বুধবার, নভেম্বর ৩০, ২০২২

যশোরে টিকার আওতায় ২৪ লক্ষাধিক মানুষ

করোনার ভয় যেন পুরোপুরি জয়

এসআই ফারদিন :

করোনার ভয় যেন পুরোপুরি জয় করেছেন যশোরবাসী। শহর-গ্রাম কোথাও করোনার ভয় লক্ষ্য করা যাচ্ছে না। ব্যবহার করছে না মাস্ক কিংবা হ্যান্ড স্যানিটাইজার। আধা ঘণ্টা অন্তর হাত ধুয়ার কথাও যেন ভুলে গেছেন অধিকাংশ মানুষই।

যশোর সিভিল সার্জন ডা. বিপ্লব কান্তি বিশ্বাস অবশ্য বলছেন, করোনার বারবার ধরণ পাল্টাচ্ছে। যখন তখন আবার মাথা চাড়া দিয়ে ওঠা অসম্ভব কিছু নয়। তাই স্বাস্থ্যবিধি থেকে সরে আসা যাবে না। তিনি আরো বলেন, যশোরে প্রথম ডোজ ও দ্বিতীয় ডোজ গ্রহতীরা সংখ্যা অনেক।

যশোর স্বাস্থ্য বিভাগের তথ্য মতে, চলতি বছরের ২৮ সেপ্টেম্বর পর্যন্ত করোনার প্রথম ডোজ টিকা গ্রহণ করেছে ২৪ লক্ষ ৩৭ হাজার ৯০জন। সর্বশেষ আদমশুমারি অনুযায়ী শিশুসহ এ জেলার জনসংখ্যা ৩০ লক্ষ ৭৬ হাজার ৮৪৯জন। সরকার শিশুদের টিকা এখনো দেয়নি। ফলে শিশুদের তথ্য বাদ দিলে খুব অল্প লোক টিকার বাইরে রয়েছে।

এদিকে করোনার দ্বিতীয় ডোজ টিকা গ্রহণ করেছে ২২ লক্ষ ৯২ হাজার ৮৯১জন। অপরদিকে করোনার বুস্টার ডোজ টিকা গ্রহণ করেছে ৯ লক্ষ ৮১ হাজার ৭০ জন। তার মধ্যে সদরে ২ লক্ষ ৭৭ হাজার ৯৬৫ জন, মণিরামপুরে ১ লক্ষ ৫২ হাজার ৯৮৯, কেশবপুরে ৯৫ হাজার ৫২৬, অভয়নগরে ৮৭ হাজার ৭৫৯, শার্শায় ১ লক্ষ ১৬ হাজার ৪৩৬, চৌগাছায় ৮০ হাজার ৯৫১, ঝিকরগাছায় ৮৯ হাজার ২৬৪ ও বাঘারপাড়ায় টিকা নিয়েছে ৮০ হাজার ১৯০ জন। টিকার এই অগ্রগতিতে খুশি স্বাস্থ্য বিভাগ।

বুধবার দুপুরে পালবাড়ি বাসের অপেক্ষায় ছিলেন তাসনিয়া আফরোজা নামে এক পথযাত্রী। মাস্ক না পরার বিষয়ে জানতে চাইলে তিনি বলেন, বুস্টার ডোজ নিয়েছি। এখন আর মাস্ক পরে কি হবে? টিকা নেওয়ার পরও অনেকের আক্রান্ত হওয়ার কথা মনে করিয়ে দিলে বিষয়টি এড়িয়ে যান তিনি।

হাসপাতালের প্রধান ফটকে কথা হয় চিকিৎসা নিতে আসা মধ্যবয়সী রেজওনুল হকের সঙ্গে। মুখে মাস্ক না থাকার বিষয়ে জানতে চাইলে শহরের ঘোপ সেন্ট্রাল রোড থেকে আসা এই ব্যক্তি বলেন, আমি তো টিকা নিছি। মাস্ক পরলে দম আটকায়, তাই পরতে পারি না।

সিটি প্লাজা শপিং কমপ্লেক্স, জেস টাওয়ার ও কালেক্টরেট মার্কেটসহ কয়েকটি মার্কেটে সরেজমিনে দেখা যায়, এই বিপনীবিতান গুলিতে কেনাকাটা করতে আসা বেশিরভাগ মানুষের মুখে মাস্ক নেই। কোনো রকম স্বাস্থ্যবিধি ছাড়াই তারা অবাধে ঘোরাফেরা করছেন।

সাইফুল ইসলাম নামে এক যুবক মাস্ক না পরার বিষয়ে বলেন, আমি অতো মানুষের ভিড়ে যাই না। জরুরি কাজে বের হয়েছিলাম। মাস্ক পরা হয়নি তবে পরা দরকার ছিল।

যশোর ২৫০ শয্যা বিশিষ্ট জেনারেল হাসপাতালের তত্ত্বাবধায়ক ডা. মো. আখতারুজ্জামান বলেন, জ্বর, সর্দি, কাশি হলেও অনেকে করোনা পরীক্ষা করছেন না। কারো উপসর্গ দেখা দিলে এবং সংক্রমিত মানুষের সংস্পর্শে গেলে তাদের করোনা পরীক্ষা করার জন্য অনুরোধ করার পরামর্শও দিয়েছেন তিনি।

একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে

সর্বশেষ

পাইকগাছায় আইন শৃংখলা কমিটির সভা অনুষ্ঠিত

পাইকগাছা প্রতিনিধি :পাইকগাছা উপজেলা আইন শৃংখলা ও মাসিক সাধারণ সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে। মঙ্গলবার সকালে...

মোরেলগঞ্জে শেখ রাসেল শিশু পার্ক উদ্বোধন

মোরেলগঞ্জ প্রতিনিধি: বাগেরহাটের মোরেলগঞ্জে শিশু বিনোদনের শেখ রাসেল শিশু পার্কের আনুষ্ঠানিক উদ্বোধন করেছেন বাগেরহাট...

মহেশপুরে ভাতিজার হাতে চাচি খুন

মহেশপুর প্রতিনিধি : ঝিনাইদহের মহেশপুরে জমিসংক্রান্ত বিরোধের জের ধরে ভাতিজার মারপিটে চাচি রিজিয়া খাতুন...

মহেশপুরে একাধিক মামলার আসামি টিটনকে কুপিয়ে হত্যা

মহেশপুর প্রতিনিধি: মহেশপুর উপজেলার ধানহাড়িয়া গ্রামে জীবন চৌধুরী ওরফে টিটন (৩০) নামে একজনকে কুপিয়ে...

অভয়নগরে দুই মাদক বিক্রেতা আটক

অভয়নগর প্রতিনিধি: অভয়নগরে এপিবিএন পুলিশের অভিযানে ৫শ’ গ্রাম গাঁজা ও এক বোতল ফেনসিডিল ও...

জীবননগরের ২৫ দিনেও সন্ধান মেলেনি মানসিক প্রতিবন্ধী জসিমের

জীবননগর প্রতিনিধি: চুয়াডাঙ্গার জীবননগর উপজেলার প্রতাপপুর গ্রামের মাননিক প্রতিবন্ধি জসিম উদ্দিন (৩৭) দীর্ঘ ২৬...