যোগাযোগ করা হলে তিনি বলেন, নৌকার জন্য যা করার করছি। নৌকার বিরোধীরা ভিডিও ভাইরাল করছে, এতে কিছু যায়-আসে না।

একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে