বিজয়ের ৫০ বছর পূর্তি : শুরু হলো পুনশ্চ’র গণসংগীত উৎসব (ভিডিও)

পুনশ্চ যশোর
প্রদীপ প্রজ্জ্বলনের মাধ্যমে অনুষ্ঠানের সূচনা করেন পল্লী উন্নয়ন ও সমবায় মন্ত্রণালয়ের প্রতিমন্ত্রী স্বপন ভট্টাচার্য্যসহ অন্যান্য অতিথিরা। ছবি : কল্যাণ

সালমান হাসান : সন্ধ্যাছায়ায় ডুবছে চারপাশ। শিল্পীরা আসছেন একের পর এক। অপেক্ষায় টাউন হল মাঠের শতাব্দি বটতলের রওশন আলী মঞ্চ। চলছে অপেক্ষার পালা জাতীয় গণসংগীত উৎসব উদ্বোধনের। মঙ্গলপ্রদীপ প্রজ্জ্বলনের মধ্য দিয়ে সূচনা হয় তিন দিনের উৎসবের। উদ্বোধনের পর দরদভরা কন্ঠে একেরপর এক গীত হয় জীবনমুখি সব গান। মানুষের জীবন সংগ্রাম গাথায় ভরপুর গণসংগীতে শ্রোতাদের হৃদয় ছুঁয়ে যায়। ঢাকার পাশাপাশি দক্ষিণাঞ্চলের শিল্পীদের গণসংগীতেও উদ্দীপ্ত হন শ্রোতারা।

উদ্বোধনী পর্বের আলোচনায় স্থানীয় সরকার পল্লী উন্নয়ন ও সমবায় প্রতিমন্ত্রী স্বপন ভট্টাচার্য্য বলেন, যে রাজনীতির মধ্যে সংস্কৃতি নেই, সেই রাজনীতি নিষ্ঠুর। সংস্কৃতি বিবর্জিত রাজনীতি কখনও কল্যাণকর নয়। তিনি আরও বলেন, যথার্থ সময়ে এই গণসংগীত উৎসবের আয়োজন হয়েছে। কারণ স্বাধীনতার চেতনা আজ আক্রান্ত। এমন একটি সময়ে এই আয়োজন যথাযথ।

‘ঘোর আঁধারে পথ দেখাবে আগুনের নিশান’-প্রতিপাদ্য নিয়ে তিন দিনব্যাপী জাতীয় গণসঙ্গীত উৎসব আয়োজন করেছে পুনশ্চ। বিজয়ের ৫০ বছর পূর্তিতে সাংস্কৃতিক সংগঠনটির এমন আয়োজন। আজ বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় ঐতিহাসিক টাউন হল ময়দানের শতাব্দী বটমূলে রওশন আলী মঞ্চে উৎসবের উদ্বোধন করেন প্রতিমন্ত্রী স্বপন ভট্টাচার্য্য। ২৭ নভেম্বর পর্যন্ত টাউন এই উৎসব চলবে।

‘মানুষের সুকোমল বৃত্তি, আলোময় করে এই পৃথিবী- গেয়ে যাও জীবনের জয়গান, জীবনের মানে চাও জানতে খোলা আছে পুনশ্চ অভিধান’-সববেত কন্ঠে দলীয় সংগীতের মধ্য দিয়ে উৎসব শুরু হয়। উদ্বোধনের পর এদিন নৃত্যবিতানের শিল্পীদের পরিবেশনায় ছিলো গণনৃত্য। এছাড়া ঢাকার বহ্নি শিখা, বাগের হাটের অংকুর, নড়াইলের বেনুকা, সম্মিলিত সাংস্কৃতিক জোট ঝিনাইদাহ, সুরধুনী ও পুনশ্চের শিল্পীরা সংগীত পরিবেশন করেন।

উদ্বোধনী পর্বের আলোচনায় বক্তব্য রাখেন, সম্মিলিত সাংস্কৃতিক জোটের কেন্দ্রীয় সভাপতি গোলাম কুদ্দুস, যশোরের জেলা প্রশাসক তমিজুল ইসলাম খান, পুলিশ সুপার প্রলয় কুমার জোয়ারদার, রাজারবাগ পুলিশ লাইন স্কুল এন্ড কলেজের সাবেক অধ্যক্ষ বীরমুক্তিযোদ্ধা অধ্যাপক লিয়াকত আলী, মহিলা পরিষদের কেন্দ্রীয় সদস্য হাবিবা শেফা ও সম্মিলিত সাংস্কৃতিক জোট যশোরের সাধারণ সম্পাদক সানোয়ার আলম খান দুলু। সভাপতিত্ব করেন পুনশ্চ যশোরের সহসভাপতি শহিদুল হক বাদল। স্বাগত বক্তব্যে দেন জাতীয় গণসঙ্গীত উৎসব পর্ষদের আহ্বায়ক পান্না লাল দে। অনুষ্ঠান সঞ্চলনা করেন অতশী ভট্টাচার্য্য।

জাতীয় গণসঙ্গীত উৎসব-২০২১ উপলক্ষে ‘সুবর্ণঋণ’ নামে একটি স্মারকগ্রন্থ প্রকাশ করেছে পুনশ্চ। অতিথিদের উত্তোরীয় পড়িয়ে ও ক্রেস্ট দিয়ে বরণ করা হয়। তাদের হাতে তুলে দেয়া হয় উৎসব উপলক্ষে প্রকাশিত সুভ্যেনির। আজ ২৬ নভেম্বর উৎসবের দ্বিতীয় দিন সত্যেন সেন শিল্পী গোষ্ঠী ঢাকা, মেহেরপুর উদীচী, চুয়াডাঙ্গার দর্শনার আনন্দধাম, উদীচী খুলনা, সুরবিতান যশোর, শেকড় যশোর, রবীন্দ্র সংগীত সম্মিলন পরিষদ যশোর ও পুনশ্চ যশোরের শিল্পীরা তাদের পরিবেশনা উপস্থাপন করবেন।

আরো পড়ুন:
যশোরে তিনদিন ব্যাপী জাতীয় গণসংগীত উৎসবের উদ্বোধন
নারীর প্রতি সহিংসতা বন্ধের দাবিতে আইইডির মানববন্ধন

 

একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে