Friday, August 12, 2022

২৬ সহস্রাধিক ঘরহীন মানুষ ঘর পেলো

প্রধানমন্ত্রী ২১ জুলাই সারাদেশে আশ্রয়ণ-২ প্রকল্পের তৃতীয় পর্যায়ের দ্বিতীয় ধাপের আওতায় ভূমিহীন ও গৃহহীনদের মাঝে আরো ২৬ হাজার ২২৯টি ঘরসহ জমি হস্তান্তর করেন। তিনি বলেছেন, দলমত নির্বিশেষে সবার ঠিকানাই সরকার নিশ্চিত করবে। প্রধানমন্ত্রী হিসেবে দেশের প্রতিটি নাগরিকের সুন্দর জীবন নিশ্চিত করাই আমার দায়িত্ব। কারো কাছে যদি খবর থাকে বাংলাদেশের একটি মানুষ ভূমিহীন বা গৃহহীন রয়েছে অবশ্যই আমাদের খবর দেবেন। দলমত নির্বিশেষে যেই গৃহহীন থাকবে আমরা তাদেরকেই ঘর করে দেব, ঠিকানা এবং জীবিকার ব্যবস্থা করে দেব। প্রতিটি মানুষ সুন্দরভাবে বাঁচবে সেটাই আমি চাই। আমার বাবার সেটাই শিক্ষা। যে কারণে এদেশের প্রত্যেকটি মানুষের আমি সুন্দর জীবন জীবিকার ব্যবস্থা করে দিয়ে যেতে চাই।ঘরহীনরা নিজস্ব জমিতে আধাপাকা ঘরে ওঠবেন পরিবার পরিজন নিয়ে। আর এমন ব্যবস্থাটি করে দিয়েছেন মানব দরদী প্রধানমন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনা।

‘আশ্রয়নের অধিকার, শেখ হাসিনার উপহার’ এ স্লোগানকে সামনে নিয়ে গৃহহীনদের এ ঘর দেয়া হচ্ছে। মানুষের সেবার ব্রত নিয়ে কাজ করলে সমাজ দ্রুত এগিয়ে যায়। সম্পদ অর্থ সুযোগ সুবিধা পরিবেশ সবই আছে। শুধু চোখ কান খোলা রেখে কাজ করলেই হয়। কিন্তু কেউ এ কথাটা বুঝতে চান না যে, যিনি জনগণের সেবার দায়িত্ব নিতে ভোট প্রার্থনা করে নির্বাচিত হন তিনি আর মানুষর কাছে যান না, মনে রাখেন না মানুষের কথা। আর অতি সাধারণ মানষের কথা মনে রাখার তো প্রশ্নই আসে না। দেশ পরিচালকের আসনটি কিন্তু নিজের আভিজাত্য ক্ষমতা প্রদর্শনের জন্য জন্য নয়। ওই আসনের সামনের মানুষগুলো তার মান। তারা আশরাফ- আতরাফ, নিরন্ন-বুভুক্ষ যাই হোক তাদের সম্মান দিতে হবে। মানব সেবার মাধ্যমে যে আভিজাত্য প্রতিষ্ঠিত হয় সেটিই প্রকৃত আভিজাত্য।

‘এই দুনিয়ার যত নিঃস্ব মানুষ নাই যাদের ঠিকানা / বঞ্চিত, ব্যথাহত, নিপীড়িত, লাঞ্ছিত তাদের কথা ভুলনা / তারাই তোমাদের মান / দিতে হবে সম্মান।’ বিখ্যাত এই সঙ্গীতের প্রতিটি বাক্য জীবন্ত হয়ে উঠেছে প্রধানমন্ত্রীর এ উপহারে। ঠিকানাহীন বঞ্চিত, ব্যথাহত, নিপীড়িত, লাঞ্ছিত মানুষ স্থায়ী ঠিকানা পাওয়ায় ইতিহাসের এক স্বর্ণোজ্জ্বল অধ্যায় রচিত হলো।

প্রধানমন্ত্রী এ কথাটি বাস্তবভাবে ফুটিয়ে তুলেছেন। এ এক অনন্য মহানুভবতা। সুবিধাভোগীরা এখন ছিন্নমূলের গ্লানিমুক্ত হয়ে পাবে সামাজিক মর্যাদা। প্রধানমন্ত্রী এমনিভাবে দেশের অতি সাধারণ স্তরের মানুষের সাথে স্বজনের মতো ব্যবহার করেন। প্রজাতন্ত্রের মানুষের জন্য একজন প্রধানমন্ত্রীর যা করা উচিত জননেত্রী শেখ হাসিনা তাই করছেন। তার মহানুভবতায় দেশের অনেক অসহায় মানুষ পেয়েছে চিকিৎসা, শিক্ষা ও অন্যান্য সুবিধা।

একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে

সর্বশেষ

রোহিঙ্গা ক্যাম্প যেন অপরাধীদের অভয়ারণ্য

১০ আগস্ট উখিয়ার রোহিঙ্গা ক্যাম্পে সন্ত্রাসীদের গুলিতে দুই রোহিঙ্গা মাঝি নিহত হয়েছেন। ১২টার দিকে...

নেতাকর্মীদের রাজপথ দখলের আহ্বান মির্জা ফখরুলের

কল্যাণ ডেস্ক : দলের নেতাকর্মীদের রাজপথ দখলের আহ্বান জানিয়ে বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর...

তালেবানের শীর্ষ নেতা রহিমুল্লাহ হাক্কানি নিহত

কল্যাণ ডেস্ক : বোমা হামলায় নিহত হয়েছেন আফগানিস্তানে তালেবানের শীর্ষ নেতা রহিমুল্লাহ হাক্কানি। তালেবান প্রশাসনের...

শোক দিবসে যশোর পৌর আ’লীগের বৃক্ষরোপণ

নিজস্ব প্রতিবেদক : জাতির জনক শেখ মুজিবুর রহমানের ৪৭ তম শাহাদাত বার্ষিকী ও জাতীয় শোক...

জ্বালানি তেলসহ দ্রব্যমূল্য বৃদ্ধির প্রতিবাদে যশোরে এনডিএফ’র বিক্ষোভ

নিজস্ব প্রতিবেদক : বৃহস্পতিবার দুপুরে যশোর শহরের মাইকপট্টি থেকে জাতীয় গণতান্ত্রিক ফ্রন্ট (এনডিএফ) জেলা কমিটির...

ন.পাড়া নৌবন্দরে আরও ২৩ অবৈধ ঘাট উচ্ছেদ

কামরুল ইসলাম, অভয়নগর : নওয়াপাড়া নৌবন্দরে আরও ২৩টি অবৈধ ঘাটের স্থাপনা উচ্ছেদ করা হয়েছে। বৃহস্পতিবার...