যশোরে ভূমি কর্মকর্তাসহ দুইজনের নামে আদালতে মামলা

যশোর

নিজস্ব প্রতিবেদক: যশোর সদরের রামকৃষ্ণপুর মৌজার একটি জালিয়াতি করে লিখে নেয়ার অভিযোগে ইউনিয়ন ভূমি সহকারী কর্মকর্তাসহ দুইজনকে আসামি করে আদালতে মামলা হয়েছে। বৃহস্পতিবার রামকৃষ্ণপুর গ্রামের নজরুল ইসলাম বাদী হয়ে এ মামলা করেছন। সিনিয়র জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতের বিচারক মঞ্জুরুল ইসলাম অভিযোগের তদন্ত করে পুলিশ ব্যুরো অব ইনভেস্টিগেশনকে প্রতিবেদন জমা দেয়ার আদেশ দিয়েছেন।

মামলার আমামিরা হলেন যশোর সদরের ইছালী ইউনিয়ন ভূমি সহকারী কর্মকর্তা আব্দুর রাজ্জাক ও রামকৃষ্ণপুর গ্রামের শামসুল হক মোল্যা।

মামলার অভিযোগে জানা গেছে, অহেদ আলী জীবীত থাকা কলে তার ছেলে নজরুল ইসলাম ১০২৮ দাগের ৪৬ শতক জমির মধ্যে ২০০০ সালের ২ জানুয়ারি ৯ শতক জমি কেনেন। একই দাগের ৩ শত জমি ২০২০ সালের ২৫ ফেব্রুয়ারি অপর ছেলে জিয়াউর রহমান বিক্রি করেন একই গ্রামের ইজাহার আলীর কাছে। এর আগে ১৯৯২ সালে অহেদ আলী একই দাগের ৬ শতক জমি শামসুল হকের নামে দলিল করে দেন। ৯১ সালে তিনি আসামি শামসুল হক মোল্যার নামে দলিল করে দেন ৭ শতক জমি। শামসুল হক মোল্যা জালিয়াতির মাধ্যমে সকল দলিল পরিবর্তন করে নিজের নামে দলিল তৈরি করে নেন। এরপর ভূমি সহকাী কর্মকর্তা আব্দুর রজ্জাককে ম্যানেজ করে জাল দলিলে স্বাক্ষর করে নামজারি কেসের মাধ্যমে ওই দাগের ৩০ শতক জমি নামত্তন করে নেয়। আসামি শামসুল হক গত বছরের ২৩ নভেম্বর এ দাগের ৩০ শতক জমি তার বলে দাবি করলে বিষয়টি জানাজানি হয়। ১ ডিসেম্বর ভূমি অফিস থেকে কাগজ-পত্র তুলে জালিয়াতির বিষয়টি নিশ্চিত হয়ে তিনি আদালতে এ মামলা করেছেন।

একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে