Wednesday, May 18, 2022

সঞ্চয়পত্রে হাত মধ্যবিত্তের

মেয়াদ পূর্ণ হাবার আগেই ভাঙতে বাধ্য হচ্ছেন গ্রাহক

‘যশোর সঞ্চয় অফিস থেকে ফেরুয়ারি-মার্চ মাসে ২২ কোটি ৫৫ লাখ টাকা তুলে নেয়া হয়েছে’

আবদুল কাদের: প্রাণঘাতী করোনাভাইরাসের (কোভিড-১৯) কারণে গত দুই বছর ছিল স্থবির। গোটা দেশ লকডাউনের কবলে ছিল কয়েক মাস। এতে করে কার্যত স্থবির হয়ে পড়ে অর্থনীতির চাকা। আর মাত্র এক সপ্তাহ পর মুসলমান ধর্মের সর্ববৃহৎ উৎসব ঈদুল ফিতর। বাজার ব্যবস্থা অস্বাভাবিক থাকায় মানুষের আয় কমে গেছে। যেকারণে বাধ্য হয়ে ব্যাংকে থাকা মেয়াদী আমানত (ফিক্সড ডিপোজিট বা এফডি) ও সঞ্চয়ী আমানত প্রকল্পের (ডিপিএস) মতো সঞ্চয়ে টান পড়েছে। মেয়াদ পূর্ণ হওয়ার আগেই এসব সঞ্চয় থেকে অর্থ তুলে নিচ্ছেন অনেক গ্রাহক।

এফডি, ডিপিএসের মতো সঞ্চয় নগদায়ন করতে ব্যাংকের শাখায় হাজির হচ্ছেন অনেক গ্রাহক। এ ধরনের গ্রাহকের সংখ্যা বেড়েই চলেছে প্রতিদিন। কিছু গ্রাহক এফডি বা ডিপিএস মেয়াদ পূর্তির আগেই ভাঙাতে পারলেও অনেককেই ফেরত পাঠাচ্ছেন ব্যাংকাররা। আবার অনেক ব্যাংকারই গ্রাহকের সঙ্গে সম্পর্ক রক্ষায় এফডি নগদায়ন করে দিচ্ছেন। কোনো কোনো ক্ষেত্রে এফডি নগদায়ন না করে গ্রাহকদের প্রয়োজন অনুযায়ী ঋণ দিচ্ছেন অনেক ব্যাংক। অন্তত এক ডজন ব্যাংকের যশোর শাখার কর্মকর্তারা এসব তথ্য জানিয়েছেন। তবে যারা ইন্স্যুরেন্সে ডিপিএস করেছেন তাদের পোহাতে হচ্ছে চরম ভোগান্তি। তাদেরকে নগদায়ন করে দেয়া হচ্ছেনা।

শহরের রেজোয়ান আহমদ নামে এক মোটরপার্টস ব্যবসায়ী ১২ বছর মেয়াদী ডিপিএস করেছিলেন শাহজালাল ইসলামী ব্যাংক যশোর শাখায়। ১০ বছর পার হয়েছিল তার। কিন্তু টাকার প্রয়োজনে তিনি মেয়াদ পূর্ণ হাবার আগেই ভেঙে ফেলেছেন গত সপ্তাহে। শহরের বেজপাড়ার বাসিন্দা সাইদ হাসান জানান, তিনি একটি ব্যবসা প্রতিষ্ঠানে অল্প বেতনে চাকরি করেন। বেতন তার না বাড়লেও প্রতিদিন ব্যয় বাড়ছে। ওষুদের দাম অস্বাভাবিক বেড়েছে। এতে বাধ্য হয়ে তার প্রতিমাসে ৫শ’ টাকার ডিপিএস চালাতে না পেরে ভেঙে ফেলেছেন।

পরিস্থিতি দিন দিন খারাপ হচ্ছে উল্লেখ করে ওয়ান ব্যাংক খুলনা জোন প্রধান আবু সাইদ মো. আবদুল মান্নাফ বলেন, ‘মানুষের আয়ের কোনো পথ নেই। খরচ বাড়ছে প্রতিনিয়ত, অনেক বড় ব্যবসায়ীও মেয়াদী আমানত ভাঙাতে আসছেন। এ ধরনের গ্রাহকের সংখ্যা অনেক। তবে পরিস্থিতি দিন দিন খারাপের দিকেই যাচ্ছে। সামনের দিনগুলোয় ভালো কিছু দেখছি না। মেয়াদ পূর্ণ হওয়ার আগে এফডি বা ডিপিএস নগদায়ন করে দিলে ব্যাংকেরই লাভ। এক্ষেত্রে গ্রাহক অনেক কম মুনাফা পান। এজন্য মানবিক দিক বিবেচনা করে আমরা গ্রাহকদের প্রয়োজনের কথা শুনছি। এখন গ্রাহকের প্রয়োজন এমন অর্থ এফডি বা ডিপিএসের চেয়ে কম হলে আমরা তাকে ছোট অংকের ঋণ দিচ্ছি। গ্রাহক একেবারেই অপারগ হলে মেয়াদ শেষ হওয়ার আগেই এফডি নগদায়ন করে দেয়া হচ্ছে।

বাংলাদেশ ব্যাংক খুলনা অফিস সূত্রে জানা গেছে, যশোরে সরকারি-বেসরকারি মিলিয়ে ৪০টি ব্যাংক রয়েছে। এসব ব্যাংকে অ্যাকাউন্ট রয়েছে প্রায় দুই লাখ। যেখানে আমানত রয়েছে দুই হাজার কোটি টাকা।

ইউনাইটেড কমার্শিয়াল ব্যাংক (ইউসিবিএল) খুলনা জোন প্রধান ফকির আক্তারুল আলম জানান, সাধারণত সমাজের উচ্চবিত্ত ও মধ্যবিত্ত শ্রেণি ব্যাংকগুলোতে মেয়াদী আমানত রাখেন। চাকরি থেকে অবসরে যাওয়া জনগোষ্ঠীর একটি অংশও ব্যাংক বা সঞ্চয় অফিসে মেয়াদী আমানত রেখে মুনাফার প্রত্যাশায় থাকেন। কিন্তু করোনা পরিস্থিতিতে এই শ্রেণিটির কাছে নগদ অর্থের টান পড়েছে। এ কারণে মেয়াদ পূর্ণ হওয়ার আগেই এফডি বা ডিপিএস ভাঙাতে সঞ্চয় অফিস ও ব্যাংকগুলোতে ভিড় করছেন তারা। ইস্টার্ন ব্যাংক যশোর শাখার ব্যবস্থাপক আবদুল হক বলেন, গত কয়েক মাস ধরে গ্রাহকরা তাদের সঞ্চয় মেয়াদ পূর্ণ হবার আগেই তুলে নিচ্ছেন। বাজার পরিস্থিতি অস্বাভাবিক হওয়ার কারণে মানুষের আয়ের সাথে ব্যয়ের পার্থক্য বেশি থাকছে। বাধ্য হয়ে তারা জমানো টাকা তুলে ব্যবহার করছেন।

যশোর জেলা সঞ্চয় অফিসের সহকারী পরিচালক মো. আলাউদ্দিন জানান, আমাদের ২০২০-২১ অর্থবছরে আমানতের লক্ষ্যমাত্রা ছিল ২১৫ কোটি ৮ লাখ টাকা। প্রতিমাসে গ্রাহকরা মেয়াদ পূর্ণ হাবার আগেই সঞ্চয় ভেঙে ফেলছেন। আবার মেয়াদ শেষে অনেকে আর বিনিয়োগ করছে না। গত ফেরুয়ারি মাসে আমাদের এখান থেকে ৮ কোটি ৩২ লাখ টাকা ভেঙে নিয়েছেন গ্রাহকরা। মার্চ মাসে তুলে নিয়েছেন ১৪ কোটি ২৩ লাখ টাকা।

এ ব্যাপারে যশোর বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের ফিন্যান্স ও ব্যাংকিং বিভাগের চেয়ারম্যান ড. জাহাঙ্গীর আলম জানান, দ্রব্যমূল্যের অস্বাভাবিক দামের কারণে মানুষের ব্যয় বেড়েছে, কিন্তু সেভাবে আয় বাড়ছে না। অনেকটা বাধ্য হয়ে তারা আমানত ভেঙে ফেলছেন। এটা ব্যাংক ব্যবস্থার জন্যও অশনি সংকেত।

এ পরিস্থিতি দেশের অর্থনীতির কাঠামোগত দুর্বলতারই বহিঃপ্রকাশ বলে মনে করেন সেন্টার ফর পলিসি ডায়ালগের (সিপিডির) সম্মানীয় ফেলো অধ্যাপক ড. মোস্তাফিজুর রহমান। তিনি বলেন, কেউ মেয়াদী আমানত নগদায়ন করে ফেলেন, তাহলে বুঝতে হবে ব্যাংক যে সুদ দিচ্ছে, তা দিয়ে বর্তমান পরিস্থিতিতে দৈনন্দিন ব্যয় মেটানো সম্ভব হচ্ছে না।

একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে

সর্বশেষ

ঢাকা মাতাবেন শিল্পা শেঠি

কল্যাণ ডেস্ক: ঢাকা মাতাতে আসছেন বলিউডের জনপ্রিয় অভিনেত্রী শিল্পা শেঠি। ঢাকায় ইভান ডান্স ট্রুপের...

যশোরে গৃহবধূর রহস্যজনক মৃত্যু

নিজস্ব প্রতিবেদক: যশোরে সুমাইয়া খাতুন নামে এক গৃহবধূর রহস্যজনক মৃত্যু হয়েছে। তার ঝুলন্ত মরদেহ...

ঝিকরগাছায় সখিনা হত্যার দায় স্বীকার প্রেমিকের

নিজস্ব প্রতিবেদক: যশোরের ঝিকরগাছায় সখিনাকে হত্যার কথা স্বীকার করে আদালতে জবানবন্দি দিয়েছে তার প্রেমিক...

শেখ হাসিনার ৪২তম স্বদেশ প্রত্যাবর্তন দিবসে বিভিন্ন স্থানে কর্মসূচি পালিত 

কল্যাণ ডেস্ক: বঙ্গবন্ধু কন্যা আওয়ামী লীগ সভানেত্রী প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার ৪২তম স্বদেশ প্রত্যাবর্তন দিবসে...
00:03:13

যশোরে বাপ্পি খুনের আসামিরা দুই সপ্তাহেও আটক হয়নি

নিজস্ব প্রতিবেদক: যশোর সদর উপজেলার ভায়না গ্রামের বাপ্পি হাসান (১৯) নামে এক তরুণ খুনের...

পদ্মা সেতুর টোল নির্ধারণে প্রজ্ঞাপন

কল্যাণ ডেস্ক: বহুল প্রত্যাশিত পদ্মা সেতুর ওপর দিয়ে চলাচলকারী যানবাহনের টোল নির্ধারণ করে প্রজ্ঞাপন...