Wednesday, July 6, 2022

সীতাকুণ্ড ট্র্যাজেডি বাকরুদ্ধ বাঘারপাড়ার ইব্রাহিমের স্বজনরা

বাঘারপাড়া প্রতিনিধি: চট্টগ্রামের সীতাকুণ্ডে বিএম কনটেইনার ডিপোতে ভয়াবহ আগুনে নিহত ইব্রাহিমের গ্রামের বাড়িতে কান্নার রোল। তাকে হারিয়ে স্বজনরাসহ গ্রামের সবাই বাকরুদ্ধ। বারবার মূর্ছা যান বাবা আবুল কাশেম মুন্সী ও মা দুলাপি বেগম। মরদেহবাহী গাড়ির সাদা গ্লাসের উপরহাত দিয়ে প্রিয় ছেলের লাশের মুখে হাত বুলিয়ে দিচ্ছিলেন মা দুলাপি বেগম। আর কান্নাকণ্ঠে বলছিলেন, আল্লাহ আমাকে কি পরীক্ষায় ফেললেন। পাশেই ইব্রাহিমের স্ত্রী মুন্নী খাতুন বিলাপ করছেন আর বলছেন- আমার ও আমার অনাগত সন্তানকে কে দেখবে। এই জীবন রেখে কি লাভ। এমন অবস্থা দেখা যায় যশোরের বাঘারপাড়া উপজেলার নরসিংহপুর গ্রামে নিহত ইব্রাহিমের বাড়িতে ।

এদিকে সোমবার জানাজা শেষে পারিবারিক কবরস্থানে তাকে দাফন করা হয়। জানাজায় আশপাশের গ্রামের সাধারণ মানুষের পাশাপাশি প্রশাসনের বিভিন্ন পর্যায়ের কর্মকর্তারাও উপস্থিত ছিলেন।

আগুনে পুড়ে মারা যাওয়া ইব্রাহিমের মৃত্যুর খবরে গত দুই দিন ধরে প্রতিবেশী ও আশেপাশের কয়েক গ্রামের লোকজন তাদের বাড়িতে ভিড় করেছেন। জীবন সঙ্গীকে হারিয়ে নয় মাসের আন্তঃসত্বা স্ত্রী মুন্নি খাতুন যেন বাকরুদ্ধ হয়ে পড়েছেন। ভাই-বোনসহ অন্যান্য স্বজনদের আহাজারিতে চারপাশ ভারী হয়ে উঠে।
স্ত্রী মুন্নী খাতুন জানান, আমার ও আমার অনাগত সন্তানকে কে দেখবে। এই জীবন রেখে কি লাভ। পাশেই বসা মুন্নীর বড়বোন রেহেনা খাতুন বলেন, মুন্নী নয় মাসের অন্তঃসত্বা। আগামী ২৮ জুলাই সন্তান ভূমিষ্ঠের সম্ভাব্য দিন। শনিবার রাত ৯টায় মুন্নীসহ তার মায়ের সাথে শেষ কথা হয়। কোরবানির ঈদে বাড়ি এসে সন্তানের মুখ দেখবে জানিয়েছিল। একই সাথে সন্তান ও মুন্নীকে চট্টগ্রামে নিয়ে যেতে চেয়েছিল। ছেলে হলে হাফেজ বানাতে চেয়েছিল। আমার বোন-জামাইয়ের সেই আশা আর পূরণ হলো না।

ইব্রাহিম প্রাণ-আরএফএল গ্রুপের এক্সপোর্ট ডিপার্টমেন্টের শিপিং সহকারী পদে চাকরি করতেন। একই প্রতিষ্ঠানের অন্য শাখায় কাজ করেন তার খালাতো ভাই নাজমুল হোসেন। তিনি বলেন, ৪ জুন রাত ৯টা থেকে সাড়ে ৯টার মধ্যে ইব্রাহিম আগুনে দগ্ধ হয়। তার আগে সে বাড়িতে মা, বাবা ও স্ত্রীসহ অন্য স্বজনদের সঙ্গে কথা বলে। তার মাথার পেছনে ও পেটে আঘাত ও আগুন লাগে। মুখ, টি-শার্ট ও মোবাইল ফোন দেখে তাকে শনাক্ত করি। উদ্ধারের সময় তার ফোনটি সচল ছিল।

আরেক খালাতো ভাই শিমুল হোসেন বলেন, ‘শনিবার রাতে অনেকের মতো ইব্রাহিমও অগ্নিকা-ের ভিডিও ফেসবুকে লাইভ করছিলেন। কিছু সময় পর হঠাৎ ডিপোর কনটেইনারগুলোতে বিকট শব্দে বিস্ফোরণ ঘটে। এরপর ঘটনাস্থলে গিয়ে খোঁজাখুঁজি করে তাকে পাওয়া যায়নি। পরদিন চট্টগ্রাম মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে গিয়ে লাশ পাওয়া যায়।

একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে

সর্বশেষ

পিঠে ছুরিবিদ্ধ খোকন নিজেই গাড়ি ভাড়া করে আসেন যশোর হাসপাতালে

নিজস্ব প্রতিবেদক : পিঠে বিদ্ধ হওয়া ছুরি নিয়ে নিজেই যশোর জেনারেল হাসপাতালে চিকিৎসা নিতে এসেছেন...

নায়কদের নামে কোরবানির গরু, আপত্তি জানালেন ওমর সানি

কল্যাণ ডেস্ক : আগামী ১০ জুলাই পবিত্র ঈদুল আজহা। মুসলিম সম্প্রদায় এই ঈদে পশু কোরবানির...

এশিয়ার বাইরের উইকেটের যে কারণে অসহায় মোস্তাফিজ

ক্রীড়া ডেস্ক : মোস্তাফিজুর রহমানের বোলিং দেখে ক্যারিয়ারের শুরুতে অনেকে তাকে বলতেন, 'জোর বল করা...

নতুন ২৭১৬ শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান এমপিওভুক্ত

কল্যাণ ডেস্ক : শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের উভয় বিভাগের আওতায় আরও ২ হাজার ৭১৬টি শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান এমপিওভুক্ত করার...

নওয়াপাড়া বন্দরে অবৈধ তালিকায় ৬০ ঘাট

অবৈধভাবে গড়ে উঠা ঘাটের কারণে কমছে নদীর নাব্যতা ৫ বছরে অর্ধশত জাহাজ ডুবিতে ক্ষতিগ্রস্ত...

মণিরামপুরে জমজমাট কোরবানির পশু হাট

আব্দুল্লাহ সোহান, মণিরামপুর : দক্ষিণবঙ্গের অন্যতম হাট মণিরামপুরের গরু-ছাগলের হাট। প্রতি শনি ও মঙ্গলবার এখানে...